Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

কলাপাড়ায় গৃহবধূ গনধর্ষন মামলার আসামী শ্রমিকলীগ নেতাসহ ৪ আসামী গ্রেপ্তার

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৭:২৬ পিএম

কলাপাড়ার আলোচিত গৃহবধূ গনধর্ষন মামলার বাদীকে আসামীদের কতৃক পিটিয়ে হাত-পা ভেংগে দেয়ার ঘটনায় মামলার প্রধান আসামীসহ চার আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৮ রবিশালের বিশেষ অভিযানিক দল। বৃহস্পতিবার সকাল সাতটায় পটুয়াখালী সদরের একটি আবাসিক হোটেল থেকে মাদক এবং অস্ত্রসহ এদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আটককৃতরা হল মহিপুর থানা শ্রমিকলীগের সাধারন সম্পাদক ও গন ধর্ষন মামলার প্রধান আসামী শাকিল মৃধা (২৭), রবিউল ভুইয়া (২৫), রবিউল হাওলাদার (৩৫), সাইফুল ইসলাম, (২৫)। আটকৃত সকলের বাড়ী জেলার কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর থানার চর চাপলী এলাকায়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে র‌্যাব-৮ এর ডিএডি দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে মহিপুর থানায় অ¯্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছে।
র‌্যাব-৮ পটুয়াখালী জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৮ বরিশালের বিশেষ অভিযানিক দল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ছয়টায় পটুয়াখালী সদরের নতুন বাজারস্থ পানামা আবাসিক হোটেল অভিযান চালায়। এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামীরা পালিয়ে যাওয়ার চেস্টাকালে কলাপাড়ার আলোচিত গৃহবধূ গনধর্ষন মামলার প্রধান আসামী শাকিল মৃধাসহ চার আসামীকে আটক করে। এসময় তাদের কাছ একটি বিদেশী পিস্তল, একটি ওয়ার শুটার গান, ১২ রাউন্ড গুলি ও ৩৯০ পিচ ইয়াবা উদ্বার করা হয়। র‌্যাব জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকৃত কলাপাড়ার আলোচিত গৃহবধূ গনধর্ষন মামলার বাদী সিদ্দিককে মারধোর করার সত্যতা স্বীকার করেছে।
উল্লেখ্য, আটকৃতরা চলতি বছরের ১৫ এপ্রিল রাতে সিদ্দিক হাওলাদারকে অ¯্ররে মুখে বেধে রেখে তার স্ত্রীকে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষন করে। পরবর্তীতে তাদের নামে মামলা হলে তারা জেল হাজতে যায়। জামিনে মুক্ত হয়ে ১৭ সেপ্টম্বর রাত নয়টায় ধুলাসর ইউনিয়নের চাপলী বাজারে শাকিলসহ আরো ৮/১০জন গৃহবধূ গনধর্ষন মামলার বাদী সিদ্দিককে মারধোর করে হাত-পা ভেংগে ফেলে এবং বর্তমানে সে বরিশাল মেডিকেলে মুমূর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার


আরও
আরও পড়ুন