Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

রাব্বানী ও সাদ্দামের ফোনালাপ উপাচার্যকে বিতর্কিত করার ষড়যন্ত্র: প্রশাসন

জাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩:১৪ পিএম
নির্মাণ কাজের টাকার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে ফোনালাপ প্রসঙ্গে জাবি কর্তৃপক্ষ আজ সোমবার বক্তব্য দিয়েছে।
 
সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ থেকে পাঠানো এক প্রেস বিবৃতিতে এই বক্তব্য জানানো হয়।
 
এতে বলা হয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন মহাপরিকল্পনার নির্মাণ কাজের টাকা পয়সার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এবং জাবি ছাত্রলীগের নেতা সাদ্দাম হোসাইন এবং হামজা রহমান অন্তর-এর ফোনালাপে উপাচার্য মহোদয়কে জড়িয়ে গতকাল ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে  ফোনালাপ প্রচারিত-প্রকাশিত হয়েছে, তা অসত্য এবং উদ্দেশ্যমূলক। 
 
বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দৃঢ়ভাবে জানাচ্ছেন যে, উপাচার্য মহোদয়ের সঙ্গে টাকা ভাগের কোনো আলাপ হয়নি। তিনি কাউকেই অর্থ প্রদান করেননি। জনাব গোলাম রাব্বানী উপাচার্য মহোদয়কে বিতর্কিত করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে এই ফোনালাপের গল্প তৈরি করেছেন। এ ধরনের পরিকল্পিত মিথ্যা গল্পের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছেন কর্তৃপক্ষ। 
সংশ্লিষ্ট সকলের জ্ঞাতার্থে কর্তৃপক্ষ আরও জানাচ্ছেন যে, এই মিথ্যে গল্পের সত্যাসত্য প্রমাণ করার দায়িত্ব উপাচার্য মহোদয়ের নয়। 
 
প্রসঙ্গক্রমে উল্লেখ করা যায় যে, গণমাধ্যমের সাথে সাদ্দাম হোসাইন বলেছে  ‘‘তিনি (রাব্বানী) সেন্ট্রাল ছাত্রলীগের সেক্রেটারী ছিলেন। আমি তার রাজনীতি করতাম। অনেক কথাই তার সাথে হয়েছে। সে যা বলতে বলেছে তাই বলেছি, যা করতে বলেছে তাই করেছি’- ইত্যাদি কথার মাধ্যমে বুঝা যায় জনাব  গোলাম রাব্বানীর সাথে  সাদ্দাম হোসাইন এর ফোনালাপ পূর্ব পরিকল্পিত এবং সাজানো ছিল।   
 
বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পাঠক তথা দেশবাসী এবং সংশ্লিষ্ট সকলকে মিথ্যা অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হয়ে সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে সমর্থন ও অবস্থান নেয়ার আহবান জানাচ্ছেন। 


 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাবি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ