Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

বাসে ডাকাতি, ১৫ লাখ টাকার মালামাল লুট

চাঁদপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৪:৫০ পিএম

চাঁদপুর-সিলেট রুটে চলাচলকারী সততা পরিবহনের বাসে দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। এতে ৫জন যাত্রী আহত হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত আনোয়ার হোসেন (৫৫) নামে এক ডাকাতকে আটক করা হয়। আহত দু’ যাত্রী কুমিল্লার কুচাতলি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় বাসের ৪৫ জন যাত্রীর প্রায় ১৫ লাখ টাকার মূল্যমানের জিনিসপত্র, নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট হয়।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে সিলেট থেকে বাসটি চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসলে পথিমধ্যে ব্রাহ্মন বাড়িয়া জেলার রাধিকা এলাকায় আসলে যাত্রী বেশে থাকা ৭জনের সংঘবদ্ধ ডাকাতদল এ ঘটনা ঘটায়।

আটক আনোয়ার হোসেনকে শনিবার দুপুরে বাসের লোকজন চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। আনোয়ার হবিগঞ্জ জেলার মাদবপুর উপজেলার হরেশপুর গ্রামের মৃত সরব আলীর ছেলে।

সততা পরিবহনের সুপারভাইজার আব্দুল ওহাব বলেন, সিলেট থেকে রাত ১১টায় বাসটি ছাড়ার সময় অন্যান্য যাত্রীদের সাথে সংঘবদ্ধ ডাকাতদলের ৩জন এবং ৪জন পৃথক ভাবে টিকিট কেটে ৭জন যাত্রী হিসেবে বাসে উঠে। বাসটি ছাড়ার প্রায় সাড়ে ৩ঘন্টা পর ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার রাধিকা নামক স্থানে আসলে চালকে তার আসন থেকে জোরপূর্বক উঠিয়ে আটক হওয়া ডাকাত দলের সদস্য আনোয়ার হোসেন চালক আসনে বসে। এ সময়ে বাকী ৬ ডাকাত আগ্নেয়াস্ত্র এবং দেশীয় অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের মারধর ও জিম্মি করে নগদ টাকা,স্বর্ণলংকার, মোবাইলসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়। ডাকাতদের হামলায় এ সময় ৯ থেকে ১০জন যাত্রী কম বেশী আহত হয়। আহতদের সবাই কুমিল্লার যাত্রী। এর মধ্যে ২জন গুরুতর আহত হওয়ায় কুমিল্লা কুচাতলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বাসের চালক সালাউদ্দিন বলেন, ডাকাতির ঘটনা সংঘটিত হওয়ার সময় পিছন দিক থেকে একটি মাইক্রোবাস বার বার হর্ণ দিয়ে আসছিলো। ডাকাত সদস্যরা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন মনে করে উজানিসা নামক স্থানে বাস থেকে দ্রæত লাফিয়ে পড়ে এবং চালকের আসনে বসা আনোয়ার জানালা দিয়ে লাফিয়ে পড়লে তার পা ভেঙে যায়। পরে যাত্রীরা নেমে ডাকাত বলে চিৎকার দিয়ে আনোয়ারকে আটক করে চাঁদপুরে নিয়ে আসে।

চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসিম উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি যেহেতু অন্য জেলায়। আমরা সংশ্লিষ্ট থানার সাথে যোগাযোগ করে পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। আটক ডাকাতকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডাকাতি

৪ আগস্ট, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন