Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯, ০৮ চৈত্র ১৪২৫, ১৪ রজব ১৪৪০ হিজরী।

ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে আনুষ্ঠানিক ট্রানজিট শুরু

ক্ষমতায় যেতে খালেদা ইবলিশের সাথেও হাত মিলাতে প্রস্তুত -শাহজাহান খান

প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১১:৩৯ পিএম, ১৬ জুন, ২০১৬

বি.বাড়িয়া জেলা ও আশুগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা : ক্ষমতায় যেতে খালেদা জিয়া নবীর দুশমন ইবলিশের সাথেও হাত মিলাতে প্রস্তুত বলে মন্তব্য করেছেন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান। তিনি বৃহস্পতিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ নৌবন্দরের ওয়্যারহাউজে আয়োজিত ভারত-বাংলাদেশ নৌপ্রটোকল (পিআইডব্লিউটিটি) চুক্তির আওতায়  ট্রান্সশিপমেন্ট কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
নৌপরিবহন মন্ত্রী আরো বলেন, শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য বিএনপি বিশ্বের ঘৃণিত গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে। এদিকে মন্ত্রীর উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে আনুষ্ঠানিক ভাবে ট্রানজিট শুরু হয়েছে।
অনুষ্ঠানে নৌমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন, বিএনপি-জামায়াত দেশের সাধারণ মানুষকে হত্যা করছে। আর খালেদা জিয়া এসব হত্যাকা-ের দায় আওয়ামী লীগের ঘাড়ে চাপানোর চেষ্টা করছে। তাই আমাদের সবার সাবধান থাকতে হবে।
নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব অশোক মাধব রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, প্রধানমন্ত্রীর অর্থবিষয়ক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী,  ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান, ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, জেলা প্রশাসক য. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার প্রমূখ।
পরে নৌবন্দরের ফেরিঘাটে অতিথিবৃন্দকে সাথে নিয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান ফিতা কেটে ট্রান্সশিপমেন্ট কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।
এর আগে বুধবার বিকেলে ট্রান্সশিপমেন্ট চুক্তির আওতায় ভারতীয় ১ হাজার মেট্রিক টন লৌহজাত পণ্যবাহী এমভি নিউটেক-৬ জাহাজটি আশুগঞ্জ নৌবন্দরে নোঙর করে। সবকিছু ঠিক থাকলে বৃহস্পতিবার থেকেই প্রথমবারের মতো মাশুল দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ নৌবন্দর ব্যবহার করে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে খোলা ট্রাকে করে ট্রান্সশিপমেন্টের এ পণ্য পরিবহন শুরু হবে। ভারতীয় পণ্য পরিবহনের দায়িত্বে রয়েছে বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান আনবিজ ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড। এর আগে বিশেষ মানবিক দিক বিবেচনা করে ট্রানজিট সুবিধার মাধ্যমে বিনা মাশুলে দু’দফায় আশুগঞ্জ নৌববন্দর ব্যবহার করে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের ত্রিপুরায় বিভিন্ন পণ্য পরিবহন করা হয়।
এখন থেকে স্থায়ী ভাবে বাংলাদেশের নৌ ও সড়ক পথ দিয়ে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে পণ্য নিয়ে যাবে ভারত। এই ট্রানজিট এন্ড ট্রান্সশিপমেন্টের অধীনে স্থায়ী করিডোর ব্যবহারের সুবিধা পেয়ে গেল ভারত।



 

Show all comments
  • Joynal Abedin ১৭ জুন, ২০১৬, ১১:৩৯ এএম says : 0
    উনারা কার সাথে হাত মিলাইছেন ?
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Saidul islam ১৭ জুন, ২০১৬, ১১:৪০ এএম says : 0
    তোমরা সব অলি আওলিয়া !
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন