Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

বন্দি কাশ্মীরি নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাতের অনুমতি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৩৯ পিএম

ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর থেকে টানা প্রায় দুই মাস আটক রাখার পর অবশেষে আজ রোববার দলের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেলেন সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশনাল কনফারেন্স (এনসি) সভাপতি ফারুক আবদুল্লাহ ও তার ছেলে ওমর আবদুল্লাহ।
টানা দুই মাস পর দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে দেখা হচ্ছে ফারুক ও ওমরের। ন্যাশনাল কনফারেন্সের মুখপাত্র মদন মান্টু জানিয়েছে, আঞ্চলিক সভাপতি দেবেন্দ্র সিংহ রানার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল রোববার সকালে শ্রীনগরে ফারুক এবং ওমরের সঙ্গে দেখা করেন। এনডিটিভির।
মান্টু জানিয়েছেন, দেবেন্দ্র রানার অনুরোধেই ফারুক এবং ওমরের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দিয়েছেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক।
তিনি আরও জানান, প্রতিনিধি দলে ছিলেন এনসির ১৫ সদস্য। ফারুক এবং ওমরের সঙ্গে দেখা করতে দেয়ার জন্য বৃহস্পতিবার রাজ্যপালের দ্বারস্থ হয়েছিলেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতারা।
কেন তাদের নেতাকে আটক করে রাখা হয়েছে এ নিয়ে ক্ষোভও উগরে দেন তারা। এনসির মুখপাত্র জানান, দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে এ বিষয়ে বৈঠকের পর পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে তা নিয়ে একটা সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
গত শুক্রবার শ্রীনগরের শের-এ-কাশ্মীর ভবনে বৈঠকে বসেছিলেন এনসির নেতারা। ওই দিন দলের মুখপাত্র এটাও জানান, রাজ্যের রাজনৈতিক পরিস্থিতির ওপর একটা পর্যালোচনাও করা হয়েছে বৈঠকে।
গত ৫ অগস্ট ভারতের সংবিধান থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের ঠিক আগের দিন রাতেই ফারুক ও ওমরকে আটক করে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন। ফারুককে শ্রীনগরেই তার বাড়িতে গৃহবন্দি করে রাখা হয়।
রাজ্য প্রশাসনের গেস্ট হাউস হরি নিবাসে আটক করে রাখা হয় ওমরকে। অন্যদিকে, পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রধান ও সাবেক মুখ্যমন্ত্রীবা মুফতি এবং জম্মু অ্যান্ড কাশ্মীর পিপলস কনফারেন্সের চেয়ারম্যান সাজ্জাদ লোনসহ কাশ্মীরের আরও অনেক রাজনীতিবীদকেও একইভাবে বিনা কারণে আটক করে রাখে রাজ্য প্রশাসন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর


আরও
আরও পড়ুন