Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সরকার কি বসে বসে আঙুল চুষে? নজরুল ইসলাম খান

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

তারেক রহমানকে ক্যাসিনোর টাকা পাঠানো হয় আওয়ামী লীগ নেতাদের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, আওয়ামী লীগ নেতারা ক্যাসিনোর টাকা যদি তারেক রহমানকে পাঠাতোই তাহলে সরকার তখন কী করতো? সরকার কি বসে বসে আঙুল চুষে? গতকাল (বুধবার) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি এসব কথা বলেন। 

নজরুল ইসলাম বলেন, বিএনপি-জামায়াত করা লোকদের আওয়ামী লীগের বড় বড় পদে শেখ হাসিনা কেন বসিয়েছেন? খন্দকার মোশতাক যে বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডে জড়িত তা সবাই জানে। সেই মোশতাকের প্রেসিডেন্টের শপথ গ্রহণের ব্যবস্থা করেছিলেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম। অথচ সেই এইচ টি ইমাম এখন বড় আওয়ামী লীগার হয়ে গেছেন। কারা তাকে এই সুযোগ করে দিলো?
আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্যে বিএনপির এই নেতা বলেন, ঢাকা শহরকে যারা ক্যাসিনোর শহর বানিয়েছে তাদেরকে আপনারা পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন। আপনাদের পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া তারা এগুলো করতে পারতো না। সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যারা ক্যাসিনোর সাথে জড়িত তাদের সবাইকে ধরুন। বাংলাদেশ থেকে ক্যাসিনোর ক্যালচার দূর করুন। লুটপাটের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের সবাইকে আইনের আওতায় আনুন। কিন্তু আপনারা এটা করতে পারবেন না। কারণ এই অনাচার যত বাড়তে থাকবে তত আপনাদের নেতারা লাভবান হবেন।
তিনি বলেন, এই সংকট থেকে মুক্তির জন্য সরকার পরিবর্তন দরকার। সরকার পরিবর্তন ছাড়া গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে না। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত না হলে জনগণের অধিকারও প্রতিষ্ঠিত হবে না। সেজন্য সবার আগে গণতন্ত্রের জননী দেশনেত্রী বেগম জিয়ার মুক্তি দরকার।
পর্যটন এলাকাগুলোতে বিদেশিদের জন্য ক্যাসিনো থাকবে পর্যটন সচিবের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান বলেন, বিদেশিদের জন্য চালু হলে সেখানে এ দেশের কেউ যাবে না, এমন নিশ্চয়তা নেই। পর্যটন এলাকায় ক্যাসিনোর অনুমতি দেয়া হবে অনৈতিক।
তিনি বলেন, গত এক সপ্তাহ যাবৎ সারাদেশে যেখানে ক্যাসিনো নিয়ে তোলপাড় হয়ে গেল, সেখানে সরকার কীভাবে ঘোষণা করে যে, তারা বিদেশিদের জন্য বাংলাদেশে ক্যাসিনো করবে। আমার অবাক লাগে, কীভাবে এত বড় ঘটনার পরও সরকারের পক্ষ থেকে বুক ফুলিয়ে এমন একটি কথা বলা হয়।
মঈন খান বলেন, এদেশের জনগণ যদি পাপ করে আর সেটা যদি পাপ বলে গণ্য হয়, তাহলে বিদেশিরা এদেশে এসে যদি পাপ করে তাহলে সেটা পাপ হবে না? আমি দোষ করলে দোষ আর বিদেশিরা দোষ করলে দোষ নয় কেন? আর যদি বিদেশিরা দোষ করলে দোষ হয় তাহলে বিদেশিদের জন্য এদেশে কেন ক্যাসিনো চালু করা হবে?’
মইন খান বলেন, বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। গণতন্ত্রকে আমরা বিশ্বাস করি। এজন্য একটি মিথ্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে বন্দি করে রাখা সত্তে¡ও নিয়মতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন করে যাচ্ছি।
আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, রাজনীতিবিদরা মানুষের জন্য রাজনীতি করে, নিজেদের জন্য রাজনীতি করে না। কিন্তু আওয়ামী লীগ সেটা করতে ব্যর্থ হয়েছে। গুটি কয়েক দিনের ঘটনায় তাদের বিভিন্ন নেতার বাসা থেকে কোটি কোটি টাকা উদ্ধারের ঘটনায় সেটা প্রমাণ হয়ে যায়।
মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, কার্যকরী সভাপতি সালাহ উদ্দিন সরকার, ঢাকা মহানগর উত্তর শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম রাজা ও শ্রমিক নেতা গাজী বুরহান প্রমূখ। #



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ