Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

কেউ যদি প্রমান দিনে পারেন জিয়াউর রহমানের লাশ সংসদ ভবন এরিয়ায় দাফন করা হয়েছে তাহলে মেনে নেব -মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০১৯, ৬:৩৬ পিএম

মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, আমি আগেও বলেছি, কেউ যদি প্রমান দিনে পারেন জিয়াউর রহমানের লাশ সংসদ ভবন এরিয়ায় দাফন করা হয়েছে। তাহলে আমরা মেনে নেব। জিয়াউর রহমানের যে তথ্য আমাদের কাছে আছে। জিয়াউর রহমানকে যারা হত্যা করেছে। আমরা তাদের সাথে কখনই একমত ছিলাম না, এখনও নাই।

আজ সোমবার দুপুরে টাঙ্গাইল জেলা মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ সমিতি ও শহীদ মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের আয়োজনে মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর প্রাঙ্গণে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
মুজিব নগর সরকার বিষয়ে তিনি বলেন, আদালত যে কি হয়েছে তা আপনারা জানেন, এটা খুবই দুঃখ জনক। আমাদের আদালত না বুজে না শুনে এবং তার একতিয়ার ক্ষমতা সম্মন্ধে তারা সচেতন না হয়ে। এটা একটা দুর্বিত্তায়ন হচ্ছে, এটা দুঃখ জনক। মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স্বাধীন করেছে বলেই আপনারা বিচারপতি হয়েছেন। এটা ভুলে যাইয়েন না, আপনাদের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে আমরা মুক্তিযোদ্ধা করেছি। মুক্তিযোদ্ধাদের আর বেশি বিরক্ত কইরেন না। মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধের ট্রেনিং জমা দেয় নি, বঙ্গবন্ধুর কথায় আমরা অস্ত্র জমা দিয়েছি।
তিনি আরও বলেন, এই বিচার বিভাগ তার স্বেচ্ছাচারিতা, তার ক্ষমতার অপব্যবহার করে যা কিছু করতে পারে। সমস্ত স্বেচ্ছাচার স্বৈরাচারদের পতন হয়েছে, ইতিহাস পরেন নাই। যারা বিচারপতি হয়েছেন তারা কি অন্যগ্রহ থেকে এসেছেন। গানে বলা আছে, বিচার তোমার বিচার করবে যারা আজ জেগেছে এই জনতা।
এসময় আরও বক্তব্য রাখেন, টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও দৈনিক আজকের দেশবাসী পত্রিকার সম্পাদক ফজলুর রহমান খান ফারুক, টাঙ্গাইল-৫ আসনের সংসদ সদস্য ছানোয়ার হোসেন, টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ডিএসবি শফিকুল ইসলাম, পৌর মেয়র জামিলুর রহমান মিরন ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান আনসারীসহ জেলা ও উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ।



 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ৭ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:৪৪ পিএম says : 0
    মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম মোজাম্মেল হক এখানে যেসব বিষয় এনেছেন আমি মনে করি সেগুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে নেয়া প্রয়োজন। মন্ত্রী মোজ্জাম্মেল হকের কথা আমাদের সকল মুক্তিযোদ্ধাদের কথা কাজেই তাঁর কথার গুরুত্ব দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে তাঁর করা মন্তব্য আমলে নিয়ে এটাকে প্রমাণিত করা। কারন আমরা দেখেছি এবং এখনও দেখছি জিয়াউর রহমানের কবর নিয়ে রাজনৈতিক খেলা চলছে এটা সঠিক নয়। বাংলাদেশ মুসলমান সংখ্যা গরিষ্ঠ দেশ কাজেই এখানে ইসলামের পরিপন্থী কোন কাজ করা উচিৎ নয়। একজনের লাশ রেখে অন্য জনের নামে চালিয়ে সেখানে ধর্মীয় অনুষ্ঠান করা ইসলামে ঘোর অন্যায়। কাজেই এখন সরকারের উচিৎ মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রীর চেলেঞ্জকে গ্রহণ করে প্রমাণিত করে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা। সাথে সাথে বিচার বিভাগের উপরও নজর দেয়া প্রয়োজন বলে মনে করি। কারন সেখানে আমি দেখেছি মুক্তিযোদ্ধারা সঠিক হবার পরও সঠিক বিচার পাচ্ছেননা বিভিন্ন কায়দা করে হাকিমের নিজের উপর নিয়ে রায় ঘুড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। বিচারকদের বিচার করা ভীষন কঠিন কাজ এটাই সত্য। আল্লাহ্‌ আমাদের সমাজে সত্য বলা ও সততার সাথে চলার ক্ষমতা দান করুন। আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • দীনমজুর কহে ৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৫৮ পিএম says : 0
    কি বলবো অতি কথনের জন্য সকলকিছু ম্লান হয়ে যায়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কেউ যদি প্রমান দিনে পারেন জিয়াউর রহমানের লাশ সংসদ ভবন এরিয়ায় দাফন করা হয়েছে তাহলে মেনে নেব -মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ