Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

ধর্ষণ মামলার বাদীর উপর আসামীদের হামলা, গ্রেফতার ১

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৪:২৫ পিএম

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় আলোচিত গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলার বাদী ছিদ্দিক হাওলাদারের এক হাত ও দুই পা গুড়িয়ে দিয়েছে আসামীরা। মঙ্গলবার রাতে চাপলি বাজারে এ নির্মম ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় ছিদ্দিককে উদ্ধার করে প্রথমে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তার অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় ওই রাতে চিকিৎসক দ্রুত বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এঘটনায় মহিপুর থানা পুলিশ বুধবার দুপুরের দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ওই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি খায়ের(৪২) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে।

আহত ছিদ্দিক জানায়, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে চাপলি বাজারের ধুলাশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বসে তাকে রড ও ইট দিয়ে পিটিয়ে হাত পা গুড়িয়ে দিয়েছে। তার স্ত্রীর গণধর্ষনের ঘটনায় জড়িত মামলার আসামীরা সদ্য জেল থেকে বের হওয়া শাকিল, শাহ আলম, মামুন, রবিউলসহ কয়েক যুবক এ হামলা চালিয়েছে। তাকে মাটিতে ফেলে আসামীরা সারা শরীরে মারাত্মক জখম করে। ঘটনা দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে ওই বাহিনীর সদস্যরা তাদের অস্ত্রের মুখে দূরে সরিয়ে দেয়।
আহতের ভাই কবির হাওলাদার বলেন, খবর শুনে ভাইকে উদ্ধার করে চাপলী বাজার হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা আসামীদের ভয়ে চিকিৎসা দেয়নি। গনধর্ষন মামলার জেরে এ হামলা চালানো হয়েছে।

মহিপুর থানার ভাপরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোহেল আহমেদ জানান, এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, গত ১৫ এপ্রিল রাতে কলাপাড়া উপজেলার ধুলাশ্বর ইউনিয়নের নতুনপাড়া গ্রামে স্বামীকে বেধে তার সামনে স্ত্রীকে পালাক্রমে গণধর্ষন করেন একই এলাকার মৃত মনু মাঝির ছেলে শাহ আলম, মনির হাওলাদারের ছেলে শাহিন, রবিউল, আল-আমিন, আব্দুর রশিদ, শাকিলসহ ১০ থেকে ১২ জন। এ ঘটনায় ১৬ এপ্রিল ধর্ষিতার স্বামী ছিদ্দিক বাদী হয়ে পটুয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে অভিযাগে দায়ের করেন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার


আরও
আরও পড়ুন