Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৮ কার্তিক ১৪২৬, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাত ইরানি ট্যাংকারে তেলের দাম বেড়েছে দুই শতাংশ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

সউদী আরবের উপক‚লে লোহিত সাগরে ইরানের একটি তেলের ট্যাংকারে বিস্ফোরণের পর বিশ্ববাজারে তেলের দাম বেড়েছে দুই শতাংশেরও বেশি। তেহরানের দাবি ওই ট্যাংকারে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত করেছে। এই ঘটনায় গুরুত্বপ‚র্ণ অঞ্চলে জ্বালানি তেল সরবরাহ বিঘিœত হতে পারে এমন আশঙ্কায় বিশ্ববাজারে দাম বেড়েছে। ন্যাশনাল ইরানিয়ান ট্যাংকার কোম্পানির (এনআইটিসি) এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে সউদী আরবের বন্দরনগরী জেদ্দা উপক‚লে সিনোপা নামের ট্যাংকারটিতে দুটি আলাদা বিস্ফোরণ ঘটে। সম্ভবত ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কারণে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে দাবি করা হয় বিবৃতিতে। এতে ট্যাংকারটি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে সাগরে তেল চুইয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছে ইরানের বার্তা সংস্থা আইএসএনএ। দেশটির বার্তা সংস্থা নুর জানিয়েছে, ট্যাংকারের সকল কর্মী নিরাপদ রয়েছে আর ট্যাংকারের অবস্থাও এখন স্থিতিশীল। এই ঘটনার পর আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম দুই দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে প্রতি ব্যারেল ৬০ দশমিক ৪৬ ডলারে বিক্রি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে অপরিশোধিত তেলের দাম দুই দশমিক এক শতাংশ বেড়ে ৫৪ দশমিক ৬৯ ডলারে বিক্রি হয়েছে। এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় বাজার বিশ্লেষক স্টিফেন ইনস বলেন, বিকল্প সক্ষমতার অবস্থাও দুর্বল আর মধ্যপ্রাচ্যের প্রতিটি তেল ক্ষেত্রের সরবরাহ শৃঙ্খল নিয়ে দৃশ্যত উদ্বেগ রয়েছে সেকারণে ব্যবসায়ীরা সরবরাহ ঝুঁকিতে প্রতিবন্ধকতা স্থাপন করতে চাইছেন। প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার মধ্যে গত ১৪ সেপ্টেম্বর সউদী আরবের দুই তেল স্থাপনায় হামলার ঘটনা ঘটে। ওই হামলার পর সউদী আরবের তেল উৎপাদন অর্ধেকে নেমে আসে। ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা হামলার দায় স্বীকার করলেও শুরু থেকেই এ ঘটনায় ইরানকে দায়ী করে আসছে সউদী আরব। উদ্ভ‚ত পরিস্থিতিতে ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নিতে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বারস্থ হয় রিয়াদ। কিন্তু দৃশ্যত রিয়াদের এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরই নড়েচড়ে বসেন সউদী যুবরাজ। ইরানের সঙ্গে আলোচনায় মধ্যস্থতা করতে পাকিস্তান ও ইরাকের শরণাপন্ন হন এমবিএস নামে পরিচিত সউদী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। এমন পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন রক্তপাত (ইয়েমেনে সউদী আগ্রাসন) থামালেই কেবল রিয়াদের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে। এরই মধ্যে শুক্রবার সউদী উপক‚লে ইরানি ট্যাংকারে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলো। খবরে বলা হয়, শুক্রবারের ওই হামলায় ট্যাঙ্কারটিতে আগুন ধরে সেটি মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। জেদ্দা বন্দর থেকে ৯৬ কিলোমিটার দ‚রে সমুদ্রে থাকা হামলার শিকার ট্যাঙ্কারটি ফুটো হয়ে সেটি থেকে তেল ছড়িয়ে পড়েছে বলেও জানায় ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন। ‘রেড সি’ এবং পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে আবারও তেলের ট্যাঙ্কারে হামলার ঘটনায় দুই প্রতিবেশী ইরান ও সউদী আরবের মধ্যে উত্তেজনার পারদ আরো চড়বে। ওই এলাকায় থাকা যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর নৌবহর ‘ফিফ্থ ফ্লিট’ থেকে ইরানের এ দাবি সম্পর্কে অবগত থাকার কথা জানিয়েছে। তবে এ বিষয়ে তারা আর কোনো তথ্য দিতে রাজি হয়নি। সউদী আরবের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে হামলার বিষয়ে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। ইরানের সংবাদ সংস্থা আইএসএনএ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যক্তিদের বরাত দিয়ে ইরানী তেলের ট্যাঙ্কারে ‘সন্ত্রাসী’ হামলার কথা বলেছে। আর দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে তাদের দুইটি ট্যাঙ্কার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার খবর প্রচার করেছে। বিবিসি, রয়টার্স।



 

Show all comments
  • 1111 ১২ অক্টোবর, ২০১৯, ৯:২২ এএম says : 0
    1111
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ