Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ইসলাম ধর্ম নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তি করায় কাপাসিয়ায় ১জন গ্রেফতার

কাপাসিয়া (গাজীপুর) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫:৫১ পিএম

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক স্ট্যাটাসে মুসলমান ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করায় সুমন দাস (৩০) নামে এক ঋষি যুবককে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। ২১ সেপ্টেম্বর শনিবার সকালে কাপাসিয়া বাজারে উত্তেজিত জনতা তাকে গণপিটুনি দেয়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ আহত অবস্থায় তাকে আটক করেন। সে উপজেলার তরগাঁও ইউনিয়নের তরগাঁও গ্রামের ঋষি পাড়ার রুহি দাসের পুত্র।

থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সুমন দাস তার ‘সুমন কাপাসিয়া’ ফেসবুক ভেরিফাইড আইডিতে মুসলমান ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করে স্ট্যাটাস দেয়ায় গত কয়েকদিন যাবত ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মাঝে প্রচণ্ড ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। শনিবার সকালে সুমন দাস কাপাসিয়া বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘সুমন টেলিকমে’ আসার পর শত শত জনতা তাকে ঘেরাও করে গণপিটুনি দেয়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।



 

Show all comments
  • নাম বলতে অনিচ্ছুক ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৪:১৬ পিএম says : 0
    হিন্দুধর্ম নিয়া যখন মুসলিমরা কটুক্তি করে,আজেবাজে বলে তখন আইন কোথায় থাকে,তখন প্রসাশন থাকে কোথায়???দেশে যে এত মুর্তি ভাঙ্গা হচ্ছে তাদের কোন বিচার নাই,বিচার আছে শুধু হিন্দুদের
    Total Reply(0) Reply
  • নাম বললে ঘরবাড়ি থাকবে না ৩ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
    বা! বা! এটা খবরের শিরোনাম।যখন হিন্দু ধর্ম নিয়া আজে বাজে কথা বলা হয় তখন কই থাকেন? মূর্তি যে নষ্ট করতাছে তখন কি করেন খবরে তো আসে না
    Total Reply(0) Reply
  • এনামুল হক ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০২ পিএম says : 0
    ভাই মুর্তি ভাংগা কোন মুসলমানের কাজ নয়, ধর্ম মানুষের বিশাস কাজেই হিন্দু হোক বা মুসলমান হোক তাকে কঠোর সাজা দেওয়া দরকার। আজ আমরা ধিরে ধিরে ধবংশের দিকে যাচ্ছি।
    Total Reply(0) Reply
  • শাওন ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৩১ পিএম says : 0
    ভাই দেশ এখন হিন্দুত্ববাদের হয়ে গেছে,কিছুদিন পর দেখবো আমাদের এই দেশ হিন্দুদের আশ্রয়স্থল হয়ে গেছে।তাদের যে নিরাপত্তা,মুসলমানদের জন্য তার বিন্দুমাত্র নেই।মুসলিমরা এখন নিরাপত্তা হীন বসবাস করছে।ভারতে কোনো মুসলিম কিছু বল্লে বা গরু খেলে তার প্রতিকার তাৎহ্মনিক হয়,সে দেশের প্রশাসন নিরব থাকে।কিন্তু আমাদের দেশ দাদাদেরকে খুশি করার জন্য সর্বাত্মক নিরাপত্তা দিচ্ছেই।হিন্দুরা না হলে এতো সাহস পায় কই যে যে একটা মুসলিম প্রদান দেশে তাদের ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত হানতে,ভোলার ঘটনাটি নিয়ে পুলিশি হামলার নিন্দা জানাই।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গাজীপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ