Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম
প্রশ্ন : আমি শুনেছি এ্যালকোহল কিংবা মদ পান করলে ৪০দিন পর্যন্ত শরীর নাপাক থাকে? বিষয়টি কতুটুকু গ্রহণযোগ্য?
উত্তর : শরীয়ত অনুযায়ী এমন গোনাহ’র পর অজু গোসল জায়েজ আছে। যেহেতু নামাজ পড়ার হুকুম চালু থাকে। সুতরাং তার শরীর নাপাক থাকে না। মাতলামী দূর হওয়ার পর তার জন্য পবিত্র হওয়া ও নামাজ পড়া ফরজ। বিধিগতভাবে ৪০ দিন নাপাক ধরা যাবে না। প্রশ্নে বলা হয়েছে, শরীর নাপাক। এমন নাপাক কোনো গোনাহের ফলেই হয় না। যদি সে পবিত্রতা অর্জন করে নেয়। ৪০ দিন এবাদত কবুল হয় না (কবুল হয় না অর্থ বুঝতে হবে, এবাদত শুদ্ধ হয় না বা করা যাবে না বলা হয়নি, বলা হয়েছে কবুল হয় না। এ দু’টি কথা এক নয়) এমন কিছু শাস্তি কোনো কোনো গোনাহ’র জন্য আছে। মদপানের জন্য এমন কথা হাদিস কোরআনে বলা নেই। তবে, নিয়মিত মাদকগ্রহণকারীর দোয়া শবে বরাতেও কবুল হয় না বলে হাদীসে উল্লেখ আছে। ৪০ দিন এবাদত কবুল হয় না সে ব্যক্তির, যে বিশ্বাস নিয়ে কোনো জ্যোতিষির কাছে যায়। এছাড়া ৪০ দিন এবাদত কবুল হয় না, অন্য কোনো কাজের ক্ষেত্রে বলা ঠিক হবে না। বলতে গেলে কোরআন ও সুন্নাহ’র দলীল লাগবে।
প্রশ্ন : আমরা জানি কাপড় যেমন লুঙ্গি বা প্যান্ট টাখনুর উপর রাখা সব সময়ের জন্য জরুরী। সেটা ফরজ না ওয়াজিব জানাবেন। নামাজের সময় প্যান্ট বা লুঙ্গি টাখনুর নীচে নেমে পড়লে নামাজ হবে কি?
উত্তর : ইচ্ছাকৃতভাবে অহংকার বশত লুঙ্গি বা প্যান্ট পায়ের গিরার নিচ পর্যন্ত ঝুলিয়ে রাখা কবিরা গুনাহ। অহংকার বশত পরিহিত পোশাক আশাকের অন্য কোনো রূপও জায়েজ নেই। যা জায়েজ নেই বা কবিরা গুনাহ, তা করা হারাম। হারাম কাজ ত্যাগ করা ঈমানদারের উপর ফরজ। এ গুনাহটি নামাজের জন্য নির্দিষ্ট নয়। সব সময়ের জন্যই গুনাহ। জেনে শুনে ইচ্ছাকৃতভাবে এমন কবিরা গুনাহ নামাজের ক্ষতি করে। তবে বেখেয়ালিতে এমন হয়ে গেলে আল্লাহ মাফ করবেন। টাখনুর নিচে পরিধেয় বস্ত্র চলে গেলেই নামাজ হবে না, বিষয়টি এমন নয়। তবে, সতর্কতা খুব জরুরি।
-আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী



 

Show all comments
  • ISMAIL HOSEN RATON ২৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:২৪ পিএম says : 0
    amader uchit karo bodnam na koro ...ami jani bodnam kora onek kharap kaj...tai plz apnarao karo bodnam ghaibenna..
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ