Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

আবরার হত্যা মামলার বিচার দ্রুত সম্পন্ন হবে

নোয়াখালীতে আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, আবরার ফাহাদ হত্যা মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির ব্যবস্থা করা হবে। নৃশংস এই হত্যাকান্ডে যারাই জড়িত থাকুক না কেন, তাদের পরিচয় যা-ই হোক না কেন সবাইকে বিচারের আওতায় আনা হবে। ন্যায় বিচারের মাধ্যমে মামলার বিচার নিষ্পত্তি করা হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। আইনমন্ত্রী বলেন, সরকার এই হত্যাকান্ডের বিচারের জন্য দ্রুত তদন্তের ব্যবস্থা করেছে। মানুষ যাতে বিচারের জন্য পথে পথে না ঘোরে। মানুষ যেন ন্যায় বিচার পায়। ন্যায় বিচার যেন শুধু মুখের বুলি না হয়। ন্যায় বিচার যেন কাগজে দেখা যায়। সেই ব্যবস্থা সরকার করছে। আনিসুল হক বলেন, সরকার চায় মানুষ দ্রæত বিচার পাক এবং বিচার না হওয়ার কারণে স্ট্রিট জাস্টিসের জন্ম না হোক।
অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, আদালত অঙ্গণে নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য দেশের সকল আদালতে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। সেগুলো নিয়মিত মনিটরিং করা হবে। উচ্চ আদালতের একটি রায় অনুযায়ী দেশের নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা হয়ে বিচার বিভাগের পৃথকভাবে পথচলা শুরু হয় ২০০৭ সালের ১লা নভেম্বর। চলার শুরুতেই আদালতসমূহে বিশেষ করে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসিতে এজলাসের অপ্রতুলতাসহ বিচারক সংকট দেখা দেয়। এতে করে বিচারক, আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থী জনগণ যেমন ভোগান্তির শিকার হতে থাকেন, তেমনি মামলার জট দিনের পর দিন বাড়তে থাকে।

এ অবস্থায় ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার গঠন করেন । বিচার বিভাগের স্বাধীনতা এবং পৃথকীকরণকে সুদৃঢ় ও টেকসই করার জন্যবাস্তবমুখি পদক্ষেপ নেন। প্রথমেই এজলাস সংকট দূরীকরণের জন্য আদালত ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করা হয়। পাশাপাশি নতুন বিচারক নিয়োগের কার্যক্রম জোরদার করা হয়। কেবল সিজেএম আদালত ভবন নির্মাণের জন্যই বর্তমান সরকার ২ হাজার ৩৮৮ কোটি টাকার একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এ প্রকল্পের প্রায় ৮৫ ভাগ কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। এ ধারাবাহিকতায় ৬০ কোটি ৯২ লাখ টাকা ব্যয়ে নোয়াখালি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ১০ তলা ভবন নির্মিত হয়েছে। ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নোয়াখালির জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদ। অনুষ্ঠানে নোয়াখালি ৪ ও ৬ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য যথাক্রমে একরামুল করিম চৌধুরী ও আয়েশা ফেরদাউস, জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য ফরিদা খানম, আইন সচিব মো. গোলাম সারওয়ার, যুগ্ম সচিব বিকাশ কুমার সাহা প্রমুখ বক্তৃতা করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ