Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

প্রশ্ন : বিগত ২০১৪ইং সাল থেকে আমি মাসিক ২০০০ টাকা কিস্তিতে একটি হজ্জ ডিপোজিট পরিচালনা করছি। আমার অন্য ডিপোজিট হিসাবের টাকা এবং অন্যান্য সম্পদের যাকাত প্রদান করে আসছি। কিন্তু হজ্জ ডিপোজিটের কোন যাকাত প্রদান করিনি। এখন আমার প্রশ্ন হজ্জ ডিপোজিটের যাকাত প্রদান করতে হবে কিনা এবং সেটা কোন বছর থেকে প্রদান করতে হবে? জিপিএফ/প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা আমার কাছে থাকেনা কিন্তু পরিমান জানা আছে , জিপিএফ হিসাবের টাকার যাকাত প্রদান করতে হবে কি?

মাহফুজ উজ্জ্বল
ধলপুর, উত্তর যাত্রাবাড়ী,ঢাকা।

প্রকাশের সময় : ৫ অক্টোবর, ২০১৯, ৮:৪২ পিএম

উত্তর : যখন থেকে হজ্জ ডিপোজিটের টাকা আপনার যাকাত বর্ষের সময় স্পর্শ করেছে, তখন থেকেই এর জাকাত দিতে হবে। এরপর যত বছর তা আপনার কাছে আছে, প্রতি বছরের শেষ স্থিতির জাকাত দিতে হবে। জিপিএফ/প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা আপনি ফান্ড থেকে তুলে নিয়ে বুঝে পাওয়ার আগ পর্যন্ত হিসাব জানা থাকলেও জাকাত দিতে হবে না। হস্তগত সম্পদ জাকাতবর্ষ পার হলে জাকাত দিতে হয়। যেমন, আপনার জাকাত দেওয়ার তারিখ এসে গেল, বেতনও অফিস তৈরি করে রেখেছে, আর আপনি তা জেনেও গেছেন, কিন্তু আপনার হাতে আসেনি। জাকাত দেওয়ার দিন এই বেতনের জাকাত দিতে হবে না। 

সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতাওয়া বিশ্বকোষ।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
inqilabqna@gmail.com



 

Show all comments
  • Hoquejoy ৫ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:২৫ পিএম says : 0
    হজ্জ অতি পবিত্র আবশ্যকীয় কাজ সামর্থ্যবানদের জন্য। তাই শতভাগ হালাল টাকা দিয়ে হজ্জ করতে হয়। আমাদের দেশের ব্যাংকগুলো ইসলামী শরিয়া মোতাবেক পরিচালিত নয়। তাই ব্যাংকে টাকা ডিপোজিট রেখে হজ্জ শুদ্ধ হবে না। কারণ তাতে সুদের টাকা যুক্ত হবে। যদিও কিছু কিছু ব্যাংক দাবি করে যে তারা ঐ টাকা দিয়ে ব্যবসা করে। ঐ ব্যবসার লভ্যাংশ প্রদান করা হয়। ব্যবসার নিয়ম হলো লাভ লোকসানের সমান ভাগিদার হওয়া। কিন্তু ব্যাংকগলো ব্যবসায়ীদেরকে ব্যবসার জন্য লোন প্রদান করে। ব্যবসায়ে বিনিয়োগ করেনা । ব্যবসায়ে বিনিয়োগ অর্থ হলো লাভ-লোকসানের ভাগিদার। বছরের শুরুতে লোন প্রদানকৃত টাকার সাথে অতিরিক্ত হয়তবা ১৫% নয়তবা বা তার কিছু কম হিসেবে মোট টাকা পরিশোধ করে নেয়। কিন্তু যদি ব্যবসায়ীর লোকসান হয় তবে, লোকসানের অংশ ব্যাংক নেয় না । যদি লোকসানের অংশ নিত তবে বৈধ হত। তাই আপনিই চিন্তা করে দেখুন ,হজ্জ হবে কি না। যেহেতু আপনার নিজস্ব টাকা নাই তাই ঐভাবে টাকা জোগাড় করা হালাল হবে না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ