Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

মার্কিন বাহিনীকে উপসাগরীয় এলাকা ছাড়ার আহবান রুহানীর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৪:১৭ পিএম

সউদী আরবে অতিরিক্ত সৈন্য মোতায়েনে যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা দেয়ার পর উপসাগরীয় অঞ্চল ছাড়তে মার্কিন বাহিনীকে সতর্ক করে দিলেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। তিনি বলেছেন, বিদেশি সৈন্যরা উপসাগরীয় অঞ্চলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা হুমকির মুখে ফেলেছে।
হাসান রুহানি বলেন, বিদেশি সৈন্যরা সবসময় এই অঞ্চলের জন্য বেদনাদায়ক ও রহস্যময় পরিস্থিতি তৈরি করেছে এবং তাদের অস্ত্রের প্রতিযোগিতায় ব্যবহার হওয়া উচিত নয়।
সম্প্রতি সউদীর আরবের দুটি তেল স্থাপনায় এক ডজনের বেশি ড্রোন হামলায় ভয়াবহ অগ্নিকাÐের ঘটনা ঘটে। সউদী আরব এবং যুক্তরাষ্ট্র এই হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করেছে। তবে তেহরান সউদীতে হামলার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।
নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের আগামী অধিবেশনে ইরান উপসাগরীয় অঞ্চলে শান্তি স্থাপনের জন্য নতুন একটি প্রস্তাব তুলে ধরবে বলে জানিয়েছেন রুহানি। ইরানের সঙ্গে ছয় বিশ্বশক্তির স্বাক্ষরিত পারমাণবিক চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে যাওয়ার পর চলতি বছরে তেহরান-ওয়াশিংটন চরম উত্তেজনা শুরু হয়। ইরানের বিরুদ্ধে দফায় দফায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র।
গত ১৪ সেপ্টেম্বর সউদী আরবের দুটি তেলক্ষেত্রে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর ইরানের সঙ্গে উত্তেজনা চরমে পৌঁছায়। যদিও এই হামলার দায় স্বীকার করেছে ইয়েমেনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুথি। কিন্তু সউদী আরব ও যুক্তরাষ্ট্র এই হামলার জন্য উপসাগরীয় অঞ্চলে রিয়াদের অন্যতম চিরবৈরী প্রতিদ্বন্দ্বী ইরানকে দায়ী করছে।
টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে রুহানি বলেছেন, আমাদের এই অঞ্চল এবং মানুষের জন্য সমস্যা এবং নিরাপত্তাহীনতার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিদেশি বাহিনী। এ ধরনের সৈন্য মোতায়েনের কারণে অতীতে বিপর্যয় নেমে এসেছিল বলে স্মরণ করে দিয়ে ইরানি এই প্রেসিডেন্ট মার্কিন বাহিনীকে উপসাগরীয় অঞ্চল থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।



 

Show all comments
  • জুনায়েদ আহমেদ খান ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৭:১৯ পিএম says : 0
    অতীত ইতিহাসের স্মরণ করে তাদের এখানে জায়গা না দেয়া উচিত
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরান-যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন