Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী

প্রতিহিংসার রাজনীতির জন্ম দিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান: তথ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬:২৪ পিএম

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বিএনপিকে  প্রতিহিংশার রাজনীতি বর্জন করার আহবান জানিয়ে বলেছেন, প্রতিহিংসার রাজনীতির জন্ম দিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান। আওয়ামী লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না। জিয়া ইনডেমনিটি পাস করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার কার্যক্রম বন্ধ করেছিলেন। তাঁর স্ত্রী খালেদা জিয়া ১৫ আগষ্ট জন্মদিনের কেক কাটেন। তার সরকারের সময় ২০০৪ সালের ২১ আগষ্ট বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা করে আওয়ামী লীগ নেতাদের হত্যা করে নেতৃত্ব শূন্য করার চক্রান্ত করা হয়েছিল। বেছে বেছে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের হত্যা করা হয়েছিল। দেশের গণতন্ত্র ধ্বংসে বিভিন্ন সময় শকুনেরা খামচে ধরেছে। এর অন্যতম নায়ক জিয়াউর রহমান।
আজ শুক্রবার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত গণতন্ত্রের মানসপুত্র হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ১২৭তম জন্মবার্ষিকী এবং গণতন্ত্রের মানসকন্যা শেখ হাসিনা শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগের শাসনামলে বিএনপির জনসভায় কোন বোমা হামলা হয়নি। বিএনপির শীর্ষ নেতাদের হত্যা করা হয়নি। বিএনপির এসব প্রতিহিংসামুলক কাজের জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাজীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন। তিনি আপোষ করেননি। তিনি বলেন, জিয়ার পরে সাবেক প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ক্ষমতা দখলের পেছলে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সায় ছিল। তার প্রমাণ খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থেকেও তার স্বামী জিয়াউর রহমানের বিচার করেননি।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের উদ্দেশ্যে তথ্যমন্ত্রী বলেন, অবান্তর কথা না বলে আয়নায় নিজেদের মুখ দেখুন। নিজেদের দল সংগঠিত করুন। আমরা চাই বিএনপি দেশের রাজনীতিতে ভুমিকা রাখুক।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন অর্জনের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছেন গণতন্ত্রের মানসপূত্র হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর নাম। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালির জাতিসত্বা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তিনি বাঙালির মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। আর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ বাস্তাবায়ন করছে। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দুরদর্শীতা দেখে কাছে টেনে নিয়েছিলেন।
সংগঠনের সভাপতি সারাহ বেগম কবরীর সভাপতিত্বে সভায় আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা কামাল চৌধুরী, আখতার হোসেন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা, কন্ঠ শিল্পী রফিকুল আলম, অভিনেত্রী অরুনা বিশ্বাস প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তথ্যমন্ত্রী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ