Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

নারী প্রতারকের খপ্পরে গণধর্ষণের শিকার বিধবা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

থানায় মামলা করতে গিয়ে নারী প্রতারকের খপ্পরে পড়ে সোনাগাজীতে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে এক বিধবা। এ ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষণিক মামলা না নিয়ে সামাজিক ভাবে সমাধান করতে বলে। ঘটনার দুদিন পর ওসি মামলা নিয়ে দুজনকে আটক করেন। কুড়িগ্রামে ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক করা হয়েছে প্রতিবেশী বৃদ্ধকে। অন্যদিকে প্রাইভেট শিক্ষকের বিরুদ্ধে একাধিক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোনাগাজী ( ফেনী) উপজেলা সংবাদদাতা : থানায় মামলা করতে গিয়ে রহিমা সুন্দরী (৪০) নামে এক নারী প্রতারকের খপ্পরে পড়ে গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূ তার পালক পিতার আশ্রিত ছিলো।

পুলিশ জানায়, আমিরাবাদ ইউনিয়নের উত্তর সোনাপুর গ্রামের সাহাব উদ্দিন ওই নারী কে দত্তক নিয়ে লালন পালন করেন। সে ১৩ বছর ও ৭ বছর বয়সী দুই সন্তান নিয়ে পালক পিতার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। নি:সন্তান পালক পিতা তার নামে বসত বাড়িতে জমি দান করার প্রস্তাব করেন। এ খবরে আত্মীয়রা তাকে পিটিয়ে আহত করে। ওই ঘটনায় গৃহবধূ বাদি হয়ে সোনাগাজী মডেল থানায় চাচা, চাচি ও চাচাতো ভাই এর বিরুদ্ধে সোনাগাজী মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ দিয়ে নিরাস হয়ে বের হওয়ার সময় থানার মাঠে দেখা মিলে রহিমা সুন্দরী নামের প্রতারক নারীর। সে নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে ওই নারীকে তার বাসায় নিয়ে যান। ঘটনার পঞ্চম দিনে গত রোববার দিবাগত রাতে শম্ভু শিকদার, আফলাছসহ ৫ জন যুবককে পুলিশের লোক বলে তার উপর লেলিয়ে দেয়। ওই অসহায় নারী কে তারা পালাক্রমে ধর্ষণ করে। সকালে জ্ঞান ফিরলে রহিমা সুন্দরী নামের ওই প্রতারক নারীর কাছে গৃহবধূ তার উপর এই নির্যাতনের কারণে জানতে চাইলে দুই যুবক কে এনে দ্বিতীয়বার ধর্ষণ করায়।

ঘটনাটি জানাতে ওই নারী থানায় গেলে পুলিশ কর্মকর্তা তাকে ঘটনাটি সামাজিক ভাবে সমাধান করতে বলে তাড়িয়ে দেন। ঘটনার দুইদিন সোনাগাজী মডেল থানার ওসির বিষয়টি অবগত হয়ে তার ভাষ্য মতে তাৎক্ষণিক মামলাটি রুজু করেন। রাতেই অভিযান চালিয়ে সঞ্জু শিকদার ও রহিম সুন্দরী কে আটক করে।

কুড়িগ্রাম জেলা সংবাদদাতা : রাজারহাটে পঞ্চম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক বৃদ্ধকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, উপজেলার নাজিম খাঁন ইউনিয়নের রতিরাম পাঠানপাড়া গ্রামের বৃদ্ধ আব্দুল কাদের (৬৫) রতিরাম পাঠানপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ফুসলিয়ে বাড়িতে নিজের ঘরে ডেকে নেয়। এরপর শিশুটির মুখ চেপে ধরে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে কাদের। পরে এলাকাবাসী টের পেয়ে আব্দুল কাদেরকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃষ্ণ কুমার সরকার জানান, আটককৃত আব্দুল কাদেরর বিরুদ্ধে প্রাথমিক তদন্তে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে।

নওগাঁ জেলা সংবাদদাতা : নওগাঁয় এক প্রাইভেট শিক্ষকের বিরুদ্ধে একাধিক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে ওই বিদ্যালয় সংলগ্ন একটি ঘরে মো. মোশারফ হোসেন সজিব নামে একজন ব্যাক্তি অভিযোগকারী দুজন ছাত্রীসহ ২০/২২ জন ছাত্র ছাত্রীকে ইংরেজীর শিক্ষক হিসেবে প্রাইভেট পড়িয়ে আসছেন। এ সময়ের মধ্যে অভিযোগকারী ছাত্রীসহ আরও কয়েকজন ছাত্রীকে বিভিন্ন সময় একাকি পাশের ঘরে ডেকে নিয়ে কুপ্রস্তাব দেয়াসহ তাদের শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে আসছিল বলে ও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

অপরদিকে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিস সহকারী মো. মোশারফ হোসেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গণধর্ষণ

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ