Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ভারতে ফ্যাসিবাদী শাসন সীমা ছাড়িয়েছে

কাশ্মীর প্রশ্নে প্রতিক্রিয়ায় জে. রাহিল শরীফ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতের ব্যাপক মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সাবেক প্রধান, অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল রাহিল শরীফ। তিনি বলেন, ভারতের ফ্যাসিবাদী শাসন সব সীমা অতিক্রম করেছে। সউদী আরবের রিয়াদে গত মঙ্গলবার পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তব্যকালে ইসলামিক মিলিটারি কাউন্টার-টেরোরিজম কোয়ালিশনের প্রধান রাহিল শরীফ বিতর্কিত হিমালয়ান অঞ্চল কাশ্মীরে যে নৃশংসতা চালানো হচ্ছে তার বিরুদ্ধে সরব হন। নিরস্ত্র বেসামরিক কাশ্মীরি জনগণের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন নৃশংসতা চালানোর জন্য জেনারেল শরীফ ভারতের ফ্যাসিবাদী শাসনের নিন্দা করেন। তিনি মুসলমানদের বিরুদ্ধে গণহত্যা চালানোর জন্য মোদি প্রশাসনকে হুঁশিয়ার করে দেন। জেনারেল শরীফ বলেন, কাশ্মীর হলো দেশ ভাগের একটি অসমাপ্ত এজেন্ডা এবং ওই অঞ্চলে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য জাতিসংঘ প্রস্তাব ও কাশ্মীরি জনগণের আকাক্সক্ষা অনুযায়ী এই সমস্যার সমাধান করতে হবে। সাবেক এই সেনাপ্রধান আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের প্রতি গুরুতর মানবিক সঙ্কটকে আমলে নিয়ে নয়া দিল্লির বর্বরতা বন্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণের আহŸান জানান। গত ৫ আগস্ট ভারত একতরফা অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা বাতিল করে। কাশ্মীরের রাজ্য মর্যাদা বাতিল করে একে দুই ভাগ করা হয় এবং দুটি ইউনিয়ন টেরিটরি হিসাবে কেন্দ্রের শাসনের অধীনে আনা হয়। ভারতের এই কাজ জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে গ্রহণ করা প্রস্তাবের বিরোধী এবং আন্তর্জাতিক আইনের দৃষ্টিতে অবৈধ। জেনারেল শরীফ জোর দিয়ে বলেন, কাশ্মীর হলো পাকিস্তানের ঘাড়ের রগের মতো এবং পাকিস্তান ক‚টনৈতিক অঙ্গনে কাশ্মীরের প্রতি সমর্থন দান অব্যাহত রাখবে। তার মতে পাকিস্তান সেনাবাহিনী এখন যুদ্ধ-পরিপক্ক ও অপরাজেয় শক্তি। জেনারেল শরীফ দেশের জন্য জীবন উৎসর্গকারী ও সন্ত্রাসদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হওয়ার জন্য পাকিস্তান সশস্ত্র বাহিনীর যারা জীবন দিয়েছেন তাদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। তিনি উল্লেখ করেন যে, যুদ্ধের ময়দানে পাকিস্তান সেনাবাহিনী অতুলনীয় বীরত্ব ও মনোবল দেখিয়েছে এবং এটি সবচেয়ে যুদ্ধ-পরিপক্ক বাহিনী, যারা আত্মমর্যাদা ও সম্মান রক্ষার জন্য যেকোন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে প্রস্তত। সূত্র : এসএএম।

 



 

Show all comments
  • llp ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:২৪ এএম says : 0
    Kashmir is needed for all muslim countries to destroy ahmadia movement. Allah swt is definitely going to make India loose Kashmir with or without Pakistan very soon.
    Total Reply(0) Reply
  • হে আল্লাহ তুমি মুসলমানদেরকে আসমানি শক্তি দান কর,
    Total Reply(0) Reply
  • তাওহীদ ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৯ এএম says : 0
    মুসলিমদের বিজয় একদিন হবেই ইনশাআললাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Sunaid Khan ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৩৯ এএম says : 0
    আমাদের কাশ্মিরিদের পাশে থাকতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Kayum Rahman Sabuz ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
    যে যার অবস্থান থেকে কাস্মীরী ভাই-বোনদের প্রতি দোয়া, সহানুভূতি, সাহায্য, বিশ্ব মিডিয়ায় প্রচার, জনসচেতন করা, ত্রান-সাহায্যে, সাহসও মনোবল যোগানো সহ এগিয়ে আসুন।
    Total Reply(0) Reply
  • M Nijam H Shahin ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪২ এএম says : 0
    কাশ্মীরের পাশে সবাইকে থাকার,আহবান করছি!
    Total Reply(0) Reply
  • Al Helal ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪২ এএম says : 0
    There is no headach huminity in muslim ummah Our Eman is going to demolish.No state no leader does not give any statement against genocide of kashmirian
    Total Reply(0) Reply
  • Abul Kalam Azad ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪২ এএম says : 0
    আজ বিশ্বে একশত ষাট কোটি মুসলমান আছে কিন্তু একজন সালাউদ্দিন আইয়ুবী নাই। যদি একজন সালাউদ্দিন থাকত তাহলে শুধু কাশ্মীর নয় বিশ্বের কোথাও মুসলিম নির্যাতন হত না। বর্তমানের সব মুসলিম রাষ্ট্র প্রধানরা ক্ষমতা আর অর্থের লোভে এত বহরা হয়ে গেছে যে , নির্যাতিত মুসলমানদের কান্না তাদের কান পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছায় না
    Total Reply(0) Reply
  • Akhter Hossain ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৩ এএম says : 0
    ধিক্কার জানাই মুসলিম বিশ্বের ক্ষমতাধর শাসকগোষ্ঠীকে। এত অমানুষিক নির্যাতনের দৃশ্য কি ওদের চোখে পড়েননি?
    Total Reply(0) Reply
  • Asaduzzaman Rana ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৩ এএম says : 0
    সারা পৃথিবীতে মুসলমান মাইর খায় সে খানে কোন কথা বলে না মুসলিম রাষ্ট্র নায়ক গুলো।
    Total Reply(0) Reply
  • James Arman ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৩ এএম says : 0
    অাল্লাহ মজলুমের প্রতিটা রক্তের বদলা নিবেন, নমরুদের জুলুম থেকে বাচানোর জন্য ইব্রাহিম অা. পাঠিয়ে ছিলেন, ফেরাউনের জুলুম থেকে বাঁচানোর জন্য মুসা অা. কে পাঠিয়ে ছিলেন অার অাল্লাহ এভাবেই মজলুমদের রক্ষা করার জন্য যুগে যুগে সাহায্যকারী পাঠিয়েছেন, সবর এবং অাল্লাহ সাহায্য কামনা করুন
    Total Reply(0) Reply
  • Âlï Rübêl ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
    কাশ্মীরের মুসলিম নিধন দেখে যদি না কাঁদে তোর মন, মুসলিম নয় মুনাফিক তুই মুমিনের দোষমন ৷
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন