Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

কোলকাতা টেস্টে প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণ, জানেনা বিসিবি!

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:২৬ এএম

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নতুন সভাপতি হতে যাওয়া সৌরভ গাঙ্গুলি আসছে নভেম্বরে কলকাতা টেস্টে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। একই মঞ্চে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে, আমন্ত্রণ পাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এমন খবরই দিয়েছে কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার।

নভেম্বরে তিন টি-টোয়েন্টি আর দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে ভারতে যাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সিরিজের দ্বিতীয় এবং শেষ টেস্ট হবে কলকাতার ঐতিহ্যবাহী ভেন্যু ইডেন গার্ডেন্সে। ইডেনে প্রথমবার বাংলাদেশ-ভারতের টেস্ট ম্যাচকে ‘ঐতিহাসিক’ তকমা দিয়ে পত্রিকাটি জানিয়েছে, বিসিসিআইর নতুন কর্তা চাইছেন নিজ শহরে এই টেস্ট ম্যাচকে উৎসবের আমেজ দিতে।

সে কারণে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে নিমন্ত্রণ জানিয়ে আনুষ্ঠানিক চিঠি পাঠিয়েছেন ‘প্রিন্স অব কলকাতা’। ২০০০ সালে টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর ভারতের বিপক্ষেই ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অভিষেক টেস্ট খেলেছিল বাংলাদেশ। কাকতালীয়ভাবে সে টেস্ট দিয়েই ভারতের টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে যাত্রা শুরু হয় সৌরভের। বছর বিশেকের মধ্যে সেই সৌরভই এখন ভারতীয় ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় কর্তা।

এর মধ্যে ভারত বেশ কয়েকবার দ্বিপাক্ষিক সফরে বাংলাদেশে এলেও ভারতের মাঠে বাংলাদেশ টেস্ট খেলেছে মাত্র একটি। ২০১৭ সালে হায়দরবাদে হয়েছিল সে টেস্ট। ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কলকাতার মাঠে দুই ম্যাচ খেললেও ঐতিহ্যবাহী এই ভেন্যুতে প্রতিপক্ষ হিসেবে স্বাগতিকদের কখনো পায়নি বাংলাদেশ। এবার তাই উপলক্ষকে রাঙাতে বাঙালি সৌরভ নিচ্ছেন বিশেষ উদ্যোগ। আর তাই ২২ নভেম্বর ইডেনে শুরু হতে যাওয়া টেস্ট ম্যাচের আগে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে চান তিনি।

তবে এমন খবর জানা নেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডেরই! দুপুরে এই প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলো বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসানের কাছে। তার উত্তরে কলকাতার সংবাদমাধ্যমের খবরের সত্যতা নিয়েই থাকল ধোঁয়াশা, ‘আমার সঙ্গে সৌরভের (গাঙ্গুলী) কথা হয়েছিল। সে বলেছিল যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে দাওয়া দেবে। কিন্তু দাওয়াত এসেছে বা উনার কাছে পৌঁছেছে, এরকম কোনো খবর আমি পাইনি। আজকেও আমি খোঁজ নিয়েছি, এরকম কোনো খবর নেই।’

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ