Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

পাক-ভারত পরমাণু যুদ্ধের সম্ভাবনা রয়েছে : ইমরান খান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩:২২ পিএম

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারতের সঙ্গে তার দেশের পরমাণু যুদ্ধ বেধে যেতে পারে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেছেন।
কাশ্মীর ইস্যুতে জাতিসংঘের কাছে থেকে তেমন কোনো ভূমিকা প্রত্যাশা করেন না উল্লেখ করে ইমরান বলেন, ‘প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর গঠিন আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো-প্রধানত জাতিসংঘের কাছ থেকে আমরা বেশি কিছু আশা করি না।’ কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে পাকিস্তান কথা বলেছে বলেও জানান তিনি।
কাশ্মীরের বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা ভারত বাতিলের পর বৈশ্বিক প্রতিক্রিয়া নিয়েও অসন্তোষ প্রকাশ করেন পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী।
তিনি বলেন, ‘দুর্ভাগ্যবশত, পুরো বিষয়টির পেছনে রয়েছে বড় বাজার। কিছু দেশ বড় বাজারের দিকে নজর রাখে। তারা ভারতকে ১০০ কোটি মানুষের বাজার হিসেবে দেখে। তারা বুঝতে পারে না যে, তারা যদি এই মুহূর্তে হস্তক্ষেপ না করে তাহলে এর পরিণতি কেবল উপমহাদেশ নয়, পুরো বিশ্ববাণিজ্যকে বহন করতে হবে-প্রত্যেকে এর মাধ্যমে প্রভাবিত হবে।’
পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সঙ্গে পরমাণু যুদ্ধের যে সম্ভাবনার কথা বলেছেন তাতেও সমর্থন জানান ইমরান।
তিনি বলেন, ‘যা ঘটছে তা হচ্ছে ভারত কম-বেশি গণহত্যা চালাচ্ছে। এটা জনগোষ্ঠীর ওপর চালানো বর্ণবাদী হামলা। আমি মনে করি না, জার্মানির নাৎসিদের পর এরকম আর দেখা গেছে। ৮০ লাখ মুসলমান প্রায় ছয় সপ্তাহ ধরে অবরুদ্ধ। এটি ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে জ্বলন্ত বিন্দু হয়ে দাঁড়ানোর কারণে হচ্ছে ভারত কাশ্মীরে তাদের অবৈধ দখল ও গণহত্যা থেকে বিশ্বের নজর অন্যদিকে সরাতে চাইছে।’
পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, ‘আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই দুই পারমাণবিক অস্ত্র শক্তিধর দেশ যখন যুদ্ধ করে, তারা যদি প্রচলিত যুদ্ধ করে- তাহলে তা পরমাণু যুদ্ধ দিয়ে শেষ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইমরান খান


আরও
আরও পড়ুন