Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

বেসরকারি চাকরিজীবীর কথা ভাবুন

| প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

একটু সচ্ছলভাবে জীবন পরিচালিত করার আশায় আমাদের দেশে অনেক মানুষ নানা প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে থাকেন। কেউবা সরকারি চাকরিজীবী, কেউ বেসরকারি চাকরিজীবী। ২০১৫ সালের পে স্কেল করার মধ্য দিয়ে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতার ক্ষেত্রে বিশাল পরিবর্তন এসেছে। একজন সরকারি চাকরিজীবী এখন স্বাচ্ছন্দ্যে চলতে পারেন। কিন্তু বেসরকারি চাকরিজীবীর ক্ষেত্রে তা অসম্ভব। মানুষের দৈনন্দিন জীবনে পরিবার-পরিজন, সন্তান-সন্ততি লালন-পালন, লেখাপড়া, চিকিৎসা ও শিক্ষার ক্ষেত্রে অনেক টাকার প্রয়োজন হয়। সরকারি চাকরিজীবীরা নানা সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার ফলে তাদের প্রয়োজন নিমেষে মেটাতে পারেন। কিন্তু বেসরকারি চাকরিজীবীদের অনেক কঠিন পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। সাধারণত আমাদের দেশে বেসরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোনো স্কেল নেই। প্রতিষ্ঠানের মালিক যা ইচ্ছা তাই বেতন-ভাতা দিয়ে থাকেন। বেসরকারি চাকরির ক্ষেত্রে কোনো নিশ্চয়তা থাকে না। যে কোনো সময় চাকরি চলে যেতে পারে। এ নিয়ে চাকরিজীবীদের সবসময় আতঙ্কের মধ্যে থাকতে হয়। মালিক যে কোনো সময় তাদের চাকরি থেকে ছাঁটাই করে থাকেন। সরকারি বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে সপ্তাহে দু›দিন ছুটি থাকে; কিন্তু বেসরকারি ক্ষেত্রে তা থাকে না। এমনিতেই কম বেতন-ভাতা পেয়ে থাকেন। এর পর নানা সমস্যার কারণে তাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে অনেক কষ্টে অতিবাহিত করতে হয়। বেসরকারি চাকরিজীবীদের কি দেখার কেউ নেই? সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
আলী ফজল মোহাম্মদ কাওছার
চাকরিজীবী, সিলেট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন