Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

আমার সিনেমাটি যদি মানুষ না দেখে তাহলে আমার আফসোস হবে না -অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড

মারুফ সরকার: | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

রোহিঙ্গা ছবির কাজ প্রায় শেষ করে এনেছেন পরিচালক অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড। ছবিটির ডাবিংও রয়েছে শেষ পর্যায়ে। অনেক দিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিয়মতান্ত্রিক পরিকল্পনা, গল্প নিয়ে নানা ধরনের গবেষণা, নির্মাণশৈলী নিয়ে চিন্তা ভাবনা এবং তার চেতনানির্ভর আকাক্সক্ষার বহি:প্রকাশ এই ছবিটি। রোহিঙ্গা সংকটের মৌলিক সমস্যাগুলো ছবিটিতে তুলে আনার চেষ্টা করেছেন তিনি। অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড বলেন, একজন চলচ্চিত্রকার হিসেবে আমি কেবল সমস্যাগুলো তুলে ধরতে পারি, সমাধান দিতে পারি না। এই দায়িত্ব সরকারের তথা পার্লামেন্টের। রোহিঙ্গা সংকট একদিনের নয়, বহু দিনের। এই সংকট এখন একটি আন্তর্জাতিক ইস্যু। জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানকে নিয়ে যে কমিশন গঠিত হয়েছিল, তার প্রতিবেদনসহ রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে মিয়ানমারের ডি-ফ্যাক্টো নেত্রী অং সা সুচির ভ‚মিকা তুলে আনা হয়েছে ছবিটিতে। আলোকপাত করা হয়েছে জাতিসংঘের ভ‚মিকার ওপরও। ডায়মন্ড বলেন, ছবিটি নির্মাণ করতে আমি যথেষ্ট শ্রম দিয়েছি। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের ভ‚মিকাও আমি ছবিটিতে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। মিয়ানমার সরকারের নিপীড়নে দেশ ছাড়া হচ্ছেন রোহিঙ্গারা। তাদের দূর্বিষহ জীবনের বাস্তব চিত্র তুলে ধরা হয়েছে ছবিটিতে। শবনম শেহনাজ চৌধুরী প্রযোজিত রোহিঙ্গা ছবি প্রসঙ্গে নির্মাতা অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড বলেন, আমি ২০১২ সালে এই সিনেমাটির জন্য পরিচালক সমিতিতে নিবন্ধন করেছিলাম। ২০১৭ সালে যখন রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সরকারের নিপীড়ন শুরু হয় তখন তারা বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে আসে। আমি তখন ক্যামেরা নিয়ে ছুটে যাই সেই দৃশ্যধারণ করার জন্য। আমি চেয়েছি, বাস্তব বিষয়টা সিনেমায় উঠে আসুক। ডায়মন্ড বলেন, আমার সিনেমাটি যদি মানুষ না দেখে তাহলে আমার আফসোস হবেনা। মানুষ এক সময় আফসোস করবে। আমি রোহিঙ্গাদের নিয়ে সিনেমা নির্মাণ করছি। কেউ যদি দেখে তাহলে ভালো। আবার কেউ যদি না দেখে সেটাও ভালো। আমি আমার চেতনা থেকে সবসময় সিনেমা নির্মাণ করি। তিনি জানান, আগামী ডিসেম্বরের যে কোনো সপ্তাহে মুক্তির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। কারণ এ ধরনের ছবির জন্য কোনো উপলক্ষের প্রয়োজন হয় না।রোহিঙ্গা ছবিটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ওমর আইস অনি, আরশি হোসেন, সুচি, সাগর, বৃস্টি, তানজিদ, শাকিবা, হায়াতুজ্জামান, গোলাম রাব্বানি, মিন্টু, শ্রেয়া, তাওহিদ, ইনাম আহমেদ প্রমুখ। চিত্রগ্রহণে রয়েছেন আসাদুজ্জামান মজনু।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সিনেমা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ