Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ০৮ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কুর্দিদের সরে যাওয়া নিশ্চিত করুন : এরদোগান

রাস আল আইন থেকে সরে যাওয়ার দাবি এসডিএফের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

তুরস্কের সিরিয়া সীমান্ত এলাকা থেকে কুর্দি বিদ্রোহীদের সরে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান। রবিবার ইস্তাম্বুলে ধ‚মপানবিরোধী এক অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে তুরস্কভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি। এরদোগান বলেন, আঙ্কারার প্রত্যাশা উত্তর সিরিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্র ওয়াইপিজি/পিকেকে সন্ত্রাসীদের সরিয়ে নেবে। অন্যথায় তুরস্ক ফের অভিযান শুরু করবে। তিনি বলেন, আশা করি আমাদের আমেরিকার মিত্ররা এবার তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করবে। এরদোগান বলেন, তুর্কি অভিযানে সিরিয়ায় ৭৬৫ ওয়াইপিজি/পিকেকে সন্ত্রাসীকে নিবৃত্ত করা হয়েছে। সন্ত্রাসীদের কবল থেকে দেড় হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকা উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে সিরীয় কুর্দিদের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তুর্কি-সিরিয়া সীমান্ত থেকে পিছু হটতে তারা রাজি আছেন, যদি তুরস্ক তাদের সেনা ও বেসামরিকদের দখলকৃত শহর থেকে চলে যাওয়ার অনুমতি দেয়। এসডিএফ কর্মকর্তা খলিল জানান, তাদের বাহিনী সীমান্ত থেকে ৩০ কিলোমিটার ভেতরে সরে যাবে। এরপর তারা রাস আল-আইন ও তাল আবিয়াদ শহর থেকে ১২০ কিলোমিটার দ‚রে অবস্থান নেবে। অপর এক খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় করা যুদ্ধবিরতি চুক্তি অনুযায়ী সিরিয়ার সীমান্ত শহর রাস আল আইন থেকে যোদ্ধাদের প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে বলে কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) জানিয়েছে। রোববার এসডিএফ একথা জানালেও প্রত্যাহার সম্প‚র্ণ হয়নি বলে তুরস্ক সমর্থিত সিরীয় বিদ্রোহীদের এক মুখপাত্র পাল্টা দাবি করেছেন, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। তুরস্ক-সিরিয়ার সীমান্ত সংলগ্ন সিরীয় এলাকাগুলো থেকে কুর্দি যোদ্ধাদের হটিয়ে দিয়ে সেখানে একটি ‘সেইফ জোন’ প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা করেছে তুরস্ক। এই লক্ষ্যে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে সামরিক অভিযান শুরু করেছে তারা। তুরস্ক কথিত ‘সেইফ জোন’ সীমান্ত থেকে সিরিয়ার ভিতরে ৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত হওয়ার কথা। এই অঞ্চলের যে দুটি সীমান্ত শহরকে প্রধান লক্ষ্যস্থল করেছে তুরস্ক রাস আল আইন তার একটি। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়িপ এরদোগানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের বৈঠকের পর সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে পাঁচ দিনের যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয় তুরস্ক। বৃহস্পতিবার রাত থেকে যুদ্ধবিরতি কার্যকর শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার যুদ্ধবিরতি শেষে ওই সেইফ জোন এলাকায় এসডিএফের কোনো উপস্থিতি থাকলে তুরস্ক ফের আক্রমণ শুরু করবে বলে সতর্ক করেছেন এরদোগান। রাস আল আইনের কথা উল্লেখ করে এসডিএফের মুখপাত্র কিনো গ্যাব্রিয়েল বলেছেন, “শহরটিতে আমাদের আর কোনো যোদ্ধা নেই।” এর আগে আঙ্কারা জানায়, রাস আল আইনে কয়েক ডজন গাড়ি প্রবেশ করার পর আবার ফিরে গেছে। তুরস্কের বাহিনীগুলো ও তাদের সমর্থিত সিরীয় বিদ্রোহীরা প্রায় চারদিক থেকে শহরটি ঘিরে রেখেছে। কিন্তু রাস আল আইন থেকে এসডিএফ ‘এখনও পুরোপুরি সরে যায়নি’ বলে রয়টার্সকে জানিয়েছেন তুরস্ক সমর্থিত বিদ্রোহীদের মুখপাত্র মেজর ইউসেফ হামৌদ। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেওয়ার পর তুরস্ক তাদের অভিযান শুরু করে। কয়েক বছর ধরে মার্কিন সেনাদের পাশাপাশি থেকে কুর্দি যোদ্ধারা ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াই করেছিল। এসডিএফের প্রধান অংশীদার কুর্দি ওয়াইপিজি বাহিনী সিরিয়ার মার্কিন বাহিনীর প্রধান মিত্র ছিল। হঠাৎ করে এই মিত্রদের ছেড়ে আসার সিদ্ধান্তের কারণে ট্রাম্প দেশে ও বিদেশে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েন। রয়টার্স, আনাদোলু এজেন্সি, আল-জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এরদোগান


আরও
আরও পড়ুন