Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আর্থিক খাতের শৃঙ্খলায় সুশাসন আবশ্যক ডিসিসিআই’র সেমিনার

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত ‘আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর পুনঃসংষ্কার ও ব্যবসা গুটিয়ে নেয়া এবং স্টেকহোল্ডারদের উপর এর প্রভাব’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত বৃহষ্পতিবার ডিসিসিআই অডিটোরিয়ামে সেমিনারে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

সেমিনারে ঢাকা চেম্বারের সভাপতি ওসামা তাসীর বলেন, আমাদের অর্থনীতির ক্রমবিকাশের পাশাপাশি আর্থিকখাতের প্রতিষ্ঠানসমূহের সংখ্যা যেমন বেড়েছে, একই সঙ্গে এখাতের সংষ্কার এবং আর্থিক সেবার পরিধিও বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, আর্থিকখাতের এ উন্নয়নের পরও বেশকিছু প্রতিষ্ঠানকে এখনও নানাবিধ সমস্যা মোকাবেলা করতে হচ্ছে এবং এর জন্য প্রাতিষ্ঠানিক দূর্বলতা, পর্যবেক্ষনের সীমাবদ্ধতা, ঋণ প্রদানে অনিয়ম ও ঋণ আহরণের দীর্ঘসূত্রিতার বিষয়সমূহ অন্যতম। ডিসিসিআই সভাপতি বলেন, খেলাপী ঋণের উচ্চহার আমাদের আর্থিকখাত ও অর্থনীতিকে প্রভাবিত করছে। তিনি মনে করেন, স্থায়ী আমানতের বিপরীতে মুনাফার উচ্চহারের কারণে ঋণের সুদের হার কমানো যাচ্ছে না এবং এর ফলে বেসরকারীখাতে ঋণ প্রবাহ কমে গেছে ও বেশিহারে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে আমাদের এসএমইখাতের উদ্যোক্তারা। এজন্য তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের নজারদারি বাড়ানোর পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক নীতিমালার সংষ্কার এবং ‘ফিন্যান্সিয়াল সেক্টর রিস্ট্রাকচারিং অথরিটি’ নামে একটি কর্তৃপক্ষ গঠনের প্রস্তাব করেন।

ড. মসিউর রহমান আর্থিকখাতের বিশ^াসযোগ্যতা যেন না হারায়, সেদিকে সকলকে যতœবান হওয়ার আহŸান জানান। তিনি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সকলকে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সতর্কতার সাথে বিনিয়োগের পরামর্শ দেন। এছাড়াও তিনি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে অডিট পরিচালনার ক্ষেত্রে স্বচ্ছতার ভিত্তিতে প্রতিনিয়ত আভ্যন্তরীন ও তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে অডিট পরিচালনার উপর জোরারোপ করেন। তিনি বলেন, আমাদের পুঁজিবাজারে ভালো প্রতিষ্ঠানের পর্যাপ্ত শেয়ার নেই, যার কারণে আমরা অল্পকিছু প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের উপর নির্ভরশীল। এক্ষেত্রে তিনি উৎপাদনশীলখাতে আরো বেশি হারে বিনিয়োগ এবং ভালো প্রতিষ্ঠানের শেয়ার পুঁজিবাজারে নিয়ে আসার প্রস্তাব করেন। তিনি বিদ্যমান নীতিমালার সংষ্কার ও আধুনিকায়ন এবং নীতিমালার ধারাসমূহের অস্পষ্টতা দূরীকরণে গুরুত্বারোপ করেন।

আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেড-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ খান এবং আরএসএ কনসালটিং পার্টনার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও দি সিটি ব্যাংক লিমিটেড’র প্রাক্তন ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহেল আর কে হোসেন মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

আরিফ খান বাণিজ্যিক ব্যাংকের পাশাপাশি আর্থিক প্রতিষ্ঠান হতে দীর্ঘমেয়াদী ঋণ প্রদান নিরুৎসাহিত করতে পুঁিজবাজারে বন্ড মার্কেট চালু করার প্রস্তাব করেন। তিনি খেলাপী ঋণের প্রবনতা কমানোর জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহে সুশাসন নিশ্চিত, বাংলাদেশ ব্যাংকের নজরদারি বাড়ানো, খেলাপী ঋণে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নিশ্চিতকরনের উপর গুরুত্বারোপ করেন। সোহেল আর কে হোসেন বলেন, আর্থিক খাতের বিদ্যমান সমস্যা মোকাবেলায় দূর্বল ব্যাংকসমূহের একীভূতকরন, বাংলাদেশ ব্যাংক কে আরো স্বাধীনতা প্রদান, দূর্বল আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের পুনঃগঠন, মূলধন অনুপাতের পর্যাপ্ততা বাড়ানো, এ্যাডভান্স অন ডিপোজিট (এডি)’র অনুপাত না ভঙ্গ করা প্রভৃতি বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ