Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭, ০৬ সফর ১৪৪২ হিজরী

পুষ্টির অভাবে ভারতে বছরে ৬৯% শিশু মারা যায় : ইউনিসেফ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ অক্টোবর, ২০১৯, ২:৩৭ পিএম

ভারতে প্রতি বছর অপুষ্টির কারণে অন্তত ৬৯ শতাংশ শিশুর মৃত্যু হয়। যাদের বয়স পাঁচ বছরের নিচে। জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের প্রতিবেদনে চাঞ্চল্যকর এই খবর জানানো হয়েছে। শিশুমৃত্যু নিয়ে শিউরে ওঠার মতো আরও কিছু তথ্য দিয়েছে সংস্থাটি।

ইউনিসেফ তাদের ‘দ্য স্টেট অব দ্য ওয়ার্ল্ডস চিলড্রেন-২০১৯’ শীর্ষক প্রতিবেদনে আরও জানিয়েছে, ভারতের মাত্র ২১ শতাংশ শিশুর খাদ্য তালিকায় সুষম খাবার রয়েছে। পুষ্টির অভাবে অধিকাংশ শিশুই নানা ধরনের জটিল রোগে ভোগে।

সেই তালিকায় হাইপারটেনশন, কিডনির জটিল সমস্যাসহ প্রাপ্তবয়স্কদের আরও নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে সেসব শিশু। সেই নিরিখে বিচার করলে ভারতীয় নারীদের স্বাস্থ্যের অবস্থা আরও খারাপ। কারণ ইউনিসেফের প্রতিবেদন বলছে, ভারতে প্রতি দুজন নারীর মধ্যে একজন রক্ত স্বল্পতায় ভোগেন।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের প্রতি পাঁচ জনের মধ্যে একজনের শরীরে ভিটামিন এ, প্রতি তিনজনের মধ্যে একজনের ভিটামিন বি-১২ এর ঘাটতি দেখা যায়। রক্ত স্বল্পতায় ভোগে প্রতি পাঁচ জনে দুজন। মাইক্রো নিউট্রিয়েন্টসের অভাবে রিকেটস, রাতকানা, অন্ধত্বের শিকার হতে হয় শিশুদের।

পুষ্টিবিদ্যার অধ্যাপক গার্গী বোসের মতে, ‘এর নেপথ্যে রয়েছে একাধিক কারণ। প্রধানত ছয় থেকে আট মাস বয়সের পর শিশুদের মধ্যে অপুষ্টির সমস্যা বেশি। মৃত্যুও হয় অনেকের। মাতৃদুগ্ধ ছেড়ে শিশুকে খাবার খাওয়ানো বড় কারণ।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেক ক্ষেত্রেই এই খাবার পরিমাণেও যথেষ্ট হয় না, আবার পুষ্টিগুণেও যথাযথ নয়। কারণটা মূলত দারিদ্র্য ও অশিক্ষা ছাড়াও পুষ্টি এবং স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সচেতনতার অভাব। পাশাপাশি অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, বিশুদ্ধ পানির অভাবও সমানভাবে দায়ী।

পুষ্টিবিজ্ঞানের ওই অধ্যাপকের মতে, ‘দারিদ্র্য ও অশিক্ষার হার বেশি সেখানেই বেশিরভাগ নারী অপুষ্টিতে ভোগেন। কম বয়সে বিয়ে, কৈশোরকালীন মাতৃত্ব, একাধিকবার গর্ভবতী হওয়া ইত্যাদি বড় কারণ। তাছাড়া মা অপুষ্টিতে ভুগলে সন্তানের অপুষ্টিতে আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কা তো থেকেই যায়।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন