Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

‘তুহিন হত্যায় তার বাবা জড়িত কিছুতেই মানতে পারছি না’

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ অক্টোবর, ২০১৯, ৮:৩৫ পিএম

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে চাঞ্চল্যকর পাঁচ বছরের শিশু তুহিন হত্যাকাণ্ডে বাবা আব্দুল বাছির জড়িত বিষয়টি বিশ্বাস করতে পারছেন না মা মনিরা বেগম। ১৮ দিনের সন্তান কোলে নিয়ে দ্বিতীয় সন্তান তুহিনের হত্যার বিচার চান তিনি।

আজ বুধবার বিকেলে দিরাই উপজেলার কেজাউরা গ্রামে তুহিনের মা মনিরা বেগমের সঙ্গে কথা হয়। ১৮ দিনের নবজাতক কোলে কথা বলার শুরুতেই কেঁদে ফেলেন মনিরা। কিছুক্ষণ কান্নার পর মনিরা বেগম বলেন, তুহিন আমাদের আদরের সন্তান। তাকে হত্যায় তার বাবা জড়িত এ কথা আমি বিশ্বাস করতে পারছি না। তুহিন হত্যার ঘটনা কিছুতেই মানতে পারছি না আমি।

তিনি বলেন, আমার তিন ছেলে ও এক মেয়ে। এর মধ্যে তুহিন দ্বিতীয়। ১৮ দিন আগে আমার এক কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। দুই বছর বয়স থেকে তুহিন তার বাবার সঙ্গে ঘুমায়। কোনো দিন তুহিনকে মারধর করেননি তার বাবা। রোববার রাতে খেয়ে সন্তানদের নিয়ে ঘুমিয়ে পড়ি আমরা।

রাত ১০টার দিকে ঘুম থেকে উঠে দেখি বাবার সঙ্গে ঘুমাচ্ছে তুহিন। ওটাই জীবিত তুহিনকে আমার শেষ দেখা। রাত আড়াইটার দিকে ঘরের দরজা খোলা দেখি। এরপর সবাই জেগে দেখি তুহিন নেই। তখন প্রতিবেশীদের ডাকা হয়। সকালে বাড়ির পাশে রাস্তায় একটি কদম গাছের ডালে তুহিনের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পাই আমরা। এরপর তুহিনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সেই সঙ্গে তার বাবা ও চাচাকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

মনিরা বেগম আরও বলেন, ‘আমি জানি না কে বা কারা আমার ছেলেকে হত্যা করেছে। মানুষের কাছে শুনছি তুহিনকে তার বাবা হত্যা করেছে। তবে আমি কারও কথা বিশ্বাস করতে পারছি না। যে তুহিন দুই বছর ধরে বাবার কোলে ঘুমাতো সে তুহিনকে ঘরের বাইরে নিয়ে কোলের ওপর হত্যা করতে পারে না বাবা, এটি বিশ্বাস হয় না আমার।’

হত্যার দায় স্বীকার করে তুহিনের চাচা নাছির উদ্দিন ও চাচাতো ভাই শাহরিয়ারের আদালতে দেয়া জবানবন্দির বিষয়ে মনিরা বেগম বলেন, নাছির আমার দেবর। তার সঙ্গে তুহিনের বাবার কোনো শত্রুতা নেই, কোনো ঝগড়া বিবাদ নেই। তার সঙ্গে আমাদের ভালো সম্পর্ক। হাসিখুশি ছিলাম আমরা। তাদের ভাইয়ে ভাইয়ে কোনো সমস্যা ছিল না। ভাতিজা শাহরিয়ারের সঙ্গে আমার কিংবা তার পরিবারের কারও কোনো দ্বন্দ্ব নেই।

মনিরা বেগম বলেন, তুহিনকে যারাই হত্যা করুক আমি তাদের বিচার চাই। সবাই বলছে তুহিনকে তার বাবা হত্যা করেছে, কিন্তু কেন তুহিনকে তার বাবা হত্যা করেছে তার উত্তর দিচ্ছে না কেউ। আমি জানতে চাই কেন তুহিনকে তার বাবা হত্যা করল? আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই। পুরো ঘটনা জানতে চাই।

কেঁদে কেঁদে মনিরা বেগম বলেন, ‘আমি আমার ছেলেকে শেষবারের মতো দেখতে পারিনি। যদি আগে জানতাম আমার ছেলের ওপর এমন অত্যাচার হবে বাড়িতেই রাখতাম না। সরকারের কাছে আমার আবেদন যারা আমার ছেলেকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে তাদের ফাঁসি দেয়া হোক।’



 

Show all comments
  • Tareq Sabur ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ৫:৫৩ এএম says : 0
    Police is the main culprit I believe. You know Bangladesh Police chori dakati khun shob e kore.
    Total Reply(0) Reply
  • Yourchoice51 ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ৫:৩৩ পিএম says : 0
    মনে হচ্ছে এটা একটা গভীর ষড়যন্ত্র; নিহতের পরিবারের বাইরের কেউ শত্রূতা বশতঃ এটা করেছে বলে মনে হচ্ছে। যেভাবে খবরটা পুলিশের কাছ থেকে আসছে, সেভাবে বিচার করলে নিহতের পরিবারের অনেক ক্ষতি হবে; মনে হচ্ছে হত্যাকারী এটাই চেয়েছে। পুলিশকে বিশ্বাস করা খুব কঠিন। এদের অনেকেই টাকা খেয়ে প্রকৃত আসামি ছেড়ে দিয়ে নিরীহ লোককে ফাঁসিয়ে দেয়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হত্যা


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ