Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

লাউ চাষে যুবকদের ভাগ্যবদল

মো. আশিকুর রহমান টুটুল, লালপুর (নাটোর) থেকে | প্রকাশের সময় : ১৫ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

নাটোরের লালপুরে শুরু হয়েছে মাচায় লাউ চাষ। উপজেলার ওয়ালিয়া পূর্বপাড়া গ্রামের মাঠে শীতকালীন আগাম জাতের হাইব্রিড লাউ মাচায় চাষ করে সফল হয়েছেন চাষী আতিকুর রহমান রনি নামের এক যুবক। সে ওয়ালিয়া পূর্ব পাড়া গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে। রনি ৩২ হাজার টাকা খরচ করে ৪০দিনে ১ বিঘা ৫ কাঁঠা জমি থেকে ৫০ হাজার টাকার লাউ বিক্রয় করেছেন। চাকরির পিছনে না ঘুরে মাচায় লাউ চাষ করে ভাগ্যবদলাতে পারে এই এলাকার বেকার যুবকদের।

সরেজমিনে উপজেলার ওয়ালিয়া পূর্বপাড়া মাঠে চাষী রনির লাউ ক্ষেতে গিয়ে দেখা যায়, সবুজ লাউ ক্ষেতে ছোট বড় প্রায় ৫ শতাধিক লাউ ধরে আছে। এসময় লাউ চাষী আতিকুর রহমান রনির সঙ্গে কথা বলতে চাইলে রনি বলেন, ‘আমি এইচএসসি পাশ করে চাকরির পিছনে ঘুরে চাকরি হচ্ছিলনা। এ বছর আষাঢ় মাসের মাঝামাঝি সময় ১ বিঘা ৫ কাঁঠা জমিতে মাচা করে হাইব্রিড লাউ চাষ শুরু করি। চারা রোপনের ৬০ দিনে পর থেকে গাছগুলিতে লাউ ধরতে শুরু করে। এখন পর্যন্ত ৩২ হাজার টাকা খরচ করে ৪০দিনে জমি থেকে ৫০ হাজার টাকার লাউ বিক্রয় করেছি।’ তিনি আরো বলেন, ‘প্রথম অবস্থায় লাউএর বাজার কিছুটা কম থাকলেও এখন প্রতি পিচ লাউ ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত পাইকারী বিক্রয় হচ্ছে।

একদিন পর পর জমি থেকে ১৫০ থেকে ২০০ পিচ লাউ বিক্রয় করেন। তার এই লাউ এখনো দেড় মাস বিক্রয় করা যাবে। শেষ পর্যন্ত তিনি প্রায় ১লাখ টাকার লাউ বিক্রয় করবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন রনি।’ নতুন লাউ চাষী রনির সফলতা দেখে এই এলাকার অনেকে যুবকই মাচায় লাউ চাষে আগ্রহ প্রকাশ করছেন।

লালপুর উপজেলা কৃষি অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘রনির মতো শিক্ষিত যুবকরা কৃষি ক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করলে লালপুরে কৃষি ক্ষেত্রে আরো অগ্রগতি হবে। আগ্রহী যুবকদের উপজেলা কৃষি অফিস থেকে বিভিন্ন প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ