Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

পরিবেশ দূষণের দায়ে ডিএনসিসিকে সর্বোচ্চ জরিমানার সুপারিশ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

আমিনবাজার বর্জ্য ডাম্পিং স্টেশনের মাধ্যমে পরিবেশ দ‚ষণের দায়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনকে (ডিএনসিসি) সর্বোচ্চ জরিমানা করার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। গতকাল সংসদ ভবনে কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের সুপারিশ করার বিষয়ে একমত পোষণ করে শিগগিরই ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়। কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী এই তথ্য জানিয়েছেন।

আমিনবাজারে ডিএনসিসির ওই বর্জ্য ডাম্পিংয়ের ল্যান্ডফিলটি কোনও ধরনের পরিবেশ ছাড়পত্র ছাড়াই চলছে। গত ৪ এপ্রিল বিষয়টি নিয়ে সংসদীয় কমিটি বৈঠকে আলোচনা করে।

গতকাল বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, আমিনবাজার বর্জ্য ডাম্পিং স্টেশনটি সম্পূর্ণ অবৈধ। এটি বন্ধ করতে আগে চিঠি দেওয়া হলেও তারা সময় চেয়েছে। আজকের বৈঠকে আমরা জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। মন্ত্রণালয়ও একমত হয়েছে। তারা শিগগিরই চিঠি দেবে।

তিনি বলেন, পরিবেশ দ‚ষণের জন্য জরিমানা করার বিধান আছে। আইন সবার জন্য সমান। সিটি করপোরেশন এখানে কোনও বিশেষ সুবিধা পেতে পারে না। সংসদীয় কমিটির বৈঠকের তথ্য অনুযায়ী, আমিন বাজার ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণের শুরুতে এই প্রকল্পের জন্য ‘স্থানগত ছাড়পত্র’ পায় সিটি করপোরেশন। তখন ঢাকায় অবিভক্ত সিটি করপোরেশন ছিল। এরপর প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানকে ‘এনভায়রনমেন্টাল ইমপ্যাক্ট এসেসমেন্ট’ করে প্রতিবেদন দিতে হয়। সেই প্রতিবেদন মূল্যায়ন করে কাজ করার জন্য ছাড়পত্র দেয় পরিবেশ অধিদফতর। আমিন বাজার ডাম্পিং স্টেশনের জন্য ৫০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হলেও বর্তমানে কাজ চলছে ৭৩ একর জমির ওপর। এতে জমির মালিকরাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

এদিকে, সংসদীয় কমিটির বৈঠকের কার্যপত্র থেকে জানা গেছে, আমিনবাজারের বর্জ্য ডাম্পিং স্টেশন নিয়ে আলোচনা ওঠার পর পরিবেশ অধিদফতর ডিএনসিসিকে ৩টি নোটিশ দেয়। ডাম্পিং স্টেশনটি বন্ধ করার জন্য জানিয়ে দেওয়া হলেও তাতে রাজি হয়নি ডিএনসিসি। এ ব্যাপারে ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গেও কথা হয়েছে বলে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। এর আগে, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে সেখান থেকে জানানো হয়, ডাম্পিং স্টেশনটি এক বছরের মধ্যে বন্ধ করা হবে।

ডিএনসিসি ওই স্টেশন বন্ধে রাজি না হয়ে উল্টো পরিবেশ অধিদেফতরকে তাদের ‘এনভায়রনমেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান্ট (ইএমপি) তৈরি করে দিতে বলে। জবাবে অধিদফতর বলেছে, ইএমপি করার কাজ তাদের নয়। তারা এ ব্যাপারে গাইড দেবে।

সাবের হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও অংশ নেন কমিটির সদস্য পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, উপমন্ত্রী হাবিবুর নাহার, মোজাম্মেল হোসেন, দীপংকর তালুকদার, নাজিম উদ্দিন আহমেদ, জাফর আলম, রেজাউল করিম বাবলু ও খোদেজা নাসরিন আক্তার।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পরিবেশ দূষণ

১৭ জানুয়ারি, ২০১৯
৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ