Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

শতকে তুষারের পরেই নাঈম

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

ব্যাটসম্যানদের স্বর্গরাজ্য যেন চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম। আগের দিনই রান পাহাড়ে পা রাখে ঢাকা বিভাগ। জাতীয় লিগের প্রথম স্তরের ম্যাচে জবাব দিতে নেমে কম যাচ্ছে না রংপুরের ব্যাটসম্যানরাও। তার পথ ধরে ড্রয়ের পথে চারদিনের এই ম্যাচ।

প্রথম ইনিংসে ৮ উইকেটে ৫৫৬ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ঢাকা বিভাগ। তারপর জবাবে নেমে শনিবার ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষে রংপুর ৫ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ৩৩৪ রান। যদিও এখনো ঢাকার প্রথম ইনিংস থেকে রংপুর পিছিয়ে ২২২ রানে। ম্যাচে শতরান তুলে নেন নাঈম ইসলাম। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে এটি তার ২৭তম সেঞ্চুরি। ৩১ সেঞ্চুরি নিয়ে তার সামনে আছেন কেবল তুষার ইমরান।

ঢাকার করা ৫৫৬ রানের জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসের শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়েছিল রংপুর। ৪৪ রানে হারিয়েছিল দুই উইকেট। দলকে সেই বিপর্যয় থেকে টেনে তোলার পথে তৃতীয় উইকেটে লিটনের সাথে ১৫৪ রানের জুটি গড়েন নাইম। লাঞ্চের আগেই নাঈম পৌঁছে যান ফিফটিতে। আর চা বিরতির পর নাজমুল ইসলাম অপুর বলে দুই রান নিয়ে সেঞ্চুরি স্পর্শ করেন ২২৯ বলে। তার নামের পাশে তখন ১০টি চার।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে গত তিন মৌসুমের প্রতিটিতেই রান এসেছে নাঈমের ব্যাটে। ২০১৮-১৯ মৌসুমে ১২ ম্যাচে তিন সেঞ্চুরি ও ছয় ফিফটিতে ৫০.৮৪ গড়ে করেছিলেন ৯৬৬ রান। ২০১৭-১৮ মৌসুমে খেলা ১০ ম্যাচে দুটি করে সেঞ্চুরি ও ফিফটিতে ৫৩.২০ গড়ে করেছিলেন ৫৩২ রান। তার আগের মৌসুমে ৪৮.০০ গড়ে ৬৭২ রান করার পথে সেঞ্চুরি করেছিলেন চারটি।
ঘরোয়া ক্রিকেটে ব্যাট হাতে প্রায় প্রতি মৌসুমেই রান বন্যা বইয়ে দিলেও জাতীয় দলে ফিরতে পারেননি। সবশেষ টেস্ট খেলেছেন সাত বছর আগে- ২০১২ সালের নভেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।
প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের
সর্বোচ্চ সেঞ্চুরিয়ান
নাম সেঞ্চুরি
তুষার ইমরান ৩১
নাঈম ইসলাম ২৭
অলক কাপালি ২০
মুমিনুল হক ২০
মোহাম্মদ আশরাফুল ২০



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ