Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

আফতাবের অন্যরকম ‘অভিষেক’

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার আফতাব আহমেদের অন্যরকম ‘অভিষেক’ হতে যাচ্ছে। খেলোয়াড়ি জীবনে আক্রমণাত্বক ধাঁচের এই ব্যাটসম্যান জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) চট্টগ্রাম বিভাগের প্রধান কোচ হিসেবে অভিষেক হচ্ছে তার। কোচ হিসেবে নিজের শতভাগ দেয়ার চেষ্টা করার কথা বলেছেন তিনি, ‘আমি শতভাগ চেষ্টা করব। জানি না ফলাফল কী হবে। কিন্তু আমার চেষ্টা পুরোপুরিই থাকবে এখানে।’

আইসিএল খেলায় নিষেধাজ্ঞা পাওয়া আফতাবের একসময়ের সতীর্থ মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মোহাম্মদ আশরাফুল আর আব্দুর রাজ্জাকরা এখনও খেলছেন জাতীয় লিগে। এবারও খেলবেন, সেই সতীর্থদের সামনে নতুন ভুমিকায় আফতাবের রোমাঞ্চিত হবার যথেষ্ট কারণই আছে। এনসিএলে সাবেক ক্রিকেটারদের সুযোগ করে দেয়ায় বিসিবিকে ধন্যবাদ জানান আফতাব। জানিয়েছেন তার অনুভূতিও, ‘বিসিবিকে ধন্যবাদ জানাই, আমাদের যারা সাবেক ক্রিকেটার ছিলেন তাদের মাঠে সুযোগ করে দেয়ার জন্য। আমি অবশ্যই কিছুটা রোমাঞ্চিত, এই বছর প্রথমবারের মতো চট্টগ্রামের প্রধান কোচ হিসেবে কাজ করছি।’

দেশের ক্রিকেটে উল্লেখযোগ্য অবদান আছে চট্টগ্রামের ক্রিকেটারদের। মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, আকরাম খান, আফতাব আহমেদ, নাফিস ইকবালদের থেকে শুরু করে তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নাঈম হাসান, ইয়াসিন আরাফাত মিশুরা সবাই চট্টগ্রাম বিভাগের। কিন্তু জাতীয় লিগের শেষ কয়েকটি আসরে উল্লেখযোগ্য ফলাফল করতে পারেনি চট্টগ্রাম বিভাগ। সেই অবস্থান থেকে দলকে টেনে তুলতে চান জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার আফতাব। যদিও কোচিং পেশার প্রথমবারেরই অনেক কিছু করতে না পারার বাস্তবতা দেখিয়ে দিয়েছেন তিনি।

তুলনামূলকভাবে গত কয়েক বছরে চট্টগ্রাম থেকে ওই মানের কোনও ক্রিকেটার বের হয়ে আসেনি। জাতীয় লিগে চট্টগ্রাম বিভাগের পারফরম্যান্স যেমন নিচু মানের, ঠিক একইভাবে ক্রিকেটারও উঠে আসছে না সেখান থেকে। এমন সমস্যার সমাধান চান আফতাব, ‘আমরা শেষ ৮-১০ বছরে একই জায়গায় আটকে আছি। প্রথম বছর এসে আমি অনেক কিছু করতে পারব না। চট্টগ্রামকে আগের মতো প্রভাবশালী জায়গায় নিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা আছে।’

খেলোয়াড়ি জীবনে লড়াকু মানসিকতায় ব্যাটিং করতেন আফতাব। জাতীয় দলের সাবেক কোচ ডেভ হোয়াটমোর বারবারই প্রশংসা করতেন আফতাবের আগ্রাসী মনোভাবের। ক্ষুরধার সেই মনোভাব কোচিং পেশাতেও ব্যবহার করতে চান আফতাব। জাতীয় দলের হয়ে ১৬ টেস্ট, ৮৫ ওয়ানডে ও ১১ টি-টোয়েন্টি খেলা সাবেক এই ক্রিকেটার বলেন, ‘এখানে যখন কাজ করছি, তখন দলটাকে শেষ দল হিসেবে দেখতে চাই না। আমি যখন ক্রিকেট খেলেছি, তখন লড়াকু মানসিকতা নিয়েই খেলেছি।’

ঘরোয়া ক্রিকেটাঙ্গনে কোচ হিসেবে পরিচিত মুখ আফতাব। গত বছর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। আগামী নভেম্বরে দেশের গ-ি পেরিয়ে আরব আমিরাতে অনুষ্ঠেয় টি-টেন লিগে বাংলা টাইগার্সের প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। টি-টেন ক্রিকেটে কোচ হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে আফতাব বলেন, ‘এটা আসলেই উত্তেজনাকর ব্যাপার। অবশ্যই এটা আমার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। লক্ষ্য থাকবে এখানে ভালো কিছু করার।’

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন