Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

চরফ্যাশনে বাহারি আইটেমের ইফতারি বাজার

প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

এম আমির হোসেন, চরফ্যাশন থেকে : রমজানের শুরু থেকে ইফতারের জন্য হোটেল রেস্তোরাঁ ছাড়াও অস্থায়ী ব্যবসায়ীদের বাহারী আইটেমের সামগ্রী আছর পর পরই চরফ্যাশন বাজার জমে উঠেছে। চরফ্যাশন শহরের বিভিন্ন স্থানে জমজমাটভাবে গড়ে উঠেছে এসব দোকানপাট। ওই শহরে বিভিন্ন স্থান থেকে আশা রোজাদারদের পাশাপাশি স্থানীরা ও আছরের পর পরই ইফতার নেওয়ার ধুম পরে যায়।
বিভিন্ন স্থান থেকে ইফতারির দোকানগুলোতে থাকে উপচেপড়া ভির।
বিশেষ করে এই সৃজনালী ইফতার বেশির ভাগ হোটেল রেস্তোরাঁ সামনে বিশাল খোলা মেলা স্থানে ইফতার সাজিয়ে রাখছে দোকানিরা। যেখানে সেখানে থাকছে বুট, পেঁয়াজু, জিলাপি, বেগুনী, পুরিন্দা, শাকের চপসহ বিভিন্ন আইটেমের ইফতার। ইফতারের জন্য প্রধান বুট, মুড়ি, সাথে খেজুর, এবার আমের পরিমাণ বেশি, শশা ও লেবুর কদরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। দোকান বসছে সদর রোডে প্রতিবছরের ন্যায় ভাই ভাই হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট ভালো ভালো উন্নতমানের হরেক রকমের ইফতারের আয়োজন হচ্ছে কেনাকাটা খুবই ভালো।
ছাড়াও ভূঁইয়া হোটেল, ক্যাপে জুয়েল, লঞ্চঘাট, জনতা রোড, সদর রোডের আল-আমীন হোটেলের সামনেসহ ফ্যাশন স্কোয়ারের বিভিন্ন স্থানে বাহারি ইফতারের ব্যাপক আয়োজন হচ্ছে। কুমরের দাম সহনশীল অবস্থা থাকলেও আলুর চপ, বেগুনীর চপ, শাকের চপ অধিক দামে বিক্রি করায় ক্রেতাদেরকে ক্রয়ের ক্ষমতার বাহিরে বলে অভিযোগ রয়েছে। বুটের দাম ছড়া হলেও বুটভাজা ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে সীমাবদ্ধতার মধ্যে আছে বলে জানা গেছে।
তবে ইফতারের দাম নিয়ে ক্রেতাদের মধ্যে কোনো ক্ষোভ নেই বললেন জানালেন ক্রেতা ইকবাল হোসেন। রৌদ্রের উত্তপ্ত তাপ রমজানের প্রথম দিন থেকে আজ ১০টি অতিক্রম করে ১১টিতে শুরু হলেও বর্ষার ফলে চরফ্যাশন রোজাদার ব্যক্তিদের জন্য কষ্টের তেমন প্রভাব পরেনি। বিদ্যুৎ চরফ্যাশনবাসীর জন্য নিত্যদিনের ভোগান্তি।
বিদ্যুতের ভোগান্তি বেশ বিপাকে ফেলছে রোজাদারদের কষ্টে একটু বেড়েছে। সব মিলে সাধ আর সাধ্যের মধ্যে সমন্বয় ঘটিয়ে চলছে বাহারি ইফতারির কেনাকাটা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন