Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

খুলল কাশ্মীরের দরজা, আতঙ্কে সাড়া নেই পর্যটকদের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ অক্টোবর, ২০১৯, ৪:৩০ পিএম

প্রায় দুই মাসের বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকার পর অবশেষে ভূস্বর্গ খ্যাত কাশ্মীরে পর্যটক প্রবেশের ওপর আরোপিত সকল ধরনের বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করা হলো। সরকারি এক মুখপাত্র জানান, বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) থেকে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের জন্য ফের কাশ্মীরের দরজা পুরোপুরি উন্মুক্ত করা হয়েছে। যদিও চলমান উত্তেজনার রেশ এখনো না কাটায় আতঙ্কে সারা মিলছে না পর্যটকদের বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।

গত সোমবার (৭ অক্টোবর) কাশ্মীরি গভর্নর সত্যপাল মালিক রাজ্যে পর্যটক প্রবেশের বিষয়ে নির্দেশনাটি দেন। যেখানে বলা হয়, ১০ অক্টোবর থেকে হোম ডিপার্টমেন্টের আগের নির্দেশনাটি প্রত্যাহার করে নেওয়ার সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। অর্থাৎ সেদিন থেকেই পর্যটকরা চাইলে জম্মু ও কাশ্মীরে ভ্রমণ করতে পারবেন।

এ দিকে রাজ্যে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কার কথা উল্লেখ করে গত ২ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীর থেকে অমরনাথের তীর্থযাত্রী এবং সকল পর্যটকদের দ্রুত কাশ্মীর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয় প্রশাসন। অপর দিকে সরকারি এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, চলতি বছরের জুন মাসে প্রায় ১ লাখ ৭৪ হাজার পর্যটক কাশ্মীরে ভ্রমণ করেন; পরে জুলাই মাসে অন্তত ৩ হাজার ৪০৩ বিদেশি পর্যটকসহ কমপক্ষে ১ লাখ ৫২ হাজার লোক ভূস্বর্গটিতে বেড়াতে আসেন। যদিও পর্যটন দপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, গত আগস্ট মাসে সৃষ্ট উত্তেজনার পর এখন পর্যন্ত রাজ্যে পর্যটক আগমনের আর কোনো তথ্যই তাদের হাতে নেই।

এর আগে গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছিল ক্ষমতাসীন মোদি সরকার। যার প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে বিতর্কিত লাদাখ ও জম্মু ও কাশ্মীর সৃষ্টির প্রস্তাবেও সমর্থন জানানো হয়। এসবের মধ্যেই চলমান কাশ্মীর ইস্যুতে পাক-ভারত মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে একে একে ভারত সরকারের সঙ্গে বাণিজ্য, যোগাযোগসহ সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিবেশী পাকিস্তান। যদিও এমন সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে ভারত পাশে পেয়েছে রাশিয়াকে এবং পাক সরকারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশ ইরান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ