Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ আশ্বিন ১৪২৭, ০১ সফর ১৪৪২ হিজরী

জয়পুরহাটে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় সাতজনের মৃত্যুদন্ড

জয়পুরহাট জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০১৯, ১:৪১ পিএম | আপডেট : ৩:৪১ পিএম, ২২ অক্টোবর, ২০১৯

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার দেওড়া আশ্রয়ন কেন্দ্র’র গৃহবধু আরতি রাণীকে ধর্ষণ করে হত্যা করার অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় সাত আসামীকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এর বিচারক ড.এ.বি.এম মাহমুদুল হক। একই সাথে দুজনের পাঁচ লক্ষ এবং পাঁচ জনের এক লক্ষ টাকা করে জড়িমানা করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে তিনি ওই রায় দেন।
দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন,আক্কেলপুর উপজেলার মারমা গ্রামের সোহেল তালুকদার,দেওড়া সোনারপাড়া গ্রামের আফজাল হোসেন,দেওড়া গুচ্ছগ্রামের রাহিন,দেওড়া সাখিদার পাড়ার ফেরদৌস আলী,দেওড়া সোনারপাড়ার মজিবর রহমান,জগতি গ্রামের রুহুল আমীন ও দেওড়া গুচ্ছগ্রামের আজিজার রহমান।

আদালত সুত্রে জানা গেছে,২০১৬ সালের ৮ সেপ্টেম্বর রাতে দেওড়া আশ্রয়ন কেন্দ্র’র উজ্জল মহন্তের স্ত্রী আরতী রাণীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে আসামীরা গণধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে মুমুর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পথে আরতী রাণী মারা যায়। এ ঘটনায় ১০ সেপ্টেম্বর আরতী রাণীর স্বামী উজ্জল মহন্ত বাদী হয়ে দন্ডপ্রাপ্ত সাত জনকে আসামী করে আক্কেলপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

মামলায় দীর্ঘ শুনানীর পর জয়পুরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এর বিচারক সকল আসামীর মৃতুদন্ডের আদেশ প্রদান করেন। একই সাথে আসামী সোহেল ও ফেরদৌস এর ৫ লাখ টাকা জড়িমানা ও অন্য সকলের ১ লাখ টাকা করে জড়িমানারও আদেশ দেন।
সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি আইনজীবী ফিরোজা চৌধুরী এবং বাদী পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান ও রফিকুল ইসলাম সহ ৫জন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মৃত্যুদণ্ড

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ