Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৮ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

উত্তাল বুয়েট, ভিসির জানাযায় না আসা নিয়ে প্রশ্ন

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১১:১৮ এএম

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদ (২১) হত্যার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে শিক্ষার্থীরা। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ৭ দফা দাবিতে কর্মসূচি পালন করে তারা।

এদিকে শিক্ষার্থী হত্যায় ক্ষুব্ধ পরিস্থিতিতে ক্যাম্পাসে আসেননি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। আবরারের জানাযায় ভিসি কেন আসেননি এ প্রশ্ন শিক্ষার্থীদের।

সকালে কর্মসূচি থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত আলটিমেটাম দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। তারা ক্যাম্পাসে ভিসি না এলে আজ শহীদ মিনার এবং কাল থেকে ক্যাম্পাসে অবস্থানের ঘোষণা দিয়েছেন। আজ বিকেল ৫টায় আবারও কর্মসূচি পালন করবেন তারা।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টায় বুয়েট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে 'বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ' ব্যানারে এই মিছিল শুরু করা হয়।

আন্দোলনকারীদের মুখে ছিলো, 'খুনীদের ঠিকানা, এই বুয়েটে হবে না', 'ফাঁসি ফাঁসি, ফাঁসি চাই', 'প্রশাসনের দুই গালে, জুতা মারো তালে তালে', 'ভিসি তুই নিরব কেন, জবাব চাই, দিতে হবে।

মিছিলটি বুয়েটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে শুরু করে শেরে বাংলা হলের পিছন দিয়ে ডা. এম এ রশিদ হলের সামন দিয়ে শহীদ মিনারের সামন হয়ে বুয়েটের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামন হয়ে আবার ঘুরে শহীদ মিনারের দিকে যায়।

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, খুনীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা, ৭২ ঘন্টার মধ্যে নিশ্চিতভাবে সনাক্তকৃত খুনীদের সকলের ছাত্রত্ব আজীবন বহিঃস্কার নিশ্চিত করা, দায়েরকৃত মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের অধীনে স্বল্পতম সময়ে নিষ্পত্তি করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি কেন ৩০ ঘন্টা অতিবাহিত হবার পরও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় নি তা তাকে সশরীরে ক্যাম্পাসে এসে আজ বিকাল ৫ টার মধ্যে জবাবদিহি করা একই সাথে ডিএসডব্লিউ স্যার কেনো ঘটনাস্থল থেকে পলায়ন করেছেন তা উনাকে আজ বিকাল ৫ টার মধ্যে সকলের সামনে জবাবদিহি করা, আবাসিক হলগুলোতে র‍্যাগের নামে এবং ভিন্ন মতাবলম্বীদের উপর সকল প্রকার শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন বন্ধে প্রশাসনকে জড়িত সকলের ছাত্রত্ব বাতিল করা একই সাথে আহসানউল্লা হল এবং সোহরাওয়ার্দী হলের পূর্বের ঘটনাগুলোতে জড়িত সকলের ছাত্রত্ব বাতিল ১১ নভেম্বর,২০১৯ তারিখ বিকাল ৫ টার মধ্যে নিশ্চিত করতে হবে, রাজনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করে আবাসিক হল থেকে ছাত্র উৎখাতের ব্যাপারে অজ্ঞ থাকা এবং ছাত্রদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হওয়ায় শেরে বাংলা হলের প্রভোস্টকে ১১ নভেম্বর, ২০১৯ তারিখ বিকাল ৫ টার মধ্যে প্রত্যাহার করা, মামলা চলাকালীন সকল খরচ এবং আবরারের পরিবারের সকল ক্ষতিপূরণ বুয়েট প্রশাসনকে বহন করতে হবে।



 

Show all comments
  • Mahmud Hasan ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১:২১ পিএম says : 0
    খুনিদের পরিচয় প্রকাশ করা হউক এবং সারাদেশ থেকে ছাত্রলিগ বিতাড়িত করা হউক- কারন আজকে আবরার, আগামী কাল আমার এবং সামনে আপনার পালা......
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আবরার হত্যা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ