Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১১ সফর ১৪৪২ হিজরী

কাশ্মীরে ১৩ হাজার কিশোর আটক, শিশু নির্যাতন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

কাশ্মীরে হাজার হাজার শিশুকে আটক করা হয়েছে বলে একটি মানবাধিকার সংস্থ’া জানিয়েছে। এর ফলে উপত্যকায় স্থ^াভাবিক জীবন ফিরে আসছে বলে যে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের দাবিতে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে। কাশ্মীর সফর করে অ্যাক্টিভিস্টরা দেখতে পেয়েছেন যে ৫ আগস্ট স্থ^ায়ত্তশাসন মর্যাদা বাতিল করার পর সেখানে প্রায় ১৩ হাজার কিশোরকে আটক করা হয়েছে। ন্যাশনাল ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ওম্যানের নেতৃত্বে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ১৪ বছরের ছেলেদেরকেও ৪৫ দিন পর্যন্ত আটক করা হয়েছে। এতে আরো দাবি করা হয়, শিশুদের মুক্তির জন্য পরিবারগুলোকে ৬০ হাজার রুপি পর্যন্ত দিতে হচ্ছে। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজ্যের স্থ^ায়ত্তাশাসন-সংবলিত সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩৭০ ও ৩৫ক বাতিল করার পর থেকে সেখানে কঠোর কারফিউ জারি করা হয়, যোগাযোগ ব্যবস্থ’া বন্ধ করে দেয়া হয়। তবে সোমবার ভারতীয় সেনাবাহিনীর চিফ অব স্টাফ বলেন যে বিঘœতার সব কাহিনী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দেয়া ভাষ্য। ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপির মুখ্য মুখপাত্র কৃষ্ণ সাগর রাও টেলিগ্রাফকে বলেছেন, রাজ্যের স্থি’তিশীলতা নিশ্চিত করার জন্য কাশ্মীরি রাজনীতিবিদদের আটক রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, কাশ্মীরের রাজনীতিবিদেরা লোকজনকে উস্কে দিয়ে অস্থি’রতা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করছিল। সরকারের হিসাব অনুযায়ী দুই শতাধিক স্থ’ানীয় রাজনীতিবিদকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ও ওমর আবদুল্লাহও রয়েছেন। কত জন শিশুকে আটক রাখা হয়েছে, সে সম্পর্কে কোনো সরকারি তথ্য প্রকাশ করা হয়নি। কেন এসব শিশুকে আটক করা হয়েছে, তার কারণও জানানো হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, সেনাবাহিনীর লোকজনের প্রতি পাথর নিক্ষেপ করার জন্য তা করা হয়েছে। অ্যাক্টিভিস্টরা ১৭ থেকে ২১ সেপ্টেম্বর কাশ্মীর সফর করেন। তারা জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশ, চিকিৎসর ও অধ্যাপকদের সাথে কথা বলেন। তাদের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ছেলেদের গ্রেফতার করার সময় কর্তৃপক্ষ বাড়াবাড়ি রকমের শক্তিপ্রয়োগ করছে। আর আটক রাখার সময় অনেকের ওপর নির্যাতনও চালানো হচ্ছে। গত শনিবার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার হওয়ার পর ১৫ বছরের একটি ছেলে আত্মহত্যা করে। ন্যাশনাল ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ওম্যানের সাধারণ সম্পাদক অ্যানি রাজা বলেন, এটা গণহত্যার ভারতীয় সংস্করণ। তার সংগঠন ৫ আগস্টের পর আটক সব শিশুর মুক্তি দাবি করেছে। টেলিগ্রাফ.কো.ইউকে।

 

 



 

Show all comments
  • Mohammad Moyin Uddin ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
    Innalillahi wa inna ilihi Raziun. Allah Raham karun
    Total Reply(0) Reply
  • SJ Niazi ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৫ এএম says : 0
    mostly people forgot that we are same people of this world,why we are fighting each other,and what for,(but world is one country and mankind its citizen,''Baha'ullah).curgent need moral eaducation.
    Total Reply(0) Reply
  • Shah Abdul Mohit ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৫ এএম says : 0
    একদিন এর বিচার হবে ইনশাআল্লাহ্
    Total Reply(0) Reply
  • আপন আহাম্মদ আপন আহাম্মদ ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৫ এএম says : 0
    এইটাকি মাণবধিকার লংঘন হয় না,,
    Total Reply(0) Reply
  • Rafiq Islam ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৬ এএম says : 0
    Ora Soldiers animal
    Total Reply(0) Reply
  • Adib Mallick ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৭ এএম says : 0
    ভারতের বর্তমান সরকারের পক্ষে সব কিছু সম্ভব । কাশ্মীরের ব্যাপারে তারা যে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে , যে কোন মূল্যে তারা তা বাস্তবায়ন করবে । মানবাধিকার এখানে হারিয়ে যাবে । সারা বিশ্ব নিসছুপ । বিশ্বের শক্তি শালি / ধনী মুসলিম দেশ গুলো কার্যকর কিছুই করছে না । বাস্তবতা হোল বিশ্ব রাজনীতি আদর্শের জায়গা থেকে সরে গেছে , প্রবেশ করেছে বাস্তবতার জগতে , যেখানে শুধুই নিজেদের স্বার্থ কাজ করে । কাশ্মীরের জনগন বলতে গেলে একা হয়ে গেছে । কার্যকর সহায়তা কারো কাছ থেকে পাচ্ছে না । নতুন কৌশল নিয়ে কাশ্মীরের জনগণকে একাই আগ্রসর হতে হবে ।
    Total Reply(0) Reply
  • Aftab Faizan ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৮ এএম says : 0
    আমি একসময় ভারতকে বাংলাদেশের মতো শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসতাম, কিন্তু আজকে মোদীর জন্য ভারতের জন্য আমার পক্ষ থেকে ঘিনা এবং অভিশাপ ছাড়া কিছু রয়লো না, আমি একসময় পাকিস্তান কে মনে মনে খুব ঘিনা করতাম, কিন্তু আজকে ইমরান খানের জন্য পাকিস্তানের জন্য আমার মন থেকে হাজার বার দোয়া আসে, আমি দোয়া করি পাকিস্তান সফল হোক,হাসি ফুটুক পাকিস্তানের মেহনতি মানুষের মুখে,
    Total Reply(0) Reply
  • Saifur Rahman ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৪৮ এএম says : 0
    নিন্দা জানানোর ভাষা নাই।সেই দিন বেশি দুরে নয়। তদের পতন খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। আল্লাহ আপনি মুসলমানদের হেফাজত করুন। আমিন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ