Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

এই প্রথম ভিন্ন ধর্মের ১৮ প্রার্থনাস্থলকে স্বীকৃতি দিচ্ছে আবুধাবি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩:৫৫ পিএম

এতদিন পর্যন্ত সংযুক্ত আরব-আমিরাতে অ-মুসলিম ধর্মীয় প্রার্থনাস্থলগুলোর কোনও আইনি বৈধতা ছিল না। এতদিনের ঐতিহ্য ভেঙে এবার অ-মুসলিম ধর্মস্থানগুলিকে স্বীকৃতি দিতে চলেছে দেশটির সরকার। আগামী সপ্তাহে এক বিশেষ অনুষ্ঠানে ১৮টি সংখ্যালঘুদের প্রার্থনাস্থলকে লাইসেন্স দেওয়া হবে।

ধর্মীয় স্বাধীনতার হাওয়া বইছে আবু ধাবিতে। এবারই প্রথম সেখানে মন্দির, গুরুদ্বার এবং চার্চসহ ভিন্ন ধর্মের ১৮টি প্রার্থনাস্থলকে লাইসেন্স দেওয়া হবে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির লক্ষ্যে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে আবুধাবির কমিউনিটি ডেভলপমেন্ট দফতর সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

সমস্ত ধর্মীয় প্রার্থনাস্থলের দৈনন্দিন কাজে সহায়তার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আবুধাবি প্রশাসন। যে কারণে এগুলিকে একটি ছাতার তলায় আনা হচ্ছে। সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে মসজিদের পাশাপাশি মন্দির, চার্চ এবং গুরুদ্বারাগুলি লাভবান হবে বলে প্রশাসনের দাবি। এতদিন পর্যন্ত আবু ধাবিতে অ-মুসলিম ধর্মীয় প্রার্থনাস্থলগুলির কোনও আইনি বৈধতা ছিল না।

এই প্রসঙ্গে ডিসিডি-র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর (কমিউনিটি এনগেজমেন্ট অ্যান্ড স্পোর্টস) সুলতান আল ধাহেরি বলেছেন, ‘ধর্মীয় প্রার্থনাস্থলগুলিকে লাইসেন্স দেওয়ার মূল্য উদ্দেশ্য হল সেগুলিকে সরকারি একটি চ্যানেলের আওতায় আনা। এর মাধ্যমে সরকারের ধর্ম বিষয়ক বিভাগ বিশেষ পরিষেবা দিতে পারবে। একইসঙ্গে ধর্মীয় প্রার্থনাস্থলগুলির কোনও বিশেষ প্রয়োজন হলে তারাও এই চ্যানেলের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবে। ফলে জনগণ বা কোনও ব্যক্তি নতুন ধর্মীয় স্থান তৈরি বা সংশ্লিষ্ট পরিষেবা শুরু করতে চাইলে এই দফতরে আবেদন করতে হবে। সংখ্যালঘু ধর্মীয় স্থানগুলিকে লাইসেন্স দেওয়ার মাধ্যমে আবুধাবিতে শান্তি, সহিষ্ণুতা এবং সহাবস্থানের পরিবেশ আরও শক্তিশালী হবে।’

সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে গড়ে উঠতে চলেছে প্রথম ঐতিহ্যবাহী হিন্দু মন্দির। সম্প্ৰতি হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে সেই মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বোচাসনবাসী শ্রী অক্ষর পুরুষোত্তম স্বামীনারায়ণ সংস্থার মহন্ত স্বামী মহারাজ। তারাই এই হিন্দু মন্দিরটি নির্মাণ করছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আরব আমিরাত


আরও
আরও পড়ুন