Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

পানি খেতে চাইলেও দেয়া হয়নি আবরারকে

নাজমুস সাদাত ৫ দিনের রিমান্ডে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এজাহারভুক্ত আসামি এএসএম নাজমুস সাদাতকে রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। গতকাল আদালত তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে তিনি আদালতে আবরারকে মারধরের সময় পানি চাইলেও পানি না দেয়ার কথা জানান।
সাদাত বলেন, ‘মনির ভাই আমাদের বলে, আবরারকে রুম থেকে ডেকে নিয়ে আসতে। তখন আমরা নিচে গিয়ে ডেকে নিয়ে আসি। এরপর তাকে অনিক সরকার, সকাল, মোজাহিদ ও মনির ভাইসহ ১৫ ও ১৬ ব্যাচের ভাইরা বেশি মারছে। আবরার পানি খাইতে চাইলেও পানি দেওয়া হয় নাই। আমরা ভাইদের বলেছিলাম হাসপাতালে নিয়ে যাইতে, ভাইরা নিতে দেয় নাই। এরপর রাত সাড়ে ১২টার দিকে আমি নিজের রুমে চলে আসি’।
গতকাল রিমান্ড আবেদনের শুনানিতে আসামি এ এস এম নাজমুস সাদাতের পক্ষে কোনো আইনজীবী না থাকায় বিচারক জানতে চায়- তার কিছু বলার আছে কি না? এ সময় বিচারকের প্রশ্নের উত্তরে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা মামলার আসামি এ এস এম নাজমুস সাদাত এসব কথা বলেন। পরে শুনানী শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মোর্শেদ আল মামুন ভূইয়া আসমিকে পাঁচ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের লালবাগ জোনাল টিমের ইন্সপেক্টর মো. ওয়াহিদুজ্জামান আসামি সাদাতকে আদালতে হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন।
রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, আবরার হত্যা মামলার এজাহারনামীয় ১৫ নম্বর আসামি সাদাত। এই হত্যা কান্ডের সঙ্গে আসামি সাদাত সরাসরি জড়িত। মামলার তদন্ত, সাক্ষ্য প্রমাণে, ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনায় তার জড়িত থাকা সম্পর্কে যথেষ্ট সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে। ইতিপূর্বে এ মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিকারীদের মধ্যে কয়েকজন আসামির জবানবন্দিতে আসামি সাদাতের জড়িত মর্মে নাম প্রকাশ করেছেন। তাই মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে অন্যান্য আসামিদের শনাক্ত ও গ্রেফতারের জন্য ১০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন। এর আগে গত সোমবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে ভারতে পালানোর সময় দিনাজপুর জেলার বিরামপুর থানার কাঁঠলাবাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের ১৭তম ব্যাচের এই শিক্ষার্থী জয়পুরহাটের কালাই থানার কালাই উত্তরপাড়ার হাফিজুর রহমানের ছেলে।
উল্লেখ্য, গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর রুমে ডেকে নিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয় ইলেক্ট্রিক অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে। এর পরদিন চকবাজার থানায় তার বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় ২০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।



 

Show all comments
  • Shamim Mia ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    Allah bechar korbe
    Total Reply(0) Reply
  • Maruf Gcap ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    সবচাইতে নিকৃষ্ট প্রানী এগুলো..... জনসম্মুখে শিরচ্ছেদ করা উচিৎ।
    Total Reply(0) Reply
  • Riaz Rahman ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    কতটা বিভীষিকাময় সময় কেটেছে! ভাবলেই গায়ের লোমকূপ উঠে যায়! জান্নাতবাসী হোক আবরার সেই দুয়া করি, আর দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি হোক কামনা করি।
    Total Reply(0) Reply
  • Shohag Hossain ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    So sad
    Total Reply(0) Reply
  • Md Jakir Hossain ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৫ এএম says : 0
    কড়া বিচার চাই
    Total Reply(0) Reply
  • সন্ধ্যা তারা ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৬ এএম says : 0
    এতো কষ্ট দিলি তোরা আবরারকে? তোরা কেমন মায়ের সন্তান?
    Total Reply(0) Reply
  • True All ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৭ এএম says : 0
    হায়রে মনে হয় পানি খেতে দিলে ছেলেটা বেচে যেত
    Total Reply(0) Reply
  • আল তামাশ ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৫৭ এএম says : 0
    ইনশাআল্লাহ আবরার হাউজে কাওসারের পানি পান করিবে।তোদের দুনিয়ার পানির কোন প্রয়োজন নেই আর আবরারের।
    Total Reply(0) Reply
  • rezwan ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ৩:২১ এএম says : 0
    they should catch everybody and punish accordingly each and every body and also gov. should start to clean their own party . gov should make a committee and and search all university and remove all weapon , stamp from hall
    Total Reply(0) Reply
  • Anis ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৩৩ এএম says : 0
    কিছুই হবেনা।
    Total Reply(0) Reply
  • Anis ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৩৩ এএম says : 0
    কিছুই হবেনা।
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Sabbir ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৪৬ পিএম says : 0
    এখন বর্তমানে বাংলাদেশের সবচেয়ে নিকৃষ্ট প্রাণী হিসেবে মানুষকেই দেখা যাচ্ছে, কিন্তু মানুষ ভুলে গেছে যে, মানুষ হচ্ছে আশরাফুল মাখলুকাত। চলুন আমরা সবাই আল্লার কাছে হেদায়েতের প্রার্থনা করি
    Total Reply(0) Reply
  • মজলুম আহমেদ ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ৬:৩৭ পিএম says : 0
    কত বড় অমানুষ হলে এমন করতে পারে।
    Total Reply(0) Reply
  • Khairul ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১১:২৩ এএম says : 0
    এখানে আপনি আপনার মন্তব্য করতে পারেন অতিতারাতারি অপরাধিদের বিচার চাই
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বুয়েট

১৯ অক্টোবর, ২০১৯
১৯ অক্টোবর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ