Inqilab Logo

ঢাকা, রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৮ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

মুবারক হো মাহে রমজান

প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

এ.কে.এম ফজলুর রহমান মুন্শী
সম্মিলিতভাবে সিয়াম রাখা ও ভঙ্গ করা
মাহে রমজানের সিয়াম সাধনা এককভাবে অথবা একা একা শুরু করার কোনো বিধান নেই। অনুরূপভাবে একা একা রোজা ভেঙে ঈদ পালন করারও কোনো সুযোগ ইসলামে নেই। চাঁদ দেখার পর সিয়াম সাধনা
শুরু করতে হবে সম্মিলিতভাবে এবং ঈদ উৎসবও পালন করতে হবে সম্মিলিতভাবে। ইসলামী শরীয়তের সৌন্দর্য, উৎকর্ষ ও সহজ-সরলতার সুস্পষ্ট প্রমাণ এতে বিধৃত আছে। ইসলামে মানুষ যা করতে পারবে না তার উপর তা চাপিয়ে দেয়া হয়নি। ইসলামে সম্মিলিতভাবে ইবাদতের সময় নির্ধারণ সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি তথা চোখে দেখার উপর নির্ভর করা হয়েছে। বলা হয়েছে, তোমরা চাঁদ দেখে রোজা রাখ এবং চাঁদ দেখে ঈদ পালন কর এবং এক্ষেত্রে সম্মিলিতভাবে বা একতার ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে। যেমন মুসলমানগণ একসাথে সাওম পালন করা শুরু করে এবং একসাথে ঈদ উদযাপনে তৎপর হয়। এ প্রসঙ্গে হযরত আবু হুরায়রা (রা:) থেকে বর্ণিত আছে রাসূলুল্লাহ (সা:) বলেছেন : “সে দিনই সাওম যেদিন তোমরা সাওম পালন করবে এবং সেদিনই ইফতার যেদিন তোমরা ইফতার করবে। আর সে দিনই কুরবানী যেদিন তোমরা কুরবানী করবে।” অনুরূপ বর্ণনা হযরত আয়েশা (রা:) হতেও পাওয়া যায়। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা:) বলেছেনÑ “ইফতারÑ যেদিন মানুষ ইফতার করে। কুরবানীÑ যেদিন মানুষ কুরবানী করে।” সুনানে আবু দাউদের এক বর্ণনায় এসেছে, রাসূলুল্লাহ (সা:) বলেছেন: “তোমাদের ইফতার, যেদিন তোমরা ইফতার করবে। তোমাদের কুরবানী, যেদিন তোমরা কুরবানী করবে”। (সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং ২৩২৪; জামে তিরমিজী, হাদীস নং ৬৯৭, ৮০২; ইবনে ইসহাক, হাদীস নং ১১৭২; সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং ২৩২৪; সুনানে ইবনে মাজাহ, ১৬৬০; দারাকুতনী, খ- ২, পৃষ্ঠা-১৬৪: মুসান্নাকে আবদুর রাজ্জাক, হাদীস নং ৭৩০৪;
উপরোক্ত হাদীসগুলোর দ্বারা প্রমাণিত হয় যে, সিয়াম সাধনা এককভাবে করার জো নেই, তা করতে হবে সম্মিলিতভাবে। আর ঈদ পালন করার ক্ষেত্রেও সামষ্টিকতার প্রয়োজন রয়েছে। যদি একা কোনো ব্যক্তি চাঁদ দেখেও অন্য কেউ চাঁদ দেখার সাক্ষ্য প্রদান না করে, তাহলে তার উচিত সবার সাথে সাওম পালন করা ও সবার সঙ্গে ঈদ পালন করা ও কুরবানী করা।  এতে স্পষ্টতই বুঝা যায় যে, একা চাঁদ প্রত্যক্ষকারীর ওপর চাঁদ দেখার বিধান বর্তায় না। বস্তুত: সাওম রাখা ও ভঙ্গ করার ক্ষেত্রে সে অন্যদের মতো। (তাহযিবুশ: সুনান, খ- ৬, পৃষ্ঠা-৩১৭)



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মুবারক হো মাহে রমজান
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ