Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

ক্যাসিনোর ব্যবসার সঙ্গে জড়িতরা অনুপ্রবেশকারী : এইচ টি ইমাম

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮:২১ পিএম

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বলেছেন, ক্যাসিনোর ব্যবসার সঙ্গে জড়িতরা অনুপ্রবেশকারী।
তিনি বলেন, ‘ক্যাসিনোর ব্যবসা অবৈধ। এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত যারা গ্রেফতার হচ্ছে তারা অনুপ্রবেশকারী। অতীতে অন্য দলের সঙ্গে রাজনীতি করেতো। তারা এখন আওয়ালীগ সরকারের ভাবমূর্তী ক্ষুন্ন করতে চায়।’
এইচ টি ইমাম আজ ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের নতুন কার্যালয়ে দলের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির বৈঠক পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
উপ-কমিটির সদস্যসচিব ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বৈঠকে বলেন, ব্যর্থতার দায়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের পদত্যাগ করা উচিত।
এইচ টি ইমামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আইসিটি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার, আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, শেখ তন্ময় এমপি, প্রচার উপ-কমিটির সদস্য আখতার হোসেন, কাশেম হুমায়ুন, মাহমুদা সুলতানা হেলেন, এনামুল হক খসরু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের সুশাসনের ফলে অন্যায়কারীরা ছাড় পাচ্ছে না। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশে মদ-জুয়ার ব্যবসা বন্ধ করে দিয়ে ছিলেন। বিএনপি প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে মদ ও জুয়ার ব্যবসা বৈধ করে দেন।
তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ১৯৯১ সালে ক্ষমতায় এসে ক্যাসিনোর ব্যবসা চালু করেন। বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাসসহ বিএনপি নেতাদের অনেকে এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবৈধ এ ব্যবসা বন্ধে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, অপরাধী কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।
বিএনপি শাসনামলে বেগম খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমান হাওয়া ভবন করে দুর্নীতির রাজত্ব গড়ে তুলেছিলেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার আরেক ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর পাচারকৃত টাকা দেশে ফেরত আনা হয়েছে।
হাছান মাহমুদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাত করার দায়ে কারাগারে রয়েছেন। তারেক রহমান লন্ডনে যে আয়কর জমা দেয় তার একটি অংশ ক্যাসিনোর ব্যবসা থেকে আসে বলে সংবাদ মাধ্যম থেকে জেনেছেন। সূত্র: বাসস



 

Show all comments
  • Mustafa Zahid ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮:৫৮ পিএম says : 0
    আপনিও অন্য অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে পাইপ লাগিয়ে গ্যাসের খনি খালি করার চেষ্টা করেছিলেন.
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Shah Alam Khan ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১০:৩১ পিএম says : 0
    আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বলেছেন, ক্যাসিনোর ব্যবসার সঙ্গে জড়িতরা অনুপ্রবেশকারী। প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টার কথা কতটা গ্রহণ যোগ্য এটাই এখন বিচারয্য বিষয় নয় কি? দলে অনুপ্রবেশকারী এর ব্যাখাটা কি?? একজন লোক ১২ বছর ধরে দলের সাথে জড়িত এবং বিভিন্ন সময়ে দলের বিভিন্ন পদের অধিকারী থাকার পর ঐ ব্যাক্তি কিভাবে অনুপ্রবেশকারীর পর্যায়ে পরে এটাই বুঝা যাচ্ছে না। একজন লোক তাঁর মতাদর্শন পাল্টাতে পারে, তাই সে একদল থেকে অন্য দলে যেতেই পারে এতে কোন দোষ নেই। পৃথিবীর সকল দেশেই এরকম দেখা যায়, বাংলাদেশেও প্রকাশ্য জনসভা করে একদল থেকে দলে দলে আওয়ামী লীগে বা অন্য দলে যোগ দেয়ার নজীর রয়েছে। কাজেই যোগ দিলেই তাঁকে দলের ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে এসব অনুপ্রবেশকারীদেরকে কদর করে পদ দেয়ার সময় আওয়ামী লীগের উর্ধতন নেতাদের খেয়াল থাকেনা। যখন এই অনুপ্রবেশকারীরা দলে পদ পেয়ে ক্ষমতার অধিকারী হয়ে তাদের আসল রূপ প্রকাশ করে তখন দল বেকায়দায় পরে। আর সেই সময় এনারা হয়ে যান অনুপ্রবেশকারী এবং যারা এদেরকে প্রশ্রয় দিয়ে দলের পদে বসিয়েছেন তারা অনুপ্রবেশকারী বলে নিজের অপরাধ চাপা দিতে চায়। আল্লাহ্‌ আমাদের দেশের রাজনীতিবিদদেরকে সত্য কথা বলা ও সততার সাথে চলার ক্ষমতা দান করুন। আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • Nadim ahmed ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম says : 0
    H T I am is the greatest Ass-hole and liar. He is a well known Rajakar as well.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এইচ টি ইমাম


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ