Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

মুখে মুখে এক আওয়াজ সরকার দুর্নীতিবাজ -গয়েশ্বর চন্দ্র

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮:৩২ পিএম

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ক্ষমতাসীনদের পাতি নেতাদের হাতে হাজার হাজার কোটি টাকা পাওয়া যাচ্ছে। তাহলে সংসদে যারা যায় আসে তাদের কাছে কত টাকা? তারা কত টাকা লুটপাট করেছে, কত টাকা চুরি করেছে তার হিসাব নেয়ার সময় হয়েছে। তিনি বলেন, আজকে শ্রমিক, কৃষক, পেশাজীবী সবার মুখে এক আওয়াজ এই সরকার দুর্নীতিবাজ।

বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ময়মনসিংহ নগরীর কৃষ্ণচূড়া চত্ত্বরে জেলা ও মহানগর আয়োজিত বিভাগীয় মহাসমাবেশে তারা এসব কথা বলেন। এর আগে নানান নাটকীয়তার পর বেলা ১১টায় সমাবেশের অনুমতি দেয় পুলিশ। সমাবেশ শুরুর মাত্র আধা ঘণ্টা আগে প্রস্তুত করা হয় সমাবেশ মঞ্চ। মাত্র তিন ঘণ্টা আগে অনুমতি পেলেও সমাবেশ শুরুর আগে থেকেই লোকে লোকারণ্য হয়ে যায় সমাবেশস্থল। হাজার হাজার নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে কৃষ্ণচূড়া চত্ত্বর পূর্ণ হয়ে তারা ছড়িয়ে পড়েন আশপাশের সড়কগুলোতে।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, যুবলীগের দুইজনকে ধরে যারা বাহবা নিতে চান তাদের কপালে বাহবা জুটবে না। আজকে যারা অভিযান চালাচ্ছেন তারা যদি দেশপ্রেমের অনুভূতি নিয়ে নেমে থাকেন তাদেরকে বলবো, দুইজনকে ধরেছেন, বাকীদের ধরুন, জনগণ ও জনগণের দল বিএনপিও সমর্থন জানাবে। কিন্তু যদি সরকারকে বাঁচানোর জন্য একটা দুইটা নাটক করে মাতামাতি করতে চান, বলতে চান আপনি ভালো হয়ে গেছেন তা জনগণ বিশ্বাস করবে না।

প্রশাসনের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলের সমাবেশের নাকি অনুমতি লাগে। প্রশাসনের লোকদের বলবো ময়মনসিংহের সমাবেশ নিয়ে অনেক মাতবরি করেছেন। ভবিষ্যতে আর মাতবরির সুযোগ পাবেন না। আর কোন অনুমতি নিয়ে বিএনপি আন্দোলন করবে না। তিনি বলেন, যারা মামলা দিচ্ছেন তারাও সময় মতো মামলা খাবেন। খালেদার জামিনের ব্যাপারে যারা বাধা দেন হস্তক্ষেপ করেন ক্ষমতার অপব্যবহার করেন তারাও জেলে যেতে পারেন। জেলখানা খালেদা জিয়া, বিএনপির জন্য স্থায়ী বরাদ্দ না। খালেদা জিয়া বের হয়ে যদি খালি না হয়, মুক্তি না পান তাহলে আপনাদের কোথায় রাখবো। নিজেদের নিরাপদ রাখার জন্য জেলখানা খালি করুন, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেন। সেখানে নিজেরা যান নিজেদের নিরাপদ রাখুন। দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসুক। ভোটের অধিকার ফিরে আসুক।

ময়মনসিংহ জেলা দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ এবং উত্তর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন তালুকদারের পরিচালনায় মহাসমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এড. ফজলুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, এমরান সালেহ প্রিন্স, শ্যামা ওবায়েদ, কেন্দ্রীয় নেতা ওয়ারেছ আলী মামুন, কামরুজ্জামান রতন, শামীমুর রহমান শামীম, আব্দুল বারী ড্যানি, আব্দুল্লাহ ফারুক, শামসুল আলম তোফা, ডা. মাহবুবুর রহমান লিটন, বেগম নূরজাহান ইয়াসমিন, এড. আরিফা জেসমিন, যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভূইয়া জুয়েল, শেরপুর জেলা বিএনপির সভাপতি মাহবুবুল হক রুবেল, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, তাঁতী দলের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, কৃষক দলের সদস্য সচিব হাসান জারিফ তুহিন, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, নূরুল ইসলাম নয়ন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গয়েশ্বর চন্দ্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ