Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

পোকায় খাচ্ছে ধান চাল ও গম

সরকারি খাদ্য গুদাম

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

 খাদ্য অধিদপ্তরে নি¤œমানের গ্যাস প্রæফ শিট (জিপি শিট) ক্রয় করার কারণে সারাদেশের খাদ্য গুদামে থাকার লাখ লাখ মে.টন সরকারি গম, চাল ও ধান পোকা খাচ্ছে। ঠিক তখনেই সরকারি কাজ করার অভিজ্ঞতা নাই এমন প্রতিষ্ঠান আল-মদিনা ট্রের্ডাসকে জিপি শিট আমদানি করতে কাজ দেয়ার চেষ্টা করছে খাদ্য অধিদপ্তর।
কারণ ছাড়াই নি¤œ দরদাতা সাতটি প্রতিষ্ঠানের দরপত্র টেন্ডার বাতিল করা হয়েছে। কি কারণে দরপত্র বাতিল করা হয়ে তা জানতে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ও অধিদপ্তর মহাপরিচালকে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে উষা কনস্ট্রাকশন ও এ বি ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি। এদিকে ৭টি নি¤œতম দরদাতাদের দরপত্র কেন বাতিল করা হয়েছে তা জনাতে চেয়েছে মন্ত্রণালয়।
এ বিষয়ে খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম ইনকিলাবকে বলেন, গ্যাস প্রæফ শীট (জিপি শীট) টেন্ডারে অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি। এখনো কাউকে কার্যাদেশ দেয়া হয়নি। যে কর্মকর্তা এ দুর্নীতির সঙ্গে জাড়িত তার বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং নতুন করে টেন্ডার আহবান করার চিন্তা রয়েছে।
খাদ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, পোকা গম, ধান ও চালের প্রধান শত্রæ। সারাদেশে খাদ্য গুদাম ও সাইলোগুলোতে মজুদ থাকা গম, চাল এবং ধানে ১৩ ভাগ পোকা আক্রমণ করে এবং ১২ ভাগ ক্ষতি করে। এ পোকার আক্রমণ থেকে রক্ষা করার জন্য প্রতিবছর গ্যাস প্রæফ শিট (জিপি শিট) ক্রয় করে সরকার। নি¤œ মানের গ্যাস প্রæফ শিট (জিপি শিট) হওয়ার কারণে কীট প্রতিরোধ করা যাচ্ছে না। গত কয়েক বছর থেকে সরকারি খাদ্য গুদামে মজুদকৃত গম খাওয়ার অনুপযোগী হয়ে পড়ে বলে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানিয়েছে।
এদিকে খাদ্য অধিদপ্তরের থেকে চলতি বছরের এপ্রিল মাসে ১৬টি শর্ত দিয়ে খাদ্য অধিদপ্তরে উন্নত মানের জিপিসিট ক্রয় করার জন্য একটি টেন্ডার আহŸান করে। সেই টেন্ডারে আটটি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে। সে প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে, সেনা কল্যাণ সংস্থা, দ্যা আরসেনাল ট্রেডিং, মেসার্স কোয়ারি ইন্টারন্যাশনাল, নিপুন ইন্টারপ্রাইজ, এ বি ইন্টারন্যাশনাল, আল-মদিনা ট্রেডার্স, বেলাল এন্ড ব্রাদার্স, উষা কনস্টাশন দরপত্রে অংশগ্রহণ করে। এ বি ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, খাদ্য অধিদপ্তরে একটি জালিয়াতি চক্র সিন্ডিকেট তৈরি করার মাধ্যমে একটি নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে কাজ পাইয়ে দিতে সুকৌশলে আমার প্রতিষ্ঠানের অভিজ্ঞতা সনদ ও ব্যাংক ক্রেডিট ফ্যাসিলিটির কাগজপত্র সরিয়ে ফেলে আমাকে নন-রেসপনসিভ করা হয়নি।
অস্ট্রেলিয়ার উন্নত মানের গ্যাস প্রæফ শিট (জিপি শিট) মাল বাতিল করে চায়না থেকে নি¤œমানের গ্যাস প্রæফ শিট (জিপি শিট) অতিরিক্ত টাকা দিয়ে আনার প্রস্তাব করা হয়েছে। বলা হয়েছে যেখানে ১৫ কোটি টাকার দরপত্রে ব্যাংক ফ্রাসিলিটি চাওয়া হয়েছে ১৫ কোটি টাকা। কিন্তু অভিজ্ঞতা সনদ চাওয়া হয়েছে ৫ বছরের এবং ৫ কোটি টাকার ব্যাংক ফ্যাসিলিটি আবার একক কার্যাদেশের মাধ্যমে নয় বলা হয়। কিন্তু তা মানা হচ্ছে না।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধান


আরও
আরও পড়ুন