Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

রংপুর সদর আসনের উপ-নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ প্রচারণা শুরু

রংপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে। রিটার্নিং অফিসার ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম শাহাতাব উদ্দিন গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতীক বরাদ্দ করেন। প্রতীক পেয়েই প্রার্থীরা প্রচারণা শুরু করেছেন। আওয়ামীলীগ প্রার্থী মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে নেয়ায় এখন এ উপ-নির্বাচনে ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন।
বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমান নিজেই উপস্থিত থেকে দলীয় প্রতীক ‘ধানের শীষ’ নেন। এরপর গণফ্রন্টের প্রার্থী কাজী মো. শহিদুল্লাহ তার দলীয় প্রতীক ‘মাছ’, খেলাফত মজলিস প্রার্থী তৌহিদুর রহমান মন্ডল ‘দেয়াল ঘড়ি’ এবং এনএনপি প্রার্থী শফিউল আলম ‘আম’ প্রতীক গ্রহণ করেন। অপরদিকে জাপার বিদ্রোহী প্রার্থী এইচ এম এরশাদের ভাতিজা হোসেন মকবুল শাহারিয়ার আসিফ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ‘মোটর গাড়ি’ প্রতীক গ্রহণ করেন। প্রতীক বরাদ্দের সময় সব প্রার্থী নিজেই উপস্থিত থেকে দলীয় প্রতীক নিলেও জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাদ এরশাদ উপস্থিত ছিলেন না। তবে রিটার্নিং অফিসার সাদ এরশাদকে তাদের দলীয় প্রতীক ‘লাঙল’ বরাদ্দ দেন।

এদিকে প্রতীক পেয়ে বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমান বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার বিষয়ে আমার এখনও সন্দেহ রয়েছে। কারণ ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট নেয়া হলে ফলাফল উল্টানো যায়। এর প্রমাণ বিভিন্ন দেশে আমরা দেখেছি। এরপরও আমি আশা করছি, যেহেতু এ নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তন হবে না সে কারণে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে।’ এদিকে এরশাদের ভাতিজা স্বতন্ত্র প্রার্থী হোসেন মকবুল শাহারিয়ার প্রতীক নেয়ার পর বলেন, শাদ এরশাদ বহিরাগত প্রার্থী। তাকে রংপুরের মানুষ কখনও দেখেনি, চেনেও না। ফলে বহিরাগত প্রার্থী লাঙল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করলেও ভোটাররা তাকে প্রত্যাখান করবে। আমি এরশাদ পরিবারের সন্তান। আমার প্রতি সাধারণ মানুষের ব্যাপক সমর্থন আছে। আমার প্রতীক লাঙল না হলেও মোটরগাড়ি প্রতীকে আমাকে ভোট দিয়ে জয়ী করবেন তারা।

এদিকে রিটার্নিং অফিসার প্রতীক বরাদ্দ করার আগে প্রার্থীদের নির্বাচনী আচরণবিধি কঠোরভাবে মেনে নেয়ার আহŸান জানান। অন্যথায় কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করেন নির্বাচন কর্মকর্তা।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন