Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

দায়িত্বজ্ঞানহীন শাকিব খান মন্ত্রীকেও বসিয়ে রাখলেন

সবুজ পারভেজ | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫:১০ পিএম | আপডেট : ৫:১৯ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

শুটিং ফ্লোরে কল টাইমে না আসা। কল টাইমের চেয়ে চার পাঁচ ঘন্টা দেরিতে আসা। নির্মাণাধীন চলচ্চিত্রের পরিচালক প্রযোজককে সময় দিয়েও সিনেমার শুটিংয়ে হাজির না হওয়া। এবং সময়ের মূল্য না দেওয়ার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে ঢালিউডের শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের বিরুদ্ধে। ঢালিউড সংশ্লিষ্ট অসংখ্য মানুষের এমন অভিযোগের প্রমাণ আজ আবারও দিলেন শাকিব খান! এই প্রমাণের স্বাক্ষী হলেন সয়ং মন্ত্রীও।

আজ বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সালমান শাহর জন্মদিন উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী জন্মোৎসবের উদ্বোধন হয়েছে। রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী প্রেক্ষাগৃহ মধুমিতায় এই অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। গান বাংলা টিভির পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেছে ঢুলি কমিউনিকেশনস।

ঢুলি কমিউনিকেশনস থেকে জানা হয় সকাল ১০টা ৩০ মিনিটের মধ্যে আমন্ত্রীত অতিথিরা মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে উপস্থিত থাকবেন। এবং ১১ টায় কেক কেটে মহানায়ক সালমান শাহর জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হবে। সে অনুসারে সকাল ১১টার মধ্যেই অনুষ্ঠানটিতে প্রধান অতিথি সহ অন্যান্য বিশেষ অতিথিরা উপস্থিত হন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি ফালগুনী হামিদ। আরও উপস্থিত ছিলেন গান বাংলা টিভি ও টিএম ফিল্মসের কর্ণধার ফারজানা মুন্নী, চলচ্চিত্র নির্মাতা সোহানুর রাহমান সোহান, ছটকু আহমেদ, চিত্রনায়িকা শবনম বুবলী, নবাগত নায়িকা জাহারা মিতু, আইরিন সুলতানাসহ অনেকে।

অতিথিদের সাড়ে দশটায় উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও বাস্তবতা বলছে ভিন্ন কথা। ঠিক সময়ের মধ্যে মধুমিতায় অন্য অতিথিরা উপস্থিত হলেও অনুষ্ঠানটির উদ্বোধক শাকিব খান এসেছেন প্রায় আড়াই ঘন্টা দেরি করে। শাকিবের জন্য আমন্ত্রীত অতিথিদের দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় রেখে আয়োজকরা শেষে বাধ্য হন অনুষ্ঠান শুরু করতে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অনেকেই শাকিবের এমন কর্মকান্ডে রীতিমতো বিরক্ত। অবশ্য অনুষ্ঠান শেষে শাকিবের দেরি করে আসার কারণও জানিয়েছেন আয়োজক প্রতিষ্ঠান। তাদের দাবি রাস্তায় অনেক জানজট থাকার কারণে নায়কের আসতে দেরি হয়েছে। যদিও উপস্থিত সাংবাদিকসহ আমন্ত্রীত অতিথিদের মধ্যে কেউ কেউ বিষয়টিকে নিছক একটি অজুহাত বলেই দাবি করেছেন। অনেকেই আবার প্রশ্নের চলে বলেছেন মাননীয় মন্ত্রী এবং অনুষ্ঠানে উপস্থিত অন্য অতিথিরা তাহলে ঠিক টাইমে আকাশ পথে অনুষ্ঠানে পৌচ্ছেছে! আর শাকিব খান একাই রাস্তা দিয়ে অনুষ্ঠানটিতে এসেছেন!

এদিকে শাকিব খান অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার অনেক আগেই প্রধান অতিথি মাননীয় মন্ত্রী তার বক্তব্য সম্পন্ন করে বিদায় নিয়েছেন। উপস্থিত গুণীজনরা বলেছেন শাকিব খানের দায়িত্বজ্ঞানহীনতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর সেটি আজ মন্ত্রীও উপলব্ধি করলেন।

আইসিটি মন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আমি সালমান শাহ’র ভক্ত। আমার ছেলের বয়স মাত্র ১৫ বছর। সেও সালমানের এক অন্ধ ভক্ত। পৃথিবী থেকে বিদায় নেওয়ার ২৩ বছর পরও এই যে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে ছড়িয়ে যাওয়া এটাই সালমানের প্রাপ্তি। এমনটা খুব বেশি তারকার ভাগ্যে জুটে না। সালমান শাহ’র ক্রেজ এখনো এতটুকু কমে যায়নি। আজকের অনুষ্ঠানে অনেকে মাথায় রুমাল বেঁধে এসেছেন। অনেককে দেখছি টি শার্টের সামনে সানগ্লাস ঝুলিয়ে রেখেছেন। এই স্টাইলগুলো দিয়ে সালমান বারবার ফিরে আসেন আমাদের মাঝে। এগুলো উনার সিগনেচার আমাদের বাংলাদেশি সিনেমায়। দোয়া করি তিনি যেখানেই থাকুন আল্লাহ যেন কোটি মানুষের প্রিয় মানুষটিকে ভালো রাখেন।’

অনুষ্ঠানের শেষে অংশে শাকিব খান সালমান শাহকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। এরপর কেক কেটে দ্রুতই অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন। শাকিব খান বলেন, ‘সালমান শাহর মতো শিল্পী বার বার আসেন না। সালমান শাহ ছিলেন কোটি কোটি দর্শকের হৃদয়ের স্পন্দন। আমি যখন স্কুলে পড়ি তথন থেকেই সালমান শাহর ছবি দেখি। আজ আমার অনেক ভালো লাগছে। কারণ আমি এই মহা নায়কের জন্মদিনের কেক কাটছি। তার জন্মোৎসবের উদ্বোধন করছি। তবে এই ভালো লাগা আরও বহু অংশে বেড়ে যেত যদি তিনি আমার পাশে থাকতেন। তবে সেটাতো আর সম্ভব নয়। জন্ম, মৃত্যু সবাই বিধাতার লেখা। তিনি আজ নেই। কিন্তু তার কাজ আমাদের মাঝে রয়ে গিয়েছে। আমার বিশ্বাস তিনি তার কাজের মাধ্যমে হাজার বছর বেঁচে থাকবেন। দোয়া করি তিনি যেখানেই থাকুন না কেনো আল্লাহ যেন তাকে ভালো রাখেন।’

উল্লেখ্য, মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে সপ্তাহজুড়ে প্রদর্শিত হবে সালমান শাহ অভিনীত দর্শক নন্দিত ৬টি চলচ্চিত্র। আগামীকাল ২০ সেপ্টেম্বর প্রদর্শিত হবে সালমান শাহ ও মৌসুমি অভিনীত সিনেমা ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’। ২১ সেপ্টেম্বর দেখানো হবে ‘তোমাকে চাই’, ২২ সেপ্টেম্বর ‘মায়ের অধিকার’, ২৩ সেপ্টেম্বর ‘চাওয়া থেকে পাওয়া’, ২৪ সেপ্টেম্বর ‘তুমি আমার’, ২৫ সেপ্টেম্বর ‘অন্তরে অন্তরে’। এছাড়া ২৬ সেপ্টেম্বর ‘সত্যের মৃত্যু নেই’ সিনেমাটি প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে উৎসবের সমাপ্তি ঘটবে।



 

Show all comments
  • কামরুল ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮:৪৩ পিএম says : 0
    সবই ইতিহাসের পাতার গল্প.
    Total Reply(0) Reply
  • Kmmahfuz1989@gmail.com ১৩ অক্টোবর, ২০১৯, ৯:১১ পিএম says : 0
    Sakib nijeke khubee boro mne kore but se jahannamer aagun r fulka
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঢালিউড

২ নভেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ