Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

আলো ছড়িয়েই অন্ধকারে বিপ্লব

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

দলে এসেছিলেন চমক হয়ে। বল হাতে সেই চমক দেখালেন অভিষেকেই। মাঠের পারফরম্যান্স দিয়ে তুলেছেন আলোড়ন। লেগ স্পিনারের জন্য বাংলাদেশের যে হাহাকার, তা থামানোর ইঙ্গিতও দিয়েছিলেন। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম ম্যাচে জ্বলজ্বলে পারফরম্যান্সের পর দলকে শুনতে হচ্ছে দুঃসংবাদ। ম্যাচটি শুধু আনন্দ নয়, যন্ত্রণাও দিয়েছে আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই উইকেট পাওয়ার ম্যাচে বাঁ হাতে চোটও পেয়েছেন বাংলাদেশের তরুণ এই ডান হাতি স্পিনার। লেগেছে তিনটি সেলাইও।

গতপরশু চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বোলিং কিংবা ফিল্ডিংয়ের সময়ও আমিনুলের এই চোট বোঝা যায়নি বাইরে থেকে। বাংলাদেশ ফাইনাল নিশ্চিত করার পর ঐ রাতেই আমিনুলকে নেওয়া হয় স্থানীয় একটি ক্লিনিকে। বিষয়টি নিশ্চিত করে বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম বলেছেন, ‘মাসাকাদজার একটি শটে ফিল্ডিং করতে গিয়ে বাঁ হাতের তালুতে আঘাত পেয়েছেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। ওই আঘাতে তিনটি সেলাই দিতে হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে খুব একটা গুরুতর মনে হচ্ছে না চোট। ফিজিও পরবর্তী পর্যবেক্ষণ করলে জানা যাবে সম্পূর্ণ বিষয়টি।’

দলের সঙ্গে চট্টগামে না থাকলেও বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী খোঁজখবর রাখছেন আমিনুলের। জানালেন, ‘ম্যাচের পরই ওর হাতে সেলাই দেওয়ার প্রয়োজন ছিল। আমরা এখান থেকে ফোনে ব্যবস্থা করেছি, চট্টগামের একটি হাসপাতালে নিয়ে রাত ১২টার দিকে সেলাই দেওয়া হয়েছে ওর হাতে। তিনটি সেলাই নিয়ে আমি অনেককেই খেলতে দেখেছি। ওর ইনজুরি স্পিনিং হাতেও নয়। তবে পরের ম্যাচ যেহেতু ২ দিন পরই, কিছু বলাও কঠিন। সবকিছু নির্ভর করছে আসলে ওখানে ফিজিও ও টিম ম্যানেজমেন্টের ওপর। তারাই ম্যাচের আগে অবস্থা দেখে বুঝতে পারবেন যে পরের ম্যাচে ওকে খেলানো যাবে কিনা।’

অভিষেকে নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৪ ওভারে ১৮ রান েিদয় ২ উইকেট নেওয়ার পর বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে আমিনুল। গতকাল টিম হোটেলে কথাও বলেছেন এই ১৯ বছর বয়সী। এসেছিলেন হাতে ব্যান্ডেজ নিয়ে। কিন্তু মুখভর্তি ছিল হাসি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের শুরুতেই বেশ সাফল্য পাওয়া এ ক্রিকেটার ভাসছেন আলাদা রোমাঞ্চে। তাই তিনটি সেলাইয়ের পরও বলছেন সামান্য ব্যথা, ‘হ্যাঁ, বাঁ হাতে একটু ব্যথা পেয়েছি। মাসাকাদজা একটা বল সোজা জোরে মেরেছিল, ওইটা আটকাতে গিয়েছিলাম, একটু লেগেছে। ফিল্ডিংয়ের সময়।’

তবে কি আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলছেন না আমিনুল? এমন শঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছেন এ নবীন। এ ইনজুরিকে পাত্তাই দিচ্ছেন না তিনি, ‘এখন আল্লাহর রহমতে ভালোই লাগছে। ব্যথা কমেছে। ফিজিওর সঙ্গে কথা বলার পর তিনি যা বলবেন, তাই করব। খেলব কি না এটা নির্ভর করছে টিম ম্যানেজমেন্টের উপর। তারা যেভাবে বলবে, সেভাবেই করব। এখন হাত ভালোই মনে হচ্ছে।’

এই ম্যাচ জিতে ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে বাংলাদেশের, ফাইনালে উঠে গেছে আফগানিস্তানও। আগামীকাল বাংলাদেশ-আফগানিস্তান ম্যাচ তাই পরিণত হয়েছে ফাইনালের মহড়ায়। তবে আফগানদের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের এই শেষ ম্যাচে খেলার বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে টিম ম্যানেজমেন্টের ওপর ছেড়ে দিয়েছেন আমিনুল। তাতে এটুকু পরিষ্কার, ম্যানেজমেন্ট চাইলেই মাঠে নেমে যাবেন তিনি। তবে প্রধান নির্বাচক যা জানালেন তাতে করে আফগান ম্যাচে তার না খেলার সম্ভাবনাই বেশি। গতকাল সন্ধ্যায় মুঠোফোনে মিনহাজুল আবেদিন নান্নু দৈনিক ইনকিলাবকে জানান, ‘ওর (বিপ্লব) হাতের যা অবস্থা, তাতে আমরা কোন রকম ঝুঁকি নিতে চাইনা। বয়স অল্প, ক্যারিয়ারের পুরোটা সময়ই সামনে পড়ে আছে। এই মুহূর্তে তাকে দলে নেয়ার পক্ষে নই আমি।’ তবে আমিনুলের পরিবর্তে কাকে খেলানো হতে যারে সে ব্যপারে এখনই পরিস্কার কোন ধারণা দিতে নারাজ প্রধান নির্বাচক, ‘এখনও হাতে সময় আছে। কাল (আজ) অনুশীলন দেখব। সেখান থেকে দলের প্রয়োজন অনুযায়ী কাইকে বেছে নিব।’ সিরিজের দলে আমূল পরিবর্তনের পর এই মুহূর্তে নির্বাচকদের হাতে অপশন হিসেবে আছেন বেশ ক’জন তরুন। তাদের মধ্যে আফগানিস্তানের বিপক্ষে অভিষেক হয়ে যেতে পারে নাইম শেখের। আদতে ব্যাটসম্যান হলেও অনিয়মিত বোলার হিসেবেও কাজ চালিয়ে নিতে পারেন ২০ বছর বয়সী দীর্ঘদেহী ওপেনার।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিপ্লব

৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন