Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

রাবিতে ভিসি, প্রো-ভিসির পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত

রাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৮ পিএম

ভিসির ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান ও প্রো-ভিসি চৌধুরী জাকারিয়ার নিয়োগ বাণিজ্যর প্রতিবাদে পদত্যাগ ও বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যায় জড়িত ছাত্রলীগ নেতাদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

বুধবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধনের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় বিক্ষোভ কারীরা ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ থেকে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা দিতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

এসময় বিক্ষোভকারীরা দুর্নীতিমুক্ত ক্যাম্পাস চাই, ভিসির ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান মানিনা মানবো না দুর্নীতির আস্তানা ভেঙ্গে দাও গুড়িয়ে দাও, একদফা এক দাবি ভিসি প্রো-ভিসির পদত্যাগ চাই, ভারতের দালালেরা হুশিয়ার সাবধান, স্বজন প্রীতির আস্তানা ভেঙ্গে দাও গুড়িয়ে দাও, ঘুষ খোর প্রো-ভিসি পদত্যাগ কর করতে হবে। চাঁদা বাজের বিরুদ্ধে আগুন জ্বালাও একসাথে। শিক্ষা সন্ত্রাস এক সাথে চলে না। ভিসি প্রো-ভিসির পদত্যাগের দাবিতে বিভিন্ন ফেস্টুন ব্যবহার ও স্লোগান দিতে থাকে শিক্ষার্থীরা।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যের দর-কষাকষির যে অডিও ক্লিপ বের হয়েছে প্রো-ভিসির বিরুদ্ধে কিন্তু তিনি সেটি অস্বীকার করেছেন। প্রো-ভিসি তার অপকর্ম অস্বীকার করলেও যথাযথ প্রমাণ দেখাতে পারেনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের মত একটা জায়গায় এ ধরনের দুর্নীতিবাজ প্রো-ভিসির এই চেয়ারে বসার কোন অধিকার নাই। অনতিবিলম্বে তাকে পদত্যাগ করতে হবে। । পদত্যাগ না করলে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি যে ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দিয়েছেন এটা রাষ্ট্রদোহীতার শামিল। তিনি ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দিয়ে এ দেশের তিরিশ লাখ শহীদের সাথে বেইমানি করেছে। এ সময় বক্তারা ভিসিকে ভারতের দালাল ও এজেন্ডাবাস্তবায়নকারী বলেও আক্ষা দিয়েছেন তারা। ভিসিকে জনসম্মুখে ক্ষমা চেয়ে চাইতে হবে এবং অতি দ্রুত পদত্যাগ করতে হবে।

বক্তারা আরো বলেন বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যায় দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি ও ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের মত সন্ত্রাসী কর্মকান্ড লিপ্ত ছাত্র সংগঠনকে নিষিদ্ধের দাবি জানান তারা। দেশের প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ প্রতিনিয়তই তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড অব্যহত রেখেছে। ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা নিরাপদে চলাফেরা করতে পারে না। হলের সিট বাণিজ্য থেকে শুরু করে সকল প্রকার অন্যায়ারে সাথে ছাত্রলীগ ওতপ্রোতভাবে জড়িত রয়েছে। ছাত্রলীগের মত সন্ত্রাসী সংগঠন কখনোই শিক্ষাথী বান্ধব সংগঠন হতে পারে না। তাই ছাত্র সংগঠন হিসেবে ছাত্রলীগকে ছাত্র সমাজের প্রতিনিধিত্ব করার কোন অধিকার নেই।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মোর্শেদের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, রাকসু আন্দোলন মঞ্চের সমন্বয়ক আব্দুল মজিদ অন্তর, রঞ্জু হাসানসহ সমাবেশে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাবি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ