Inqilab Logo

রোববার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

ভালবাসার টানেই ইসলাম গ্রহণ, জানালেন কেরালার নিখোঁজ তরুণী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫:৪৬ পিএম

বাবা-মা পুলিশের কাছে গিয়ে নিখোঁজ ডায়েরি করেছিলেন। কেরালার কোঝিকোড় পুলিশকে জানিয়েছিলেন, তাদের ১৯ বছরের মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে। আবুধাবিতে কোনও সন্ত্রাসবাদী সংগঠনে জোর করে যোগ দেয়ানো হয়েছে। এ নিয়ে গত কয়েক দিন ধরেই কেরালার সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ পেয়েছে। কিন্তু খ্রিস্টান তরুণী সিয়ানি বেনি রোববার গালফ নিউজকে জানালেন, কেউ জোর করেনি। তিনি স্বেচ্ছায় আবুধাবি গিয়েছেন। ভালবাসার ডাকে সাড়া দিয়ে গিয়েছেন এবং ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।

ধর্মান্তরিত হওয়ার পর এখন সিয়ানির নাম হয়েছে আইশা। তিনি স্পষ্ট বলেছেন, ‘আমি ভারতের একজন প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক। আমার যেখানে ইচ্ছে যেতে পারি। আমি যা করেছি স্বেচ্ছায় করেছি। ভালবাসার টানে করেছি। এর মধ্যে জোর জবরদস্তির ছিটেফোঁটাও নেই।’

দিল্লির জেসাস অ্যান্ড মেরি কলেজের স্নাতকের ছাত্রী সিয়ানি ওরফে আইশা। জানা গিয়েছে ১৮ সেপ্টেম্বরের পর আর তিনি কলেজে যাননি। ওই দিন বিকেলের বিমানেই আবুধাবি উড়ে যান। ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক ব্যবসায়ীকে নয় মাস আগেই বিয়ে করেছিলেন কেরালার এই তরুণী। তারপর ২৪ সেপ্টেম্বর আবুধাবির আদালতে তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

তিনি গোটা বিষয়টি খোলসা করার পর গালফ নিউজকে তিনি বলেছেন, ‘আমি ভারত সরকারের কাছে অনুরোধ করব, যারা আমার সম্পর্কে ভুয়া খবর ছড়াচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে যেন আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়।’ স্পষ্ট বোঝাই যাচ্ছে, বাবা-মায়ের দিকে অভিযোগের আঙুল। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের দাবি, গত দেড় বছর আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় সিয়ানির সঙ্গে পরিচয় হয় আবুধাবির ওই ব্যবসায়ীর। সেখান থেকেই প্রেম এবং বিয়ে। বাড়িতে জানাজানি হওয়ার পর বাবা-মা মেনে তো নেননি উল্টো দিল্লি থেকে কেরালা ফিরিয়ে নিতে চেয়েছিলেন মেয়েকে। ওই সংবাদমাধ্যমের দাবি, ২০১৮-র ক্রিসমাসের পর আর বাড়ি যাননি এই তরুণী। সূত্র: দ্য ওয়াল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম গ্রহণ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ