Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

মন্ত্রী হলে তিনি এমন কথা বলতেন?

মেননের উদ্দেশে কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি গত নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের দেয়া বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মন্ত্রী হলে তিনি এমন কথা বলতেন?
গতকাল রোববার সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সেতুমন্ত্রী রাশেদ খান মেননকে উদ্দেশ করে এই প্রশ্ন তোলেন। একাদশ নির্বাচন ভোটারবিহীন হয়েছে সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের এই মন্তব্যের বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, উনি এতদিন পর এ কথা বলছেন কেন? তিনি মন্ত্রী হলে কি এমন কথা বলতেন? মন্ত্রিত্ব পেলে কি নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলতেন? আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ১৪ দলের বৈঠকে মেননকে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হবে। তার মন্তব্যের ব্যাখ্যা চাওয়া হবে। এর আগে শনিবার বরিশালে এক অনুষ্ঠানে রাশেদ খান মেনন বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটাররা ভোট দেয়নি। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম নেতার মুখে এমন মন্তব্যের পর রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে। অশ্বিনী কুমার টাউন হলে শনিবার ওয়ার্কার্স পার্টির বরিশাল জেলা কমিটির সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘আমি ও প্রধানমন্ত্রীসহ যারা নির্বাচিত হয়েছি আমাদেরকে দেশের কোনো জনগণ ভোট দেয় নাই। কারণ, ভোটাররা কেউ ভোটকেন্দ্রে আসতে পারে নাই। আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি, গত নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি।’ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ক্যাসিনো কান্ডে গ্রেফতারকৃতরা দলীয় নেতাদের সঙ্গে তাদের সখ্য নিয়ে যে তথ্য দিচ্ছেন তা শত্রুতাবশত হতে পারে। বিষয়টি নিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করবেন।
চলমান দুর্নীতি ও ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেফতারদের অনেকেই সরকার দলীয় নেতাদের সঙ্গে তাদের সখ্যের বিষয়টি সামনে আনছেন। ঢাকা উত্তর সিটির কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীব গ্রেফতারের পর দলের সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানকের ছেলে বলে পরিচয় দিতেন। গ্রেফতারকৃতদের সঙ্গে নেতাদের সখ্যের নাম চলে আসছে, এ বিষয়ে দলের পক্ষ থেকে তদন্ত করবেন কি না- প্রশ্নে কাদের বলেন, অনেক রকম নিউজ অনেক সময় হয়। কিছু কিছু নিউজে একজনের সঙ্গে আরেকজনের শত্রুতা আছে। সময়টা খুব খারাপ, এ সময়ে এটা আসলে ভেবে দেখতে হবে। নেত্রীর সঙ্গে আলাপ করে জানাব।
আটক হওয়া রাজীব দলের সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক নানকের সন্তান হিসেবে পরিচয় দেন- এ বিষয়ে কাদের বলেন, নানক সাহেবের একটা মেয়ে আছে, ছেলেটা এক্সিডেন্টে মারা গেছে। আর কোনো সন্তান আছে বলে আমার জানা নেই। এ ধরনের কোনো পাতানো সন্তান কি না- এটা নানক সাহেবকে জিজ্ঞেস করেন।
নানকের কারণে প্রভাব বিস্তার করে এত টাকার মালিক হয়েছেন? এ বিষয়ে কাদের বলেন, আমার মনে হয় হাওয়া থেকে পাওয়া কিছু না বলে আপনি নানক সাহেবকে জিজ্ঞেস করুন, এ ধরনের একটা খবর বেরিয়েছে, এর সত্যতা কতটুকু? গণভবনে প্রধানমন্ত্রী যুবলীগকে ডেকেছেন, চেয়ারম্যানকে ডাকা হয়নি- এ বিষয়ে কাদের বলেন, এটা যুবলীগের জেনারেল সেক্রেটারিকে জিজ্ঞেস করুন। আমি তো আওয়ামী লীগের অফিসে কাউকে ডাকিনি। গণভবনে যাকে ডাকা হবে, এটা প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছার বাইরে কাউকে ডাকা হবে না। যুবলীগ জেনারেল সেক্রেটারি জানেন- কাকে ডাকা হয়েছে, তারা নিশ্চয়ই একটা তালিকা দিয়েছেন সেখানে। আমি দলের জেনারেল সেক্রেটারি, বিষয়টা জানি না।
যুবলীগের নেতৃত্বে কারা আসবেন, বয়স কত হবে- এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমার তো কোনো প্রেডিকশন এই মুহূর্তে নেই। এটা যুবলীগ ঠিক করবে। যুবলীগের বয়স, তারা আমাদের সভাপতি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বসবেন। সেখানে যদি কোনো নির্দেশনা থাকে, সেটা এই মুহূর্তে আমি বলতে পারছি না। বসবে বিকালে, আমি এখন কী করে বলব? দেখা যাক কী হয়? আর কোনো পরিবর্তন বা কিছু করতে হলে যুবলীগের গঠনতন্ত্রেই করতে হবে। আমার মনে হয় বয়সসীমা গঠনতন্ত্রে বেশি নেই, গঠনতন্ত্রে বেশি থাকে না। তো বাস্তবে কী হচ্ছে। যুবলীগ তো ছাত্র সংগঠন না, হতে পারে অস্বাভাবিক বেশি, হলে সমস্যা। যুবলীগের বর্তমান চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর বয়স ৭২ বছর, এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, না, হয়েছে তো অনেক আরো আগে, সাত বছর আগে, সম্মেলন দীর্ঘদিন না হওয়াতে। তারা সম্মেলন করছে, তারা গঠনতন্ত্রে কোনো পরিবর্তন আনবে কি না এটা তাদের বিষয়।
এই সময়ে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ নেতৃত্বে একটা সমালোচনা- এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি কোনো নেতৃত্বে পরিবর্তন-পরিবর্ধন নিয়ে কোনো কথা বলব না। এটুকু বলতে চাই, নেতৃত্ব যদি বিতর্কিত হয়, বিতর্কিত নেতৃত্ব অবশ্যই নতুন কমিটিতে থাকবে না। খালেদা জিয়ার মুক্তির প্রশ্নে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপিকে আন্দোলন করতে বলুন। তারা পরিষ্কার বলে দিয়েছে, আন্দোলন ছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তির কোনো বিকল্প নেই। কাজেই এক মুখে এত কথা কেন? তাদের বলুন, আন্দোলন করতে।
ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সবাই একবাক্যে বলছেন যে, খালেদা জিয়ার মুক্তি আইনি পথে হবে না, অন্য কোনোভাবে হবে না, সরকার তাকে মুক্তি দেবে না। কাজেই আন্দোলনের ঝড় তুলতে হবে এবং বিস্ফোরণ ঘটাতে হবে, তারপর তুমুল আন্দোলনের মাধ্যমে তাকে বের করতে হবে। আন্দোলনে তো কোনো বাধা নেই। জনগণ সায় দিলে আন্দোলন করবে, বলেন তিনি।
এমপি বুবলীর বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে জানাবেন কাদের
সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নরসিংদীর সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্য তামান্না নুসরাত বুবলীর জালিয়াতির বিষয়টি আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে জানানো হবে।
সংসদ সদস্য তামান্না নুসরাত বুবলী নিজের পরীক্ষা অন্যকে দিয়ে দিয়েছেন- এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সেটা আমি দৈনিকগুলোতে দেখেছি। বিষয়টি নিয়ে এখনও দলীয় বা সরকারিভাবে আলোচনা হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিষয়টা আলাপ করা। নেত্রীর সঙ্গে আলাপ করে পরে বিষয়টা জানাব। ওই সংসদ সদস্য নিজের ডিগ্রি পরীক্ষায় অন্যকে পাঠিয়ে আটটি পরীক্ষা দিয়ে শেষ দিন গতকাল শুক্রবার প্রক্সি পরীক্ষার্থীকে হাতেনাতে ধরা হয়। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা তৈরি হয়েছে।



 

Show all comments
  • Tareq Sabur ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ৫:৩৬ এএম says : 0
    Why sheikh Haskins did not make him minister? If she made him minister, he would not have given such true speech today. By the way, menon has spoken truth. And, truth will be revealed in the end, this is universal truth.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ