Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

ট্রাম্পের ইউক্রেন কানেকশন নিয়ে মুখ খুলতে পারে আরেক গোয়েন্দা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ অক্টোবর, ২০১৯, ১:২১ পিএম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ইউক্রেন কানেকশন নিয়ে মুখ খুলতে পারেন আরো একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা। ট্রাম্প যখন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কিকে তার নির্বাচনী সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্রেট জো বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্তের জন্য চাপ দিচ্ছিলেন তখনকার সেই বিষয়গুলো জানেন ওই কর্মকর্তা। এ বিষয়ে তিনি ফাইল জমা দেবেন কিনা এবং কংগ্রেসের সামনে আনুষ্ঠানিকভাবে সাক্ষ্য দেবেন কিনা তা নিশ্চিত হতে পারেন নি। এ বিষয়ে জানেন এমন দু’জন সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে এ খবর দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী পত্রিকা নিউ ইয়র্ক টাইমস।


রিপোর্টে বলা হয়েছে, প্রথম তথ্য ফাঁসকারী হুইসেল ব্লোয়ারের কাছে এ বিষয়ে যেসব তথ্য রয়েছেন তার চেয়ে অনেক বেশি এবং সরাসরি তথ্য রয়েছে দ্বিতীয় ওই হুইসেলব্লোয়ারের কাছে। প্রথম হুইসেলব্লোয়ার দাবি করেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার ক্ষমতা ব্যবহার করে জো বাইডেনের বিরুদ্ধে ইউক্রেনকে তদন্ত করতে চাপ দিয়েছেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের জন্য তদন্ত শুরু হয়েছে। তবে এরই মধ্যে গোয়েন্দা সম্প্রদায় যেসব ব্যক্তির সাক্ষাতকার নিয়েছে তার মধ্যে দ্বিতীয় ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা আছেন বলে জানাচ্ছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। ওদিকে ইন্সপেক্টর জেনারেল মাইকেল অ্যাটকিনসন শুক্রবার প্রাইভেটভাবে আইন প্রণেতাদের জানিয়েছেন হুইসেলব্লোয়ারের বিষয়ে তিনি কি কি জেনেছেন।

তবে দ্বিতীয় গোয়েন্দা কর্মকর্তা অভিযোগ দাখিল করবেন কিনা সে বিষয়ে তিনি স্পষ্ট কিছু বলেন নি। তবে প্রথম অভিযোগের পর যদি দ্বিতীয় কোনো ব্যক্তি একই বিষয়ে অভিযোগ করেন তাহলে প্রথম অভিযোগকারীর বক্তব্য জোরালোভাবে সমর্থন করা হয়।

ওদিকে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের তদন্তের জন্য হোয়াইট হাউজের কাছে ডকুমেন্ট দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেট দলের আইন প্রণেতারা। ২৫ জুলাই ট্রাম্প ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সঙ্গে ফোনে যেসব কথা বলেছিলেন তার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এসব ডকুমেন্ট। এখন পর্যন্ত বলা হচ্ছে, আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দল থেকে ফ্রন্টরানার প্রার্থী সাবেক প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ বিষয়টি মাথায় রেখে তার বিরুদ্ধে তদন্তের জন্য জেলেনস্কিকে চাপ দেন। এক্ষেত্রে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেন ইউক্রেনকে দেয়া যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা। এ খবর বেরিয়ে এলে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের তদন্ত শুরু হয়। তবে ট্রাম্প কোনো অন্যায় করেন নি বলে দাবি করেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন