Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

সরিষাবাড়ীতে জুট মিল চালু ও বকেয়া পরিশোধের দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ

চার ঘণ্টা সড়ক ও রেলপথ অবরোধ, অগ্নিসংযোগ

সরিষাবাড়ী (জামালপুর)সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫:৩৯ পিএম

জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌর এলাকার আলহাজ জুট মিল চালু ও বকেয়া পরিশোধের দাবিতে চার ঘণ্টাব্যাপি সড়ক ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি করেছে শ্রমিকরা। বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত দুই সহস্রাধিক শ্রমিক জামালপুর-সরিষাবাড়ী-ভুয়াপুর সড়ক অবরোধ করা হয়। এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা সরিষাবাড়ী রেল স্টেশন এলাকায় রেলপথে অবস্থান নিলে বঙ্গবন্ধু সেতু (পূর্ব) স্টেশন থেকে চট্রগ্রামগামী একটি লোকাল ট্রেন অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে।

এদিকে বিক্ষোভে পৌরসভার প্রধান সড়ক বন্ধ হয়ে পড়ায় উপজেলার স্বাভাবিক যান চলাচল স্থবির হয়ে পড়ে। দেশের বৃহৎ যমুনা সার কারখানার সার পরিবহণও পর্যন্ত বন্ধ থাকে। এ সময় বিপুল পরিমাণ থানা ও জিআরপি পুলিশ মোতায়েন ছিলো। জামালপুরের জেলা প্রশাসক এনামুল হক মিল চালু করতে উদ্যোগ নেওয়ার আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা অবরোধ প্রত্যাহার করে।

শ্রমিক-কর্মচারী সূত্র জানায়, আলহাজ জুট মিল প্রায় ১৫ কোটি টাকা ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে গত বছরের ২১ জুলাই মধ্যরাতে পূর্বঘোষণা ছাড়াই কর্তৃপক্ষ বন্ধ করে দেয়। ১৯৬৭ সালে স্থাপিত এ মিলে দৈনিক প্রায় ১৫ মে. টন পাটের বস্তা, ব্যাগ ও কার্পেটের সুতা প্রস্তুত হতো। মিলটি হঠাৎ বন্ধ হওয়ায় কর্মরত প্রায় চার হাজার শ্রমিক-কর্মচারী বেকার অবস্থায় মানবেতর জীবন-যাপন করছে। এ ব্যাপারে প্রশাসন, সিবিএ ও জনপ্রতিনিধিরা বারবার যোগাযোগ করলেও কর্তৃপক্ষ কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না।
শ্রমিক-কর্মচারীরা মিল চালুর দাবিতে বিভিন্ন সময় বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে আসছে। সর্বশেষ বুধবার আলহাজ জুট মিল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়ন (সিবিএ) সড়ক ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচির ডাক দেয়। এ সময় শ্রমিকরা খÐ খÐ বিক্ষোভ মিছিলসহ প্রধান সড়কের প্রায় তিন কিলোমিটার এলাকার অন্তত ২০টি স্থানে গাছের গুড়ি ফেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করে রাখে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ রেলক্রসিংয়ে শ্রমিকরা অবস্থান করলে ২৫৪ নম্বর লোকাল ট্রেন প্রায় ঘণ্টাব্যাপি আটকা থাকে। কর্মসূচিতে যমুনা সার কারখানা, পপুলার, এআরএ জুট মিল সিবিএ, শ্রমিক লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সরিষাবাড়ী অনার্স কলেজ ছাত্রসংসদসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ও সংগঠন একাত্মতা ঘোষণা করে।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে আলহাজ জুট মিল সিবিএ’র সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেন আলহাজ জুট মিল সিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রম সম্পাদক আব্দুল মান্নান, শ্রমিকলীগের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন, টাউন বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা জিন্নাহ, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমাÐের সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্যুৎ, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল হাসান দুখু, পপুলার জুট মিল সিবিএ’র সভাপতি আলফাজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, অনার্স কলেজ ছাত্রসংসদের ভিপি নাজমুল হুদা বজলু প্রমুখ।

মিলের শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান বলেন, ‘শ্রম আইন লঙ্ঘন করে কর্তৃপক্ষ পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই মিলটি বন্ধ করেছে। মালিকের কাছে শ্রমিকদের বকেয়া পড়ে আছে দুই কোটি টাকা বকেয়া। নতুন কর্মসংস্থান ও বকেয়া না দেওয়ায় একমাত্র মিলের ওপর নির্ভরশীল শ্রমিক-কর্মচারীরা বর্তমানে বেকার হয়ে মানবেদর জীবন-যাপন করছে।’ শ্রমিকরা দ্রæত বকেয়া পরিশোধ ও মিল চালু না হলে আরো বড় কর্মসূচির হুশিয়ারী দেন।

এদিকে জেলা প্রশাসক শ্রমিকদের দাবি পূরণ করতে কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলবেন বলে মুঠোফোনে শ্রমিক নেতাদের আশ্বাস দিলে তারা কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করে।
সিবিএ’র সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন জানান, ‘শ্রমিকদের দাবি নিয়ে মালিকের সাথে কথা বলতে জেলা প্রশাসক ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় চেয়েছেন। তাই আগামী ২৬ তারিখ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছে। সমাধান না হলে পুণরায় কর্মসূচি দেওয়া হবে।’

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক এনামুল হক মুঠোফোন বলেন, ‘শ্রমিকদের সাথে আলোচনা করে তাদের দাবি পূরণে মালিকপক্ষকে একটি বৈঠকে ডাকবো। মিলটি চালু করা সম্ভব না হলেও যেন অন্তত তাদের পাওনা পরিশোধ করা হয় সে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বলা হবে।’

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিক্ষোভ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ