Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী

বিরোধীদের আটক করতে নিজের রাজপ্রাসাদে গোপন কারাগার বানাচ্ছেন যুবরাজ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২:৫৩ পিএম

সউদী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান তার বিরোধীদের আটক করতে জেদ্দায় নিজের প্রাসাদের ভিতরেই গোপন কারাগার বানাচ্ছেন।
আল-সালাম রাজপ্রাসাদেই এ গোপন কারাগার তৈরি করা হচ্ছে। কারাগারটি হবে ১০ তলাবিশিষ্ট। এতে নির্জন কক্ষ ছাড়াও বেশকিছু সম্পূর্ণ অন্ধকার কক্ষ থাকবে।
এ কারাগারে বন্দিদের শাস্তির বিষয় তদারকি করবেন স্বয়ং যুবরাজ সালমান। বুধবার আরবি নিউজ ওয়েবসাইট আল-আহদ আল-জাদিদের বরাতে এ খবর দিয়েছে ফার্স নিউজ।
২০১৭ সালের নভেম্বরে সউদী আরবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করার পর আটক শতাধিক ব্যক্তিকে রিৎজ-কার্লটন হোটেলে রাখায় বাণিজ্যিকভাবে প্রতিষ্ঠানটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। দেশটির পর্যটন ব্যবসার ওপর এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।
ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা এড়াতে গোপন কারাগার বানানো হচ্ছে। আরব মিডিয়াটি ওই প্রতিবেদনে আরও বলেছে, গোপন কারাগারে আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ ও শাস্তির বিষয়টি ক্রাউন প্রিন্স বিন সালমান নিজেই তদারকি করবেন।
প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগে দুর্নীতি দমন অভিযানে আটক ব্যক্তিদের অনেকের মুক্তি হলেও এখনও অনেক ধনাঢ্য ব্যক্তি কারাবন্দি রয়েছেন। তাদের মধ্যে বিন সালমানের সঙ্গে মতবিরোধের কারণে সউদী রাজপরিবারের অনেক সদস্যও রয়েছেন।
প্রিন্স তুর্কি বিন আবদুল্লাহ ও সাবেক অর্থমন্ত্রী আদেল ফাকেই তাদের অন্যতম। এর মধ্যে সাবেক অর্থমন্ত্রী আদেল সউদী সংস্কারের অন্যতম প্রধান রূপকার ছিলেন। আটকদের অনেকেই আল-হায়ের কারাগারে আটক রয়েছেন।
জেদ্দার দক্ষিণে এ কারাগারটিতে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বজায় রাখা হয়েছে। এ কারাগারটিতে বহু জঙ্গি, সরকারবিরোধী এবং সমালোচকদের আটক রাখা হয়েছে।
গত বছরের শুরুতে সউদী অ্যাটর্নি জেনারেল জানান, ৫৬ জন ব্যক্তি কারাগারে আটক রয়েছেন যাদের কারও কারও বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। আটকদের অনেকে আবাসনসহ অন্যান্য ব্যবসা ও নিরাপত্তা বাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বলে জানান তিনি। দুর্নীতি দমন অভিযানের লক্ষ্য ছিল, তাদের অবৈধ আয়ের ১০ হাজার ৬০০ কোটি ডলার উদ্ধার করা।

বিনোদন কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করায় সউদী শিক্ষাবিদ আটক
সউদী আরবের বিনোদন কর্তৃপক্ষের (জেনারেল ইন্টারটেইনমেন্ট অথরিটি-জিসিএ) সমালোচনার পর দেশটির এক প্রখ্যাত শিক্ষাবিদকে আটক করা হয়েছে। কাশিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক আইনের অধ্যাপক ওমর আল মুকবিলকে আটকের খবর নিশ্চিত করেছে কারাবন্দিদের অধিকার সংরক্ষণে কাজ করা একটি গ্রæপ।
মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় প্রিজনার্স কন্সিয়েন্স নামের ওই গ্রæপটি জানিয়েছে, ওই শিক্ষাবিদের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর তাকে আটক করা হয়। ভিডিওতে বলা হয়েছে, জিইএ’র কার্যক্রমে ইসলামিক সমাজের মূল পরিচয় বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। প্রিজনার্স কন্সিয়েন্স বলেছে, গত দুই বছর ধরে শিক্ষাবিদ, শায়খ আর মুক্তচিন্তার মানুষকে বিনা বিচারে আটকের ধারাবাহিকতায় তাকে আটক করা হয়েছে।
গত বছর সউদী আরবে সঙ্গীত তারকা মারিয়া ক্যারি, জ্যানেট জ্যাকসন এবং সিন পলের বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠান আয়োজন করে জিইএ। এর উদ্দেশ্য ছিল, বিশ্বব্যাপী সউদী আরবের সম্মান বৃদ্ধি করা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ