Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

বিক্ষোভে উত্তাল শিক্ষাঙ্গন

ঐক্যবদ্ধভাবে ছাত্রসমাজকে শৃঙ্খল ভাঙার আহ্বান নুরের

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৪৩ এএম

ছাত্রলীগের হাতে নিহত বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ২য় বর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে উত্তাল সারাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসগুলো। গতকাল সোমবার জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, ছাত্রদল, প্রগতিশীল ছাত্রজোট কর্মসূচি পালন করেছে। একই দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থীরা।
রাত সাড়ে ৮টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সিসিটিভি ফুটেজ দেখানোর দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। সন্ধ্যায় শিক্ষার্থীদের ফুটেজ না দেখিয়ে পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ক্যাম্পাস থেকে বের হতে চাইলে শিক্ষার্থীরা তাদের অবরোধ করে। এসময় লাঠিচার্জের ঘটনা ঘটে।


ঢাবিতে বিক্ষোভ
আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। সোমবার বেলা ১২টার দিকে মিছিলটি ঢাবির রাজু ভাস্কর্য থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী, অপরাজেয় বাংলা, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ ঘুরে ভিসি চত্বর হয়ে বুয়েট ক্যাম্পাসের দিকে যায়। এতে নেতৃত্ব দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর, সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেনসহ বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতারা। দুপুর ১টার দিকে মিছিল নিয়ে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের সামনে গেলে হলটির গেট বন্ধ করে দেয় কর্তপক্ষ। পরে বৃষ্টি উপেক্ষা করে মিছিলটি আবার টিএসসিতে ফিরে আসে।


পরে টিএসসি ক্যাফেটেরিয়ার সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে শিক্ষার্থীরা। এসময় ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নির্যাতনের অধিকার ছাত্রলীগকে কে দিয়েছে? কোনো ছাত্র যদি অন্যায় করে থাকে, তার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন রয়েছে।’ নুর বলেন, আজকের ছাত্ররা দুর্বৃত্তায়নের রাজনীতির হাতে জিম্মি। ছাত্রসমাজকে ঐক্যবদ্ধভাবে এ শৃঙ্খল ভাঙতে হবে।’ ভিপি বলেন, ছাত্রলীগের মধ্যে যারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে দ্রæত ব্যবস্থা নেন। অন্যথায় বাংলাদেশের ছাত্রসমাজ ক্ষেপে গেলে পালানোর রাস্তা পাবেন না। তিনি বলেন, ‘আজ পুরো বাংলাদেশের মানুষ নির্যাতিত। সবার পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। আজ যদি আপনারা ঐক্যবদ্ধ হতে না পারেন তাহলে এই স্বৈরশাসন ও স্বৈরশাসকদের জাতাকলে পিষ্ট হতে হবে।


ছাত্রদলের বিশাল বিক্ষোভ
আবরার হত্যার প্রতিবাদে বিকেল ৫টায় ঢাবি ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। এতে সংগঠনটির প্রায় কয়েকটি নেতাকর্মী অংশ নেন। সময় ছাত্রদলের স্লোগানে পুরো ক্যাম্পাস প্রকম্পিত হয়। বিক্ষোভ শেষে রাজু ভাষ্কর্যের পদদেশে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নেতারা। ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, ‘জাতীয়াতাবাদী ছাত্রদল এই হত্যাকান্ডের বিচারের দাবিতে রাজপথে নেমেছে। এবং হত্যাকান্ডের বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত রাজপথে থাকবে।’ সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, ‘বুয়েটের এর মত একটি শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন মেধাবী শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা করার মাধ্যমে ছাত্রলীগ নিজেদেরকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে আবারও প্রমাণ করছে। আবু বকর হত্যাকান্ড এবং বিশ্বজিৎ হত্যাকান্ডের বিচারের নামে যে প্রহসন হয়েছে তেমনি এই বিচার নিয়ে যদি এরকম প্রহসন করার চেষ্টা করা হয় তাহলে ছাত্রদল রাজপথে নেমে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে।’ এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন ঢাবি ছাত্রদলের সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান ও বুয়েট শাখা ছাত্রদলের সভাপতি শাফিউল মোসাব্বির শাফি প্রমূখ।


ছাত্রলীগের জড়িতেদের কঠোর শাস্তি দাবি বামদের
আবরার হত্যার সাথে জড়িত ছাত্রলীগ নেতাদের কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন বাম ছাত্র সংগঠনের নেতারা। সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টায় ঢাবি সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলন থেকে এ দাবি জানানো হয়। ছাত্র ফেডারশনের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনটির নেতারা বলেন, আবরার হত্যাকান্ড কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয় সন্ত্রাসীদের ধারাবাহিক দমন-পীড়ন-সহিংসতার শিকার সে। এতে বলা হয়, হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতরা প্রত্যেকেই বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের পদধারী নেতা। তাই এ ফৌজধারী অপরাধে জড়িতদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনতে হবে। ছাত্র ফেডারশেনর পক্ষ থেকে আগামী বুধবার বেলা সাড়ে ১২ টায় ঢাবি হাফিজ চত্বর থেকে আবরার হত্যার বিচার ও ভারতের সাথে সকল অসম চুক্তি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ ইনকিলাবকে বলেন, ‘এ ধরণের হত্যাকান্ড আমরা কোনভাবেই মেনে নেব না। এরসাথে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’
ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ
আবরার হত্যায় জড়িতদের বিচার দাবিতে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। সোমবার দুপুরে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতৃত্বে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। দুপুর ২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের পেছন থেকে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে জোটের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে অবস্থান অবরোধ করে। ফলে ৩০ মিনিটের বেশি সময় মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে। এসময় বক্তারা বলেন, ‘আমরা এখন ঘরে ও ঘরের বাইরে কোথাও নিরাপদ নই। দেশে একটি অরাজকতার পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।’ একই ঘটনায় বিকেল পাঁচটার দিকে আবার ঢাকা-রাজশাহী মহসড়ক অবরোধ করে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।
জাবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
জাবি রিপোর্টার জানিয়েছেন, বুয়েটে শিক্ষার্থী হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। দুপুর দেড়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার সংলগ্ন সড়কে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত হন। মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক যোগ দেন। পওে ক্যাম্পাসে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘আদর্শিক পরিচয়ের কারণে একজন মানুষকে মেরে ফেলা যায় না। তিনি যদি শিবির করেও থাকেন তা যদি অপরাধ হয় আইন তার বিচার করবে। কাউকে হত্যা করা ছাত্রলীগের কাজ নয়। সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট (মার্কসবাদী) জাবি শাখার সভাপতি মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, ‘আবরার ভারতকে বাংলাদেশের সম্পদ তুলে দেওয়ার সমালোচনা করেছে। এটা কি তার অপরাধ ছিল? হত্যা করার পর তাকে শিবির হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে তার সমালোচনা করার অধিকার রয়েছে। আমরা এ ঘটনার দ্রæত বিচার দাবি করছি।’

জবি রিপোর্টার জানিয়েছেন, আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শিক্ষার্থীরা মশাল মিছিল করে। এসময় শিক্ষার্থীদের স্লোগানে মুখরিত হয় জবি ক্যাম্পাস ও আশপাশের এলাকা। মিছিলটি বাহাদুরশাহ পার্ক, শাঁখারী বাজার মোড ও কবি নজরুল কলেজ রোড হয়ে ক্যাম্পাসে এসে শেষ হয়। ##



 

Show all comments
  • মোঃ ইমরান হোসাইন জাহাঙ্গীর ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৫১ এএম says : 0
    বাংলাদেশে ছাত্র লীগের মধ্যে কতগুলো পাগলা কুকুর আছে এদের বিচার করার মতো ক্ষমতা কি কারো নেই। আর কতো লাশ পড়লে আপনাদের চেতনায় খবর হবে একটু জানালে খুশি হবো।
    Total Reply(0) Reply
  • Thoukir Ahmed ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
    ও তো খারাপ কিছু লিখে নাই। এটি একটি মত প্রকাশ ছিলো। ওর লেখা থেকে অনেক কিছু জানালাম। আসলে ট্যালেন্টরা এরকমই হয় যেখানে যুক্তি দিয়ে সবাইকে সবকিছু জানান দেয়।
    Total Reply(0) Reply
  • M A Zaman Ranju ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
    বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের হত্যা কারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। হত্যাকারী যেই হোক না কেন তার সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়া হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Ariful Islam ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
    All people should come out in street and protest because this boy has sacrificed his life for our country.
    Total Reply(0) Reply
  • Mhafujul Alam ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
    দেশে যদি সুশাসন থাকত তাহলে একের পর এক খুন দেখতে হতো । এই পর্যন্ত কোন খুনের বিচার হয়নি যে গুলো হয়েছে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ থাকার পরও খুনিরা ছাড়া গিয়েছে । শুধু মাত্র বঙ্গবন্ধু হত্যা র বিচার করেই দেশে সুবিচার প্রতিষ্ঠিত হয় না ।
    Total Reply(0) Reply
  • Shahajalal Sarker ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
    স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে ফেইসবুকে কিছু কথা লিখেছিলেন তাই তাকে হত্যা করা হল।শেষ করে দেয়া হলো তার বাবা-মার স্বপ্ন। বুয়েটে যারা ছাত্রলীগ করে তারা কি ইন্জিনিয়ার হতে আসেছে নাকি ডাকাত হতে এসেছে?এরা এখন হত্যা করেছে সহপঠি ইন্জিনিয়ার হয়ে যখন চাকরিতে যোগ দিবে তখন হত্যা করবে দেশের ভ্যবিষ্যৎ।
    Total Reply(0) Reply
  • Bright Khan Bright Khan ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১১ এএম says : 0
    এমন জঘন্য কাজ, জাতি দেখতে চায় না? মানবতা বিরোধী অপরাধ? আমি এর প্রতিবাদ করছি? আমি সঠিক বিচার দাবি করছি??? গাহি সাম্যের গান/ মানুষের চেয়ে বড় কিছু নেই মহীয়ান??? সবার উপরে মানুষ সত্য/ তাহার উপরে নাই/
    Total Reply(0) Reply
  • নীল আকাশের দ্রুবতারা ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১১ এএম says : 0
    দক্ষিন তালপট্টি দ্বীপ নিয়ে কথা বলার কারনে একজন রাষ্ট্রপতির জীবন দিতে হয়েছিলো আজ তার পুনরাবৃত্তি ঘটলো!! দেশে এখন লেন্দু দর্জি ক্ষমতায়!!
    Total Reply(0) Reply
  • Anowar Hussain ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১১ এএম says : 0
    যারা এতদিন বলে আসছিল, ভারতকে দেওয়ার মত বাংলাদেশের আর কিছু অবশিষ্ট নাই, তাদের মুখে চুনকালি। দেওয়ার মন থাকলে কত কিছু দেওয়া যায়.....!! বুয়েট ছাত্র আবরারের লাশ এটাই প্রমাণ করে.. ভারতের গোলামীর শৃঙ্খলে কত'টা আবদ্ধ দেশ!!
    Total Reply(0) Reply
  • Fakrul Islam ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১১ এএম says : 0
    ভারতের আজ্ঞাবহ কিছু লেন্দুপ দর্জির জন্য আমরা স্বধীন রাষ্ট্র হয়েও ভারতের কাছে পরাধীনতার শৃঙ্খলে আবদ্ধ হয়েছি তাই আজ সচেতন দেশপ্রেমিক দের ভাগ্যে এই নিষ্ঠুর পরিণতি!!
    Total Reply(0) Reply
  • Asad Ullah ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১২ এএম says : 0
    আজকে এদেশের একটি দলের মধ্যে দেশপ্রেম থেকে ভারত প্রেম বেশি। আর কথিত ছাত্র সংগঠনে মধ্যে মানুষের থেকে জংলী-জানোয়ার বেশি। এই জংলী সংগঠন এখনই নিষিদ্ধ করা হোক।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাত্রলীগ

৬ নভেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ